kalerkantho

শুক্রবার । ৯ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৮ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


৪০ পাউন্ড ওজন কমিয়ে যেভাবে জীবন বাঁচালেন এই নারী

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২১ অক্টোবর, ২০১৬ ১৪:২১



৪০ পাউন্ড ওজন কমিয়ে যেভাবে জীবন বাঁচালেন এই নারী

বড় একটি স্বাস্থ্য বিপর্যয়ের পর জিনেনে দার্দেন বিস্ময়করভাবে তার দেহের ২২% ওজন কমিয়ে ফেলতে সক্ষম হয়েছেন। আসুন দেখে নেওয়া যাক কীভাবে তিনি এটা করলেন।

আগে তার ওজন ছিল ১৮৭ পাউন্ড। পরে তার ওজন হয় ১৪৬ পাউন্ড।

জীবনযাপনের ধরন
নদীতে সাঁতার কাটতে গিয়ে ডুবতে বসেছিলেন জিনেনে দার্দেন। পরে বন্ধুদের সহায়তায় রক্ষা পান। কিন্তু প্রাণে বেঁচে গেলেও তার ফুসফুসের একটি ভাল্বে গুরুতর জখম হয়।

ডাক্তাররা তাকে জানান তার ওপেন হার্ট সার্জারি করাতে হবে। জেনানে এতে ক্ষুব্ধ হন। কারণ তিনি সব সময়ই সুস্থ ছিলেন। কিন্তু বেঁচে থাকতে চাইলে এর কোনো বিকল্প নেই।

দুই দিন বাদেই তার ওপেন হার্ট সার্জারি করা হয়। ফের তিনি জীবন ফিরে পান। কিন্তু দুর্ঘটনায় আঘাতের ফলে তার যে মানসিক ক্ষত সৃষ্টি হয় তা ‍দূর হয়নি।

মানসিক ক্ষত কাটিয়ে ওঠার গতি ছিল খুবই ধীর এবং ভয়ানক সব জটিলতায় পূর্ণ। ফলে আগের মতো আর তিনি ব্যায়াম করতে পারছিলেন না। তিনি খাবারও আগের চেয়ে বেশি পরিমাণে গ্রহণ করছিলেন। এতে তার ৪০ পাউন্ড ওজন বেড়ে যায়।

জেনানে দার্দেন সব সময়ই ক্রীড়ামোদী ছিলেন। ৪২ এবং ৪৫ বছর বয়সেও তিনি স্বাভাবিকভাবেই সন্তান জন্ম দেন।

এমনকি গর্ভবতী অবস্থায়ও জেনানে ছিপছিপে দৈহিক গড়নের অধিকারী ছিলেন। তার স্বামী এলিংটন দার্দেন পিএইচডি ডিগ্রি প্রাপ্ত একজন বিখ্যাত ব্যায়াম গবেষক। তার লিখিত বইয়ের নাম 'দ্য বডি ফ্যাট ব্রেকথ্রো'। দার্দেন দম্পতির ঘরে একটি পরিপূর্ণ ব্যায়ামাগার আছে। কিন্তু জেনানে সেটি ব্যবহার করতে পারছিলেন না।

জেনানে বলেন, আগের মতো ছিপছিপে দৈহিক গড়নের অধিকারী হতে পারব না ভেবে আমি মানসিক অবসাদে আক্রান্ত হয়ে পড়ি। আমি পোশাক ভালোবাসি। কিন্তু আমার পোশাকগুলো আর আমার দেহে ঠিকমতো আঁটছিল না। ফলে আমি নিজেকে ঘৃণা করা শুরু করি।

পরিবর্তন
জেনানে ডায়েটিং শরু করেন। মিষ্টি চা খেয়ে বড় হওয়া জেনানে সবধরনের পানীয় বর্জন করেন। আর শুধু পানি খেয়ে দিন যাপন করতে থাকেন।

শুধু এই একটি খাদ্যাভ্যাস নিয়ন্ত্রণের ফলে অল্প ক'দিনেই জেনানের ওজন কমতে শুরু করে। এরপর তিনি প্রতিবেলায় খাবার গ্রহণের পরিমাণও কমিয়ে আনেন। এবং একটি খাদ্য ডায়েরি রাখতে শুরু করেন।

প্রতিদান
মাত্র ২০ সপ্তাহে জেনানে ৩৭ পাউন্ড ওজন হারান। ফলে তার সামনের দিকে প্রসারিত পেটটিও অদৃশ্য হয়ে যায়। পরে তিনি পুনরায় তার টাইট জিন্সগুলোও পরা শুরু করেন। দার্দেনের মানসিক অবসাদ দূর হয়ে আত্মবিশ্বাসও ফিরে আসে। তিনি বলেন, "আমার আত্মবিশ্বাসও ফিরে এসেছে। বেঁচে থাকতে পেরে আমি নিজেকে অনেক ভাগ্যবানও অনুভব করছি। "

অন্যদের জন্য জেনানের পরামর্শ :
বেশি বেশি পান করুন আর্দ্র থাকুন : জেনানে তার স্বামীর গবেষণা থেকে আর্দ্র থাকার ব্যাপারে 'ফ্যাট বম্ব' কৌশল অবলম্বন করেন। প্রতিদিন এক গ্যালন ঠাণ্ডা পানি পান করতেন বলে জানান জেনানে দার্দেন।

ছোট প্লেট ব্যবহার করুন : জেনানে রাতের খাবার খাওয়ার জন্য তার স্বাভাবিক আকারের প্লেটের জায়গায় আরো ছোট আকারের প্লেট ব্যবহার শুরু করেন। খাবার খাওয়ার পরিমাণ কমিয়ে আনার জন্য তিনি এই কৌশল অবলম্বন করেন।

নেতিবাচক প্রশিক্ষণে মনোযোগ দিন : জেনানের স্বামী নেতিবাচক প্রশিক্ষণের প্রবক্তা। এই কৌশল ব্যবহার করে ব্যায়ামের মাধ্যমে মাংসপেশির ