kalerkantho


৫টি বই বদলে দেবে জীবন

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৩০ মে, ২০১৮ ১৫:৪৩



৫টি বই বদলে দেবে জীবন

অ্যামি মরিনের 'থার্টিন থিংকস মেন্টালি স্ট্রং পিপর ডোন্ট ডু'

বিশ্বের সব সফল মানুষই সবচেয়ে বেশিবার একটা প্রশ্নের সম্মুখীন হয়ে থাকেন। তা হলো- আপনার এই সম্পদ ও সফলতার রহস্য কী? সবাই বিভিন্ন উত্তর দিয়ে থাকেন। অবাক করার মতো জবাব দিয়েছিলেন বিনিয়োগ গুরু ওয়ারেন বাফেট। তিনি বলেছিলেন, তার এই সফলতার কারণ প্রতিদিন ৫০০ পাতা বই পড়া। কিন্তু সবার হয়তো এই সুযোগ নেই। কিংবা প্রতিদিন এত বেশি বই পড়ার সুযোগও থাকে না। তবে চিন্তার কিছু নেই। বিশেষজ্ঞরা জানান, আপনি ধীরে ধীরে কয়েকটি বই পড়ে ফেলতে পারেন। এই পাঁচটি বই আপনার জীবনটাকে বদলে ফেলার সাহস ও বুদ্ধি দেবে। 

অ্যামি মরিনের 'থার্টিন থিংকস মেন্টালি স্ট্রং পিপর ডোন্ট ডু' 
জীবনে দুর্ভাগ্যজনক অবস্থা থেকে কখনো পরিত্রাণ পাবেন না। ব্যর্থতার সঙ্গে তো লড়াই করে টিকে আছেন। প্রতিনিয়ত এই দুর্ভাগা অবস্থার সঙ্গে সংগ্রাম করে প্রাণশক্তি নিয়ে টিকে থাকার শিক্ষা মিলবে এই বই থেকে। 

ডেল কার্নেগির 'হাউ টু স্টপ ওরিং অ্যান্ড স্টার্ট লিভিং' 
ধরুন, আজ রাতে একটা জরুরি কাজ আপনার। ওটা নিয়ে চিন্তায় আছেন। কিন্তু যেখানে কাজ সেখান থেকে জানানো হলো, কাজ একদিন পিছিয়েছে। এ অবস্থায় যে দুশ্চিন্তা ভর করবে আপনার ওপর, তা থেকে নিস্তার নেই। কিন্তু এই পেরেশানির সঙ্গে মানিয়ে নেয়ার কিছু কার্যকর উপায় আছে। সেই শিক্ষা পাবে এই বই থেকে। 

ক্লেটন এম. ক্রিস্টেনসেন, জেমস অলওর্থ এবং কারেন ডিলনে 'হাউ ইউর ইউ মেজার ইওর লাইফ? 


কর্মক্ষেত্রে আপনাকে সুখী বানাবে কী? হয়তো সামান্য বেতন বৃদ্ধি কিংবা সহকর্মীর কাছ থেকে পাওয়া প্রশংসাবাক্যই আপনার দিনটাকে সুন্দর করে দেবে। ক্যারিয়ারে সফলতা আসতে থাকলেও পরিবার ও বন্ধুবান্ধবদের সঙ্গে সময়টা হয়তো হারিয়ে যাচ্ছে আপনার। এতে ভবিষ্যত জীবনে বিরূপ প্রভাব পড়বে। কীভাবে সামলে নেবেন সে পরামর্শ দেবে এই বই। 

কেন রবিনসনের 'ফাইন্ডিং ইওর এলিমেন্ট' 
নির্দিষ্ট কিছু পথে জীবন চালাতে গিয়ে চাপের মধ্যে থাকতে হয়? সমাজ প্রায় সময়ই আমাদের নির্দিষ্টি কিছু পরিকল্পনার পথে এগিয়ে যেতে উৎসাহ দেয়। ক্যারিয়ার, বিয়ে, সংসার এবং সন্তানদের বড় করে তোলা একেবারে স্বাভাবিক পরিকল্পনা। কিন্তু সবাই এমন পথে চলতে পারেন না। কিন্তু সবাই একই উপায়ে সামনে এগোতে পারেন না। নিজেকে এগিয়ে নিতে প্রত্যেকের নিজস্ব পছন্দের পথে পা রাখা উচিত। এ পথে যেতে সমাজের নির্দিষ্ট নিয়মগুলো ভেঙে ফেলার পরামর্শ মিলবে। 

ড্যানিয়েল গোলম্যানের 'ইমোশনাল ইন্টেলিজেন্স' 


আবেগ কি আমাদের পিছিয়ে রাখছে? যদি আবেগগুলো মুছে ফেলা যেত, তবে কী আমরা যৌক্তিকভাবে চলতে পারতাম? আপনি কি জানেন, পালস রেট ১০০ বিপিএম এর বেশি হলে অতি আবেগের কারণে আপনি যৌক্তিক বিবেচনাবোধ হারিয়েছেন বলে ধরা হয়। কিন্তু আবেগ নিয়ন্ত্রিত হলে জীবনে অনেক ভালো সিদ্ধান্ত নিতে পারবেন। সেই নিয়ন্ত্রণের পথ দেখাবে এই বই। 

সূত্র : ব্লিনকিস্ট 



মন্তব্য