kalerkantho


নতুন চাকরি পেতে...

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৮ মে, ২০১৮ ০৯:৪৮



নতুন চাকরি পেতে...

ছবি অনলাইন

বর্তমান চাকরি নিয়ে হাঁপিয়ে উঠেছেন? অনেকেই বলবেন ‘হ্যাঁ’। বিপজ্জনক বস, সহকর্মীর আচরণ কিংবা অফিসের অপসংস্কৃতির কারণে কর্মীরা চাকরি ছাড়তে অস্থির হয়ে পড়েন। কিন্তু চাইলেই কি নতুন চাকরি পাওয়া যায়? অবশ্য বলা হয়ে থাকে, সঠিক উপায়ে ও প্রস্তুতি নিয়ে খুঁজলে যেকোনো জিনিস হাতের মুঠোয় আসবে। চাকরির বাজারে সফল হতে বিশেষ কিছু বৈশিষ্ট্যের পরিচর্যা করে যেতে হবে। এ নিয়েই আজকের টিপস।

সৃষ্টিশীল হোন

চাকরি খোঁজার প্রাথমিক ‘যন্ত্র’টি হলো প্রার্থীর রিজ্যুমি। সময়ের সঙ্গে সঙ্গে এর চেহারাও বদলে যায়। তাই চাকরির ধরন ও চাকরিদাতাদের বৈশিষ্ট্য বুঝে জীবনবৃত্তান্ত তৈরি করতে হবে। এও মনে রাখা উচিত, কারিকুলাম ভিটা বা রিজ্যুমির তথ্য পড়ার আগে এর সৌন্দর্য চাকরিদাতার মাথায় কাজ করে থাকে। তাই এটি সুন্দরভাবে উপস্থাপন করা জরুরি। এ জন্য কিছু রং ব্যবহার করা যেতে পারে, আর ফন্টের ক্ষেত্রে অতি পরিচিতর পরিবর্তে অন্য ফন্ট বেছে নিন। প্রয়োজনে অভিজ্ঞজনের পরামর্শ গ্রহণ করুন।

আরামের জায়গা থেকে বেরিয়ে আসুন

আপনি যেখানে যেভাবে থেকে অভ্যস্ত হয়ে উঠেছেন, সেই পরিস্থিতি থেকে বেরিয়ে আসুন। অন্যদের সঙ্গে প্রতিযোগিতায় নামুন। বেশির ভাগ প্রার্থীরই এ কাজে অনীহা থাকে। সত্যিকার অর্থেই নিজের ক্যারিয়ারে পরিবর্তন আনতে চাইলে নিজের জায়গা থেকে বেরোনার প্রস্তুতি সম্পন্ন করতে হবে।

পরিচিত মহল গড়ে তুলুন

পেশাদারদের জন্য এ কাজটি খুবই জরুরি। অন্তর্মুখী হলে তা পেশাজীবনে বিরূপ প্রভাব ফেলে। সবার সঙ্গে মিশতে হবে। বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান ও কর্মীদের সঙ্গে পরিচয় গড়ে তোলার কাজে পারদর্শী হয়ে উঠুন। এই পরিচিত মহলই আপনাকে নয়া সুযোগ এনে দেবে।

নিজের বাজারমূল্য বুঝে নিন

শুনতে খারাপ লাগে, তবে বিষয়টা অনেকটা এমনই। চাকরির বাজারে আপনার একটা মূল্যমান আছে। এটা বুঝতে হবে। এতে করে আপনাকে কোনো প্রতিষ্ঠান ঠকাতে পারবে না। আবার আপনিও বোকার মতো নিজের চাহিদা প্রকাশ করবেন না। দক্ষতা, সংশ্লিষ্ট কাজে প্রতিষ্ঠানের প্রয়োজনীয়তা, প্রতিষ্ঠানে গ্রহণযোগ্যতা ইত্যাদি বোঝার চেষ্টা করতে হবে।

নিজের কাজটা সেরে ফেলুন

আবারও বলা হচ্ছে, কাজ শুরুর আগে ঘরে বসে কিছু বাড়তি গবেষণায় মন দিতে হবে। এটা কেবল বেতন-ভাতা বিষয়ে নয়, যে প্রতিষ্ঠানে চাকরির আবেদন করেছেন তার গভীরে যান। ইন্টারভিউয়ে ডাকা হলে ওই প্রতিষ্ঠান সম্পর্কে আপনার ধারণা থাকাটা বাঞ্ছনীয়। কেবল প্রতিষ্ঠানকে বুঝলেই সেখানে আপনি নিজের প্রয়োজনীয়তার কথা তুলে ধরতে সক্ষম হবেন। তখন আপনাকে আরো বেশি যোগ্য বলে মনে করা হবে।

শ্রদ্ধাশীল থাকুন

চাকরির দৌড়ে নিজেকে ছেড়ে দেওয়ার আগে আচরণ সংযত রাখুন। অন্যের প্রতি শ্রদ্ধাশীল হতে হবে। নয়তো আপনিও মূল্য পাবেন না। এ ছাড়া এ গুণ না থাকলে যেখান থেকে চাকরি ছাড়ছেন সেখান থেকে সুনাম নিয়ে বেরোতেও ব্যর্থ হবেন। দুর্নাম থাকলে ভালো চাকরি পাওয়া দুষ্কর।

-- চিটশিট অবলম্বনে সাকিব সিকান্দার

 



মন্তব্য