kalerkantho


শীতাতপ যন্ত্রের ভালো-মন্দ

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৬ আগস্ট, ২০১৭ ১০:২৩



শীতাতপ যন্ত্রের ভালো-মন্দ

ইন্টারন্যাশনাল জার্নাল অব এপিডেমিওলজি সাময়িকীর এক গবেষণাপত্রে বলা হয়েছে, কর্মীদের মধ্যে ধীরে ধীরে 'সিক-বিল্ডিং সিনড্রোম' (এসবিএস) গড়ে তোলার পেছনে অফিসের শীতাতপ নিয়ন্ত্রণ যন্ত্রের বেশ প্রভাব রয়েছে। বিশেষ করে অফিসের সেন্ট্রাল এয়ার কন্ডিশনিং ব্যবস্থা স্বাস্থ্যের জন্য হুমকি হয়ে ওঠে, যদি তা পরিকল্পিতভাবে না বসানো হয়।

আবার এর ইতিবাচক দিকও আছে।

শীতল পরিবেশের প্রভাব
দীর্ঘদিন ধরে এমন পরিবেশে কাজ করলে দেহের সংযোগস্থল ও পেশিতে ব্যথা সৃষ্টি হয়। কোমরসহ অন্যান্য অঙ্গে জড়তা ভাব চলে আসে। অনেক সময় গলা ও পিঠের জড় অবস্থা কিংবা ব্যথা দুটোই ঘটতে পারে। অনেক বিশেষজ্ঞের মতে, কর্মরত অবস্থায় রিউমাটিজম, আর্থ্রাইটিস কিংবা ক্রনিক জয়েন্ট ব্যথা সৃষ্টি হলে এসিকে দায়ী করা যেতে পারে। নারীর ক্ষেত্রে এসবিএস আরো বেশি ভয়ানক হয়ে উঠতে পারে।

শ্বাস-প্রশ্বাসে কষ্ট
রেসপাইরেটরি মেডিসিন বিশেষজ্ঞরা বলেন, এসির পরিবেশে কোনো সংক্রামক ব্যাধি ছড়িয়ে পড়ার আশঙ্কা অনেক বেশি। ব্যাকটেরিয়া, ভাইরাস, অ্যালার্জি সৃষ্টিকারী রেণু, ধুলাবালি ইত্যাদি ধারণ ও ছড়ানোর ক্ষেত্রে শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত কক্ষ 'আদর্শ' স্থান।

শুষ্কতা
দিনের বড় একটা সময় শীতল পরিবেশে থাকলে ত্বক ও চোখে শুষ্কতা দেখা দেয়।

বিশেষ করে চোখে কন্টাক্ট লেন্স ব্যবহারকারীরা মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারেন। এসির পরিবেশে কাজ করলে ঘন ঘন বাইরে গিয়ে প্রাকৃতিক পরিবেশের সঙ্গে খাপ খাইয়ে নিতে হবে।

টাইমস অব ইন্ডিয়া অবলম্বনে সাকিব সিকান্দার


মন্তব্য