kalerkantho


চিনি খাওয়া বাড়ালে....

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৬ মে, ২০১৮ ০৯:৩৩



চিনি খাওয়া বাড়ালে....

ছবি অনলাইন

টাইপ ২ ডায়াবেটিসের শঙ্কা

খাবারে চিনির মাত্রা যত বেশি হবে, ডায়াবেটিস রোগে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা তত বাড়ে। মিষ্টিজাতীয় খাবার বেশি খেলে শরীরে ভিসেরাল ফ্যাটের পরিমাণ বাড়তে শুরু করে, যা টাইপ ২ ডায়াবেটিসের মতো রোগকে শরীরে বাসা বাঁধতে সহায়তা করে।

মেদ বাড়ে

চিনির সঙ্গে পেটের মেদ বৃদ্ধির সরাসরি সম্পর্ক আছে। তাই চিনি খাওয়া কমালে মেদ বাড়ার শঙ্কা কমে। সেই সঙ্গে টাইপ ২ ডায়াবেটিসের মতো রোগ থেকে রক্ষা পাওয়া যায়।

স্মৃতিশক্তি হ্রাস

চিনি শুধু দাঁতের ক্ষয় করে না, মস্তিষ্কেরও মারাত্মক ক্ষতি করে। গবেষণায় দেখা গেছে, বেশি মাত্রায় চিনি খেলে মস্তিষ্কের কগনিটিভ ফাংশন কমতে শুরু করে। পাশাপাশি স্মৃতিশক্তিও হ্রাস পায়। সে কারণে চিনি খাওয়া কমানো উচিত।

ত্বকে বলিরেখা ওঠে

বেশি মাত্রায় চিনি খাওয়া শুরু করলে রক্তেও চিনির মাত্রা বাড়তে শুরু করে। ফলে ‘গ্লাইকেশন’ নামের এক ধরনের প্রতিক্রিয়া শুরু হয়, যার প্রভাবে ত্বকে বলিরেখা ফুটে উঠতে শুরু করে। সেই সঙ্গে স্কিনের ঔজ্জ্বল্যও হ্রাস পায়।

এনার্জির ঘাটতি

চিনি খাওয়ার কারণে শারীরিক ক্ষমতা কমে যায়। ফলে এনার্জির ঘাটতি দেখা দেয়। তাই চিনি খাওয়া ছেড়ে দিলে এনার্জির ঘাটতিও দূর হতে শুরু করে। ফলে ক্লান্তি ভাব দূরে পালাতে সময় লাগে না।

হার্টের ক্ষতি

যারা বেশি মাত্রায় চিনি বা মিষ্টিজাতীয় খাবার খায়, তাদের হার্টের রোগে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা কয়েক গুণ বেড়ে যায়। তাই যতটা সম্ভব কম চিনি খাওয়া উচিত। চিকিৎসকদের মতে, দিনে ছয়-সাত চামচ চিনি খাওয়া শরীরের পক্ষে ক্ষতিকর নয়।

-- হিন্দুস্তান টাইমস অবলম্বনে ইমরোজ বিন মশিউর



মন্তব্য