kalerkantho


রাগ প্রকাশ জরুরি যে কারণে

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ১১:২১



রাগ প্রকাশ জরুরি যে কারণে

আমাদেরকে প্রায়ই বলা হয় রাগ প্রকাশ না করাই ভালো। রাগ অবদমন করার জন্য আমাদেরকে বুকে পাথর বেঁধে রাখতে বলা হয়।

কিন্তু আসলেই কি তাই? রাগ কী এমন কোনো আবেগ  যা অবদমন করাই ভালো? হয়তো না। মনোবিজ্ঞানীরা বলেন, রাগ প্রকাশের অনেক উপকারীতা আছে। রাগ প্রকাশ করে ফেললে এর পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া স্বরুপ অতিভোজন বা মনের ভেতরে অসন্তোষ দানা বাধার হাত থেকে রেহাই পাবেন আপনি।

রাগ প্রকাশ করে ফেললে আপনি অনিশ্চয়তা থেকে মুক্তি পাবেন এবং আরো আগ্রাসী কোনো পরিস্থিতি এড়িয়ে চলতে পারবেন। কিন্তু রাগ অবদমন করলে আপনার মধ্যে আরো ক্ষতিকর কোনো আগ্রাসী পরিস্থিতি জন্ম নিতে পারে যা পরে নিয়ন্ত্রণ করা অসম্ভব হয়ে উঠতে পারে। মনোবিজ্ঞানীদের মতে ৭টি কারণে কখনোই রাগ অবদমন না করা ঠিক নয় বলে মনে করেন।

১. এতে নিজের ভুলগুলো ধরা পড়ে
রাগ ঝেড়ে ফেলার পর আমাদের মন শান্ত হয়ে আসে এবং আমরা নিজেদের কর্মকাণ্ডের পর্যালোচনা করার সুযোগ পাই। যুক্তরাষ্ট্র ও রাশিয়ায় পরিচালিত একটি গবেষণায় দেখা গেছে, যারা তাদের রাগ অবদমন না করে প্রকাশ করে ফেলেন তারা পরে তাদের নিজেদের ভুলগুলো অনুধাবন করতে পারেন।

২. রাগ প্রকাশ অনুপ্রেরণা যোগায়
রাগ সবচেয়ে কার্যকর চালিকাশক্তিগুলোর একটি।

ফলে রাগ আপনাকে আপনি যা চান তা অর্জনে সহায়তা করতে পারে। অথবা এর মাধ্যমে অন্যকেও আপনি কোনো কিছু হাসিলের জন্য চালিত করতে পারেন। আপনি যদি কোনো কিছু অর্জনে অক্ষম হওয়ার কারণে নিজের প্রতি রাগান্বিত হন তাহলে আপনার রাগ আপনাকে সেই জিনিসটি অর্জনে চালিত করতে পারে। একইভাবে আপনি কারো ওপর রাগ করে তাদেরকে দিয়ে আপনি যা করাতে চান তা করাতে পারেন। তবে রাগকে অবশ্যই ইতিবাচক কিছু অর্জনে ব্যবহার করতে হবে। এবং স্বার্থপরতা ত্যাগ করতে হবে।

৩. রাগ প্রকাশ সহিংসতা প্রতিরোধ করে
যদিও রাগ এবং সহিংসতা পরস্পরের সঙ্গে যুক্ত তথাপি সময় মতো রাগ প্রকাশ করলে সহিংসতা ঘটা বন্ধ করা যেতে পারে। সহিংসতা হলো রাগের আরো চরম বা অবদমিত রুপ যা প্রকাশ করা হয়নি। এছাড়া আপনি যদি রাগ প্রকাশ করেন তাহলে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আরো ভালো সুযোগ তৈরি হবে। কেননা অন্যরা আপনাকে তখন সহায়তা করবে।

৪. রাগ প্রকাশ অসন্তোষ দূর করে
আপনি যদি রাগ প্রকাশ করেন তাহলে আপনার ভেতরে জমে থাকা হতাশা বের হয়ে যাবে। আর আপনি যদি রাগ প্রকাশ না করে জমিয়ে রাখেন তাহলে তা পরে আপনার ভেতের তীব্র অসন্তোষ সৃষ্টি করতে পারে। কোনো ব্যক্তির কোনো অভ্যাস যদি আপানাকে বিরক্ত করে এবং আপনি তাকে সেটা না বলেন তাহলে সেই ব্যক্তির প্রতি আপনার ভেতরে তীব্র অসন্তোষ তৈরি হবে।

৫. রাগ প্রকাশ আপনাকে ইতিবাচক করে তুলতে পারে
আপনি যদি সময় মতো রাগ প্রকাশ করেন এবং সবাইকে আপনার পছন্দ অপছন্দ সম্পর্কে জানিয়ে দেন তাহলে আপনার মন এবং আপনি সহজ-স্বাভাবিক থাকতে পারবেন। এতে আপনার মধ্যে আশাবাদ বাড়বে।   যুক্তরাষ্ট্রে পরিচালিত একটি গবেষণায়ও এমনটাই প্রমাণিত হয়েছে। এতে দেখা গেছে, যারা বেশি বেশি রাগান্বিত হন তারা যারা রাগের চেয়ে বরং ভয়ে আক্রান্ত থাকেন বেশি তাদের তুলনায় অনেক বেশি ইতিবাচক মনোভাবের অধিকারী।

৬. রাগ প্রকাশ সম্পর্ক টিকিয়ে রাখতে পারে
অনেক সময় আমরা রাগ প্রকাশ থেকে বিরত থাকি এই ভেবে যে এতে হয়তো অপর ব্যক্তিটি পরিস্থিতি সম্পর্কে খারাপ অনুভব করতে পারেন। কিন্তু আত্ম-উৎসর্গ উপকারের চেয়ে বরং ক্ষতিই বেশি করে। অবদমিত রাগ থেকে তৈরি বিরক্তি। আর বিরক্তি থেকে তৈরি হয় তিক্ততা। ফলে অল্প সময়ের মধ্যেই আপনি আপনার সঙ্গী বা সঙ্গীনির সাথে তিক্ত আচরণ করতে শুরু করবেন। আর এর ফলে কোনো সমাধান খুঁজে পাওয়াটাও কঠিন হবে।

৭. রাগ প্রকাশ স্বাস্থ্যকর
রাগ পুষে না রেখে প্রকাশ করে দেওয়টা দেহের জন্য একটি ইতিবাচক প্রক্রিয়া। এতে আপনি নানা ধরনের স্বাস্থ্য সমস্যা থেকে মুক্ত থাকতে পারবেন। রাগ আপনার দেহের জন্য একটি টক্সিন বা বিষ। ফলে এটি বের করে দিলেই আপনার স্বাস্থ্য ভালো থাকবে। হজম, হৃদপিণ্ড, মাথাব্যথা এবং ত্বক সংশ্লিষ্ট অনেক সমস্যাই দূর হয়ে যায় রাগ প্রকাশ করলে।

সূত্র: টাইমস অফ ইন্ডিয়া


মন্তব্য