kalerkantho


হৃৎপিণ্ড সুস্থ রাখতে কী খাবেন?

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৩ মার্চ, ২০১৮ ০৮:১৪



হৃৎপিণ্ড সুস্থ রাখতে কী খাবেন?

ছবি অনলাইন

হৃদরোগ থেকে বাঁচার জন্য স্বাস্থ্যসম্মত খাবার খাওয়া ও শারীরিক অনুশীলন প্রয়োজন। এ ধরনের কয়েকটি খাবার নিয়েই আজকের টিপস। বার্লি ওট ও বার্লির মতো খাবারে আছে বিটা-গ্লুকেন। গবেষণায় দেখা গেছে, এসব খাবার কোলেস্টেরল নিয়ন্ত্রণে ভূমিকা রাখে।

তৈলাক্ত মাছ

মাছের তেল হৃৎপিণ্ডের জন্য খুবই উপকারী। বিশেষ করে যেসব মাছে ওমেগা-৩ ফ্যাটি এসিড আছে, সেগুলো খুব উপকারে আসে।

শাক

হৃিপণ্ডের জন্য সালাদ ও প্রচুর সবুজ শাকসবজি খেতে হবে। পালংশাক, সরিষাশাক, বাঁধাকপি ও ফুলকপিতে আছে প্রচুর ভিটামিন, মিনারেল ও অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট। এগুলো হৃত্স্পন্দন ঠিক রাখে এবং রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ করে।

বাদাম ও বীজ

বাদামে আছে প্রোটিন ফাইবার, যা হৃদরোগ প্রতিরোধে বেশ কার্যকর। এতে আছে ভিটামিন-ই, যা ক্ষতিকর কোলেস্টেরল কমাতে সহায়তা করে। বাজারে বিভিন্ন ধরনের বাদাম পাওয়া যায়। এর মধ্যে আখরোট বাদাম, কাজুবাদাম, তিসি বীজ সবচেয়ে ভালো।

বিট

প্রচুর উপকারী নাইট্রিক অক্সাইড থাকায় বিট রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে কার্যকর ভূমিকা রাখে। বিট সালাদ হিসেবে কিংবা জুস করে খাওয়া যায়।

অলিভ অয়েল

অলিভ অয়েলে আছে মনোস্যাচুরেটেড ফ্যাটি এসিড। এটি রক্তচাপ কমাতে ও হৃদরোগ থেকে দূরে থাকতে সহায়তা করে। তবে এটি অল্প তাপমাত্রায় রান্না করতে হবে। খুব বেশি তাপে এর গুণাগুণ নষ্ট হয়ে যায়।

ডাল ও শিমজাতীয় খাবার

মসুর ডাল, ছোলা এবং সব ধরনের শিমে প্রচুর পরিমাণে দ্রবণীয় আঁশ থাকে। এটি রক্তের কোলেস্টেরল ও ট্রাইগ্লিসেরাইডের মাত্রা কমিয়ে হৃদরোগের ঝুঁকি কমায়।

কম ফ্যাটের দুগ্ধপণ্য

দুধ, পনির ও দইয়ের মতো দুগ্ধজাত পণ্যেরও রক্তচাপ কমানোর গুণ আছে। গবেষকরা বলছেন, দীর্ঘদিন নিয়মিত দই খেলে হৃদরোগের আশঙ্কা ২০ শতাংশ কমে যায়।

লবণ নয়

লবণ হৃদরোগের ঝুঁকি বাড়িয়ে দেয়। তাই রান্নায় লবণ কম করে ব্যবহার করতে হবে। বাড়তি লবণ ব্যবহার করে এমন খাবার এড়িয়ে চলতে হবে।

সিএনএন অবলম্বনে ওমর শরীফ পল্লব

 


মন্তব্য