kalerkantho


বিশ্বের সবচেয়ে স্মার্ট পানির বোতল

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৯ আগস্ট, ২০১৭ ১৩:২৩



বিশ্বের সবচেয়ে স্মার্ট পানির বোতল

ধরুন আপনি জঙ্গলে ভ্রমণে গিয়ে হারিয়ে গেলেন। এবং আপনার সঙ্গে থাকা খাওয়ার পানি শেষ হয়ে গেল।

এরপর আপনি রাস্তা খুঁজে পেলেন ঠিকই কিন্তু তেষ্টায় আপনার গলা শুকিয়ে গেছে এবং আপনি পানিশুন্য হয়ে পড়ার ভয়ে উদ্বিগ্ন হয়ে পড়লেন। সামনেই হয়তো কোনো জলাধার বা নদী বা ঝর্ণা দেখতে পেলেন। কিন্তু ওই পানি কি পান করার জন্য নিরাপদ বা বিশুদ্ধ?

অথবা তীব্র গরম পড়ছে এমন কোনো একটি দিনে আপনি অপরিচিত শহরের রাস্তা ধরে হাঁটছেন। আপনি কি সেই শহরের পাবলিক পানির ঝর্ণাগুলোকে বিশ্বাস করতে পারেন?

এসব প্রশ্নের উত্তর দিতেই এসেছে একটি পানির বোতল। এমনকি দরকার পড়লে পানি বিশুদ্ধ করনের কাজও করবে বোতলটি। বোতলটির দাম ২০০ মার্কিন ডলার বা ১৬ হাজার টাকার একটু বেশি।

বোতলটি বানিয়েছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের Ecomo নামের একটি কম্পানি। কম্পানিটির সিইও এরিক লি বলেন, ‘পানির অপর নাম জীবন। কিন্তু এখন পানি দূষণ একটি বড় সমস্যা হয়ে দেখা দিয়েছে।

আর এই দুশ্চিন্তা তেকে মুক্তি দিতেই আমাদের এই উদ্ভাবন। ’

স্টেইনলেস স্টিলের তৈরি এই বোতল পানিতে কোনো দূষণ আছে কিনা তা পরীক্ষা করে দেখবে। এবং দরকার হলে পানিকে দ্রুত দূষণমুক্ত করবে।

এর আগে CamelBak নামের একটি কম্পানি ৯৯ ডলার দামে অল ক্লিয়ার নামের এমন আরেকটি বোতল বানিয়েছিল। ওই বোতলটি ৬০ মাত্র সেকেন্ডে পানি বিশুদ্ধ করতে পারত।

কিন্তু Ecomo-র এই বোতলে মাত্র ৫ সেকেন্ডেই পানি বিশুদ্ধ হবে। প্রায় দুই বছর ধরে গবেষণার পর বোতলটি বানানো সম্ভব হয়েছে। তবে ব্যবহারকারীদের জন্য এটি খবু কম সময়েই কাজ করবে। পানি ভরো, ঝাঁকাও, টুইস্ট কর এরপর পান কর।

টেপ, পুকুর এবং এমনকি টয়লেটের টেপ থেকেও পানি সংগ্র্রহ করে বিশুদ্ধ করে খাওয়া যাবে এই বোতল দিয়ে। এই বোতল ব্যবহার করে পানি বিশুদ্ধ করলে পানি থেকে ক্ষতিকর ব্যাকটেরিয়া, কীটনাশক জাতীয় রাসায়নিক, পেট্রোলিয়ামজাতীয় পদার্থ এবং ভারী ধাতব পদার্থ ৯৯.৯৯ ভাগ দূর হবে। বোতলটিতে পানি ভরার পরপরই তা দূষিত হলে লাল বা হলুদ বাতি জ্বলে উঠবে।

বোতলটি ব্যাটারিতে চলবে। একবার ১ ঘন্টা চার্জ দিলে একসপ্তাহ পর্যন্ত চার্জ থাকবে। আর প্রতি ২ থেকে তিন মাস পরপর ১০ ডলারে ফিল্টার বদলানো যাবে।

বোতলটিতে একটি অ্যাপ থাকবে যা কখন ফিল্টার বদলাতে হবে তা বলে দিবে। আর এতে আরো থাকবে একটি ব্লুটুথ রিস্টব্যান্ড যা তাপমাত্রা মাপা সহ ব্যবহারকারীর দৈনিক তৎপরতার হিসেবে রাখবে যাতে তাদের কতটুকু পানি দরকার তা পরিমাপ করা যায়।

বোতলটির ওজন ১৩ আউন্স। এতে পানি ১২ ঘন্টা ধরে গরম থাকবে আর ২৪ ঘন্টা ধরে ঠাণ্ডা থাকবে। এতে শুধু ২০ আউন্স পানিই রাখা যায়। অন্য কোনো তরল ভরলে বোতলটি নষ্ট হয়ে যাবে।

চলতি বছরের শেষ দিকে বোতলটি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে বাজারে ছাড়া হবে।

বর্তমানে ক্রাউডফান্ডিং ওয়েবসাইট IndieGoGo-তে বোতলটি কেনার জন্য আগাম অর্ডার করা যাচ্ছে। যেখানে এর দাম কমিয়ে ১৩৯ ডলার ধরা হয়েছে। ওই সাইটটির মাধ্যমে ক্রাউডফান্ডিং করে Ecomo বোতলটির জন্য ৬ লাখ ডলার সংগ্রহ করেছিল।

খুচরা দোকানে বোতলটির দাম রাখা হবে ২২০ ডলার।

ইকোমো ক্রাউডিসোর্সিংয়ের মাধ্যমে যুক্তরাষ্ট্রসহ বিশ্বব্যাপী পানির গুনগত মান সম্পর্কিত তথ্য-উপাত্ত সংগ্রহ করবে।

মানবদেহের ৬০ শতাংশই পানি। আর তা যদি বিশুদ্ধ না হয় তাহলে তো বিপদেরই কথা।

সূত্র: ফক্স নিউজ


মন্তব্য