kalerkantho


পরীক্ষায় চাপমুক্ত হতে...

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১ মার্চ, ২০১৮ ০৯:৩৮



পরীক্ষায় চাপমুক্ত হতে...

ছবি অনলাইন

পরীক্ষার আগে বেশির ভাগ শিক্ষার্থী প্রচণ্ড মানসিক চাপের মধ্যে থাকে। এতে তাদের খাওয়া, ঘুমসহ দৈনন্দিন কর্মকাণ্ডে অনিয়ম এসে যায়। ফলে স্মৃতিশক্তির ক্ষতি হয়। সে জন্য পরীক্ষায় চাপমুক্ত হতে কিছু বিষয় মেনে চলা উচিত। যেমন—

নিয়মিত ঘুম

অনেকের কাছে পরীক্ষা মানেই নির্ঘুম রাত। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এতে স্মৃতিশক্তি দুর্বল হয়ে যায়। সঠিকভাবে না ঘুমালে স্মৃতিগুলো মস্তিষ্কে এক রকম অগোছালো অবস্থায় থাকে। ফলে সঠিক সময়ে সেগুলো মনে করা কঠিন হয়ে পড়ে। এ কারণে পড়াশোনার পাশাপাশি স্মৃতিশক্তি তুখোড় রাখতে সাত থেকে আট ঘণ্টা ঘুমানোর প্রয়োজন আছে।

শারীরিক অনুশীলন

অলস শরীরে স্মৃতিশক্তি খুব একটা কার্যকর থাকে না। তবে নিয়মিত কিছু শারীরিক অনুশীলন করলে মস্তিষ্ক সক্রিয় হয়ে ওঠে। এতে স্মৃতিশক্তি বেড়ে যায়। তাই প্রতিদিন অন্তত আধাঘণ্টা সময় অ্যারোবিক এক্সারসাইজ করা উচিত।

ভালো খাবার

ভালো খাবার বলতে দামি খাবার নয় বরং পুষ্টিকর ও স্বাস্থ্যকর খাবারের কথা বলা হচ্ছে। শাক-সবজি, ফলমূল, দানাদার ও খোসাযুক্ত খাবার, দুগ্ধজাত খাবার, মাছ এবং পোল্ট্রি জাতীয় খাবার খেতে হবে। এগুলো শিক্ষার্থীদের পুষ্টির চাহিদা মেটাবে। পাশাপাশি অস্বাস্থ্যকর খাবার খাওয়া বাদ দিতে হবে।

শব্দভাণ্ডার বৃদ্ধি

যেকোনো বিষয় ভালোভাবে শেখার জন্য শব্দভাণ্ডার বাড়ানো প্রয়োজন। এটি মস্তিষ্কের খুব ভালো ব্যায়াম।

লেখার অভ্যাস

রিডিং পড়ার চেয়ে লিখে রাখলে তা স্মৃতিতে ধারণ করা সহজ হয়। যে বিষয়গুলো স্মৃতিতে রাখা প্রয়োজন, সেগুলো লিখে ফেলার অভ্যাস করা ভালো। লেখার সময় মস্তিষ্কে অক্সিজেনসমৃদ্ধ রক্তপ্রবাহের পরিমাণ বাড়ে। সে জন্য পড়াগুলো পুরোটা না হলেও অন্তত পয়েন্টগুলো বারবার লিখে অনুশীলন করা উচিত।

সারা বছরের প্রস্তুতি

পরীক্ষার আগে হঠাৎ করে পড়াশোনা শুরু করলে বাড়তি চাপ তৈরি হয়। সে কারণে সারা বছর ধরে প্রস্তুতি নিলে পরীক্ষার আগে বাড়তি চাপ পড়ে না।

--ওয়েবসাইট অবলম্বনে ওমর শরীফ পল্লব



মন্তব্য