kalerkantho


ভেজালদের ভিড়ে খাঁটি মানুষদেরকে চেনার আট উপায়

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ১২:৫৮



ভেজালদের ভিড়ে খাঁটি মানুষদেরকে চেনার আট উপায়

খাঁটি মানুষদেরকে ভেজাল মানুষদের থেকে আলাদা করে শনাক্ত করাটা একটু কঠিনই বটে। আজকাল প্রত্যেকেই সাফল্যের সিঁড়ি বেয়ে দ্রুত ওপরে উঠতে চান।

কিন্তু কেউ তাদের নিজেদের উদ্দেশ্য হাসিলের জন্য আপনাকে টেনে নামাচ্ছে কিনা তা জানাটা প্রায়ই কঠিন হয়ে পড়ে। এমন কিছু লোক আছে যারা হয়তো সব সময়ই আপনার সঙ্গে ভালো আচরণ করবে। কিন্তু আসলেই কি তারা হৃদয়ে ভালো মানুষ? আবার এমন অনেকে আছেন যাদের সঙ্গে কথা বলাটাও কঠিন হয়ে পড়ে। কিন্তু তার মানে কি এই যে তারা ভালো মানুষ না? বাহ্যিক চেহারা অনেক সময় হয় প্রতরণামূলক। সুতরাং এখানে এমন কিছু পদ্ধতি বলা হলো যাতে আপনি ভেজালদের ভিড়ে খাঁটি মানুষেদের চিনে নিতে পারেন।

১. উর্ধ্বতনদের চাটুকারিতা
ভেজাল লোকরা বেছে বেছে কথা বলেন। এরা সাধারণত তাদের প্রতিই মনোযোগী হন যারা তাদের কোনো উপকারে আসতে পারে। এরা সাধারণত তাদের নিচের পদের লোকদের সঙ্গে কথা বলেন না। সুতরাং আপনি যদি কাউকে সব সময়ই উচ্চপদস্থদের চাটুকারিতা করতে দেখেন তাহলে বুঝবেন তিনি আসলে ভেজাল লোক।

অন্যদিকে, খাঁটি লোকরা ছোট-বড় সবার সাথে হাঁসিমুখে কথা বলেন। আপনি প্রমোশন প্রত্যাশী হন আর সম্প্রতি চাকরি হারা হন তিনি আপনার সঙ্গে হাসি মুখেই কথা বলবেন। আপনার অবস্থান যাই হোক না কেন।

২. অপরকে তোষামোদ
ভুয়ো লোকরা সব সময়ই তাদের স্বার্থের জন্য লোকদেরকে তোষামোদ করে চলেন। তারা ভাবেন তাদের নিজেদেরকে অপর সকলের কাছেই ভালো হিসেবে উপস্থাপন করতে হবে। এবং আপনাকেও সন্তুষ্ট করার জন্য যারপরনাই চেষ্টা করবে।

অন্যদিকে, খাঁটি লোকরা এভাবে কাউকে খুশি করার জন্য বাড়তি চেষ্টা করবে না। আপনাকে সন্তুষ্ট করার ক্ষেত্রে একটা সীমা মেনে চলবে। এর মানে এই নয় এরা আপনাকে গোনায় ধরেন না। বরং তারা আসলে আপনার কাছ থেকে কোনো স্বার্থোদ্ধার করতে চায় না বলেই নিজের সীমা অতিক্রম করেন না।

৩. মনোযোগ প্রত্যাশা
আপনি হয়তো এমন অনেককে দেখবেন যারা সব সময়ই অন্যদের মনোযোগের কেন্দ্রে থাকতে চায়। এর কারণ হলো তাদের মধ্যে আসলে নিজেকে অহেতুকই গুরুত্বপূর্ণ ভাবার প্রবণতা কাজ করে। এরা সব সময় নিজের দিকটাই প্রতিনিয়ত তুলে ধরতে চায়।

অন্যদিকে, খাঁটি লোকরা অন্যদের মনোযোগ আকর্ষণ নিয়ে অতটা মাধা ঘামান না। এরা সব সময়ই ভালোবাসা থেকে কোনো কাজ করেন। এবং একটি স্থান থাকার বিষয়টিকে সম্মান করেন।

