kalerkantho


ত্বক এবং চুল দুটোর জন্যই কার্যকর প্রাকৃতিক দাওয়াই

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৫ আগস্ট, ২০১৭ ১৪:৩২



ত্বক এবং চুল দুটোর জন্যই কার্যকর প্রাকৃতিক দাওয়াই

ত্বক এবং চুলের যত্নেই আমরা আমাদের সৌন্দর্যচর্চার জন্য বরাদ্দ সময়টুকুর বেশিরভাগ ব্যয় করি। এই দুটোকে আমরা সবসময়ই নিখুঁত দেখাতে চাই।

ফলে আমরা প্রচুর সময় ব্যয় করি। কিন্তু একই সঙ্গে এই দুটোর জন্যই উপকারী কোনো ওষুধ পেলে হয়তো আমাদের সময়ের অপচয় হতনা। তাহলে আসুন জেনে নেওয়া যাক একই সঙ্গে এই দুটোর জন্য উপকারী প্রাকৃতিক উপাদানগুলো সম্পর্কে।

১. নারকেল তেল
এটি আমাদের চুল এবং ত্বক এই দুটোর জন্যই গভীর পুষ্টি উপাদান সরবরাহ করে। একই সঙ্গে ভাইরাস, ব্যাকটেরিয়া এবং ছত্রাক নাশক হিসেবে কাজ করে।

চুলের জন্য নারকেল তেল ও অ্যাভোকাডো মাস্ক:
শুষ্ক ও উস্কোখুস্কো চুলতে কোমল ও চকচকে করতে কার্যকর।

উপদান
আধাকাপ নারকেল তেল ও একটি পাকা অ্যাভোকাডো।

পদ্ধতি
অ্যাভোকাডোটি কেটে ভেতর থেকে মজ্জা বের করে নিন। এরপর তা পিষে দলাই-মলাই করে নারকেলের সঙ্গে মেশান।

মাস্কটি মাথার চুলে লাগিয়ে ১৫ মিনিট রেখে দিন। এরপর হালকা শ্যাম্পু দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

ত্বকের জন্য নারকেল তেল ও লেবুর জুস:
এই মিশ্রণটি আপনার ত্বকে লাগালে যে কোনো কালো দাগ দূর হবে এবং আপনার ত্বককে আর্দ্র করবে।

উপাদান
১ চা চামচ নারকেল তেল, আধা চামচ তাজা লেবুর রস।

পদ্ধতি
বাটিতে নিয়ে দুটো উপাদান ভালোভাবে মেশান। রাতে ঘুমানোর আগে মুখে লাগান। সকালে ঘুম থেকে ওঠার পর ধুয়ে ফেলুন।

২. অলিভ অয়েল
এটি চুলপড়া কমায় এবং চুরের গ্রন্থি বা কোষগুলোকে শক্ত করে। আর এর বয়সরোধী উপাদান ত্বকের তারুণ্য ধরে রাখে।

চুলের জন্য অলিভ অয়েল এবং ডিমের মাস্ক:
চুলপড়া কমায় এবং নতুন চুল গজাতে সহায়তা করে।

উপাদান
আধা কাপ অলিভ অয়েল, ১ টেবিল চামচ মধু, ১টি ডিম

পদ্ধতি
একটি বাটিতে সবগুলো উপদান মেশান। মিশ্রণটি চুলে লাগিয়ে আধা ঘন্টা রেখে দিন। এরপর হালাক শ্যাম্পু দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

ত্বকের জন্য অলিভ অয়েল এবং দইয়ের মাস্ক:
এই ফেস মাস্কটি ত্বকের যে কোনো ধরনের প্রদাহ এবং ব্রণ দূর করবে।

উপাদান
২ চা চামচ অলিভ অয়েল, ১/৩ কাপ দই

পদ্ধতি
একটি বাটিতে সবগুলো উপাদাস মেশান। পরিষ্কার মুখে লাগান এবং ১৫ মিনিট রেখে দিন। এরপর হালাক গরম পনিতে ধুয়ে ফেলুন।

