kalerkantho


নিরাপদে সাইকেল চালাতে চাইলে...

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ১৩:০৪



নিরাপদে সাইকেল চালাতে চাইলে...

সাইকেল চালানোরও কিছু নিয়ম রয়েছে। এ নিয়মগুলো মেনে চললে আপনি যেমন নিরাপদ থাকতে পারবেন তেমন শরীরও ভালো রাখতে পারবেন। এ লেখায় তুলে ধরা হলো তেমন কিছু নিয়ম। এক প্রতিবেদনে বিষয়টি জানিয়েছে ওইয়ার্ড।

১. সাধারণ থাকুন
আপনার সাইকেল  চালানোর নিরাপত্তার বিষয়টিতে প্রথমেই যে বিষয়ে গুরুত্ব দিতে হবে তা হলো সবকিছু সাধারণ রাখা। অর্থাৎ আপনার সাইকেলের গতি যেমন সাধারণ রাখতে হবে তেমন রাস্তার অন্যান্য যানবাহনের সঙ্গে মিলিয়েই চলতে হবে। একইভাবে আপনার পোশাকও যে বিশেষ ধরনের হতে হবে তা নয়। সাধারণ পোশাকই যথেষ্ট। কোনো ক্ষেত্রেই বাড়তি কিংবা ব্যতিক্রমী কিছু করা ঠিক হবে না।
২. সঠিক নিরাপত্তা সরঞ্জাম
সাইকেল চালানোর সময় সঠিক নিরাপত্তা সরঞ্জাম ব্যবহার করা উচিত সবারই। এমনকি এক ফুট সাইকেল চালাতেও হেলমেট পরা বাদ দেওয়া উচিত নয়।

এছাড়া কনুই গার্ড, হাঁটু গার্ড, জুতা ইত্যাদি বিভিন্ন নিরাপত্তা সরঞ্জাম ব্যবহার করতে পারেন। রাতে অন্য গাড়ি যেন আপনার সাইকেলকে দেখতে পায় সেজন্য সামনে ও পেছনে লাইট ব্যবহার করতে ভুলবেন না। এছাড়া সাইকেলের ব্রেক যেন ঠিক থাকে সেজন্য মনোযোগী হোন। অন্যথায় বড় দুর্ঘটনা ঘটতে পারে।

৩. সঠিক সোল
সাইকেলের প্যাডেল মারার জন্য সঠিক জুতার সোল গুরুত্বপূর্ণ। এ কাজে আপনি যত বেশি উঁচু নিচু সোল ব্যবহার করবেন ততই অসুবিধা হবে। তাই রবারের সোলই এ কাজে আদর্শ। নতুন যারা চালানো শুরু করবেন তাদের জন্য স্যান্ডেল কিংবা স্নিকারই যথেষ্ট। ক্রমে অভিজ্ঞতা বাড়লে আরামদায়ক জুতা পছন্দ করে নেবেন।

৪. হৃৎপিণ্ড সাবধান
জোরে সাইকেল চালানোর সময় হৃৎপিণ্ডে প্রচণ্ড চাপ পড়ে। তাই আপনার যদি হৃদরোগ থেকে থাকে তাহলে চিকিৎসকের পরামর্শ নিয়ে সাবধানে চালাতে হবে। শরীরে হঠাৎ বাড়তি চাপ দেওয়া কিংবা দীর্ঘক্ষণ সাইকেল চালানো উচিত হবে না।

৫. সব কাজের কাজি
আপনার বন্ধুদের হয়ত বহু ধরনের সাইকেল রয়েছে। ডুয়াল সাসপেনশন কিংবা আরও মূল্যবান যন্ত্রপাতিসমৃদ্ধ সাইকেলও রয়েছে। তবে বাস্তবে মানসম্মত সাধারণ সাইকেলই যথেষ্ট। মানসম্মত একটি সাইকেলই আপনার অধিকাংশ চাহিদা মেটাতে পারে।

৬. আনন্দের জন্য চালান
শিশুরা আনন্দের জন্য সাইকেল চালায়। যাতায়াতে, নানা স্থানে ভ্রমণে কিংবা বন্ধুদের সঙ্গে ঘুরে বেড়াতেই এ আনন্দ পাওয়া যায়। যদিও অনেকে এ আনন্দের বদলে ফিটনেসকেই গুরুত্ব দেন। এতে সাইকেল গুরুগম্ভীর বিষয়ে পরিণত হয়। তাই আনন্দকেই গুরুত্ব দিন অন্যান্য বিষয় এমনিতেই চলে আসবে।

৭. মস্তিষ্ক ব্যবহার করুন
শুধু হেলমেট ব্যবহার করলেই হবে না, সাইকেল চালাতে মস্তিষ্কের ব্যবহারও জরুরি। রাস্তার কিছু সাধারণ নিয়ম রয়েছে, সে নিয়মগুলো মেনে চলুন। এছাড়া অতিরিক্ত তাড়াহুড়া করতে গিয়েও নিজের বিপদ ডেকে আনবেন না। মনে রাখবেন, রাস্তায় সর্বদা নিজের জীবন রক্ষা করার দায়িত্ব আপনার নিজের। আপনি সঠিক নিয়ম অনুযায়ী চললেও বিপদে পড়তে পারেন। তাই অন্যরা ভুল করলেও তা মেনে নিন। রাস্তার পরিস্থিতি অত্যন্ত দ্রুত পরিবর্তিত হয়। আর সে ধরনের পরিস্থিতিতে দ্রুত সিদ্ধান্ত নেওয়া অভ্যাস করুন।


মন্তব্য