৪. হামবড়ামি
ভেজাল লোকরা সব সময় হামবড়ামি করে। এরা সবসময় নিজেরা কী করেছে এবং করছে তা নিয়েই বলতে থাকে। এরা তিলকে তাল বানিয়ে উপস্থাপন করে এবং কোনো অগুরুত্বপূর্ণ কাজেও নিজের ভুমিকা নিয়ে গর্ব করে। এমনকি নিজের মহিমা প্রচারের জন্য বানোয়াট ও মিথ্যা কথা বলতেও দ্বিধা করেন না এরা।

অন্যদিকে, খাঁটি লোকরা হন বিনয়ী। এরা যদি নোবেল পুরস্কারও পান তাও আপনি একদিন আগেও টের পাবেন না। কারণ এরা অন্যদের প্রশংসার আগেই নিজেকে নিয়ে সন্তুষ্ট থাকেন। এরা কারো সঙ্গে নিজের ব্যাপারে বড়াই করতে পছন্দ করেন না।

৫. পেছন থেকে ছুরি মারা
ভেজাল লোকরা দুমুখো সাপের মতো। এরা আপনার সামনে এক কথা বলবে আবার পেছনে গিয়ে আরেক কথা বলবে। এরা গুজব ছড়াতে পছন্দ করে। এরা কখনোই সৎ মতামত দিবে না। এবং আপনার সামনে খারাপ কথা বলবে না।

অন্যদিকে, খাঁটি লোকরা যত কঠোরই হোক না কেন সবসময় সৎভাবে মতামত প্রকাশ করেন। আপনি কোনো কিছু শুনতে চান শুধু এ কারণেই তারা কখনো কিছু বলবেন না। এরা সবসময় সোজা-সাপ্টা কথা বলেন এবং সত্য ও যা বলা দরকার তাই বলেন।

৬. কথা ও কাজে মিল না থাকা
ভেজাল লোকরা শুধু কথা বলেন বেশি। কিন্তু কোনো কাজ করেন না। এদের প্রতিশ্রুতিগুলো হয় শুন্য। আর খুব কমই কথা মতো কাজ করেন। নিজের স্বার্থের পক্ষে থাকলেই এরা কথা ও কাজে মিল রাখেন।

অন্যদিকে, খাঁটি লোকরা কঠোর পরিশ্রম করেন এবং কথা মতো কাজ করেন। ফলে তাদের অবিশ্বাস করার কোনো কারণ নেই। এরা প্রতিশ্রুতি পালন করেন।

৭. দুর্বলতা প্রকাশ করেন না
ভেজাল লোকরা কখনো নিজেদের দুর্বলতা প্রকাশ করেন না। তারা লোককে জানাতে চান না যে তাদেরও কোনো দুর্বলতা আছে।

অন্যদিকে, খাঁটি লোকরা তাদের দুর্বলতাগুলোও কখনো লুকিয়ে রাখেন না। এই দুনিয়াটা খুবই কর্কশ একটা জায়গা। আর আমরা কোনো না কোনো আঘাত পেতেই পারি। নিজেদের খুঁত প্রকাশ হলে এরা ঘাবড়ে যান না।

৮. অন্যের দোষ খুঁজে বেড়ায়
ভুয়ো লোকরা সহজেই আপনার বাহ্যিক অবয়ব দেখেই আপনার ব্যাপারে মূল্যায়ন করবে। এরা সব সময়ই আপনার দোষগুলো নিয়ে কথা বলবে এবং আপনাকে শুধু নিজেকে বদলাতে বলবে। এরা কখনোই আপনাকে নিজের ব্যাপারে স্বাধীনভাবে মূল্যায়ন করতে দিবে না।

অন্যদিকে, খাঁটি লোকরা আপনি যেমন আছেন সেভাবেই আপনাকে সম্মান করবে। যদি নৈতিকভাবে কোনো ভুল না করেন আপনি। তারা সকলকেই তাদের নিজের মতো থাকতে দেওয়ার গুরুত্বটা বোঝে। এরা আপনাকে আপনার নিজের অনন্য অভিজ্ঞতা উপভোগ করতে দিবে কোনো বাহ্যিক মূল্যায়ন ছাড়াই।
সূত্র : টাইমস অফ ইন্ডিয়া


মন্তব্য