৩. অ্যালোভেরা
ব্রণ এবং ত্বকের রোদে পোড়া দাগ এবং তামাটে ভাব দূর করে। আর মাথার খুশকি দূর করে এবং চুলের জন্য কন্ডিশনার হিসেবে কাজ করে।

চুলের জন্য অ্যালোভেরা এবং লেবুর মাস্ক:
চুলের শুষ্কতা-রুক্ষতা দূর করে এবং মাথার ত্বক পরিষ্কার করে খুশকি প্রতিরোধ করে।

উপাদান
১ পাত অ্যালোভেরা, ১ টেবিল চামচ লেবুর রস

পদ্ধতি
অ্যালোভেরা পাতাটি আড়াআড়িভাবে কেটে ভেতর থেকে মজ্জাটুকু বের করে নিন। এরপর লেবুর রসের সঙ্গে মেশান। মিশ্রণটি চুলে লাগিয়ে আধাঘন্টা রেখে দিন। এরপর হালকা শ্যাম্পু দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

ত্বকের জন্য অ্যালোভেরা এবং গোলাপ পানি:
ত্বকের রোদে পোড়া দাগ এবং তামাটে ভাব দূর করে।

উপাদান
অর্ধেক অ্যালোভেরা পাতা, এক টেবিল চামচ গোলাপ পানি, ১ টেবিল চামচ লেবুর রস

পদ্ধতি
অ্যালোভেরা পাতার ভেতর থেকে মজ্জাটুকু বের করে নিন। এরপর তা গোলাপ পানি ও লেবুর রসের সঙ্গে মেশান। ত্বকের ক্ষতিগ্রস্ত জায়গাগুলোতে লাগান এবং ১৫ মিনিট রেখে দিন। এরপর পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

৪. গ্রিন টি
নতুন চুল গজাতে সহায়ক গ্রিন টি। আর এতে থাকা কেইটচিনস চুলপড়া প্রতিরোধ করে। আর ত্বককে সূর্যের অতিবেগুনি রশ্মি থেকে রক্ষা করে। এছাড়া ত্বকের বুড়িয়ে যাওয়াও ঠেকায়।

চুলের জন্য গ্রিন টি পরিষ্কারকরণ:
গ্রিন টি দিয়ে চুল ধুলে চুল শক্তিশালি হবে এবং চুল পড়া কমবে।

উপাদান
৩-৪টি গ্রিন টি ব্যাগ, ২ গ্লান পানি

পদ্ধতি
পানিটা ফুটিয়ে তাতে টি ব্যাগগুলোকে চুবিয়ে রাখুন ১০মিনিট। এরপর টি ব্যাগগুলো ফেলে দিয়ে চায়ের পানিটুকু ঠাণ্ডা করে নিন। চায়ের পানিটুকু মাথায় লাগিয়ে ১৫ মিনিট রেখে দিন। শ্যাম্পু করে ধুয়ে ফেলুন।

ত্বকের জন্য গ্রিন টি এবং ওটমিল ফেসপ্যাক:
নিয়মিতভাবে ব্যবহার করলে আপনার ত্বক হারানো তারুণ্য ফিরে পাবে এবং ত্বকের জমিন উন্নত হবে।

উপাদান
১ টি গ্রিন টি ব্যাগ, ২ টেবিল চামচ ওটমিল পাউডার

পদ্ধতি
আধা কাপ পানিতে গ্রিন টি বানান। এরপর ওটমিল পাউডার নিয়ে তাতে চা-টুকু মেশান। পুরু পেস্ট তৈরি করুন। পেস্টটি ত্বকে লাগিয়ে ১৫ মিনিট রেখে দিন। এরপর ঠাণ্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

সূত্র: বোল্ড স্কাই


মন্তব্য