kalerkantho


যেসব খাবার ঘুম আনে

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ১০:৪২



যেসব খাবার ঘুম আনে

কিছু খাবার আছে, যা আপনার ঘুম আসতে বিঘ্ন সৃষ্টি করে। এছাড়া কিছু খাবার আছে ঠিক এর বিপরীত কাজটি করে, অর্থাৎ আপনার ঘুম আসতে সহায়তা করে।

আপনার ঘদি ঘুমের সমস্যা থাকে তাহলে এসব খাবার ঘুমের কিছুক্ষণ আগে খেয়ে নিতে পারেন।
১. দুগ্ধজাত সামগ্রী
দুগ্ধজাত বেশ কিছু খাবার ঘুম আনতে সহায়ক। এসব খাবার দেহকে শীথিল করে এবং শরীরকে ঘুমিয়ে পড়তে উৎসাহিত করে। দুধ ও দুগ্ধজাত খাবারে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ক্যালসিয়াম। এ ক্যালসিয়ামই মূল ভূমিকা রাখে।
২. কাজু বাদাম
কাজু বাদামে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ট্রাইপটোফ্যান। এ অ্যামাইনো এসিডটি মেলাটোনিন উৎপাদন করতে সহায়তা করে। মেলাটনিনকে ‘ঘুমের হরমোন’ বলা হয়। এছাড়া কাজু বাদামে রয়েছে প্রচুর ম্যাগনেসিয়াম, যা মাংসপেশির অস্বাভাবিকতা দূর করে এবং ঘুমের জন্য দেহকে প্রস্তুত করে।
৩. কলা
কলা শুধু প্রচুর ভিটামিনসমৃদ্ধ খাবারই নয়, এতে রয়েছে আমাদের দেহে ঘুম আনার উপাদানও। কলার প্রাকৃতিক চিনি, পটাসিয়াম ও ম্যাগনেসিয়াম আমাদের দেহে ট্রাইপটোফ্যান তৈরি করে। এটি মস্তিষ্কে প্রবেশ করে ঘুম আনতে সহায়তা করে।
৪. আখরোট
আখরোটে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ট্রাইপটোফ্যান, যা মেলাটোনিন উৎপাদন করে। বিভিন্ন গবেষণায় দেখা গেছে এ হরমোনটি রক্তে বৃদ্ধি পেলে ঘুমও বৃদ্ধি পায়।
৫. কুমড়ার বীজ
কুমড়ার বীজে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে জিংক, ম্যাগনেসিয়াম ও ট্রাইপটোফ্যান। এগুলো দেহ শীথিল করে এবং ঘুম আনতে সহায়তা করে। যে কারো ঘুমের সমস্যা থাকলে কুমড়ার বীজ ভাজা করে বা অন্য কোনো উপায়ে খেয়ে নিতে পারেন।
৬. ভাত
ভাত খাওয়ার পর অনেকেরই ঘুম চলে আসে। এর কারণ ভাতের কিছু উপাদান রয়েছে, যা ঘুম আনতে সহায়ক। এ কারণে গ্লাইসেমিক্স ইনডেস্ক অনুযায়ী ওপরের দিকে রয়েছে।
৭. তৈলাক্ত মাছ
তৈলাক্ত মাছে রয়েছে এমন কিছু উপাদান, যেগুলো মেলাটোনিন উৎপাদন বৃদ্ধি করে। তৈলাক্ত মাছে রয়েছে কিছু এসিড, যেগুলো রক্ত থেকে স্ট্রেস হরমোন হ্রাস করে। এটি মানসিক চাপ কমায় এবং ঘুম আনতে সহায়তা করে।
--ওয়েবসাইট অবলম্বনে ওমর শরীফ পল্লব


মন্তব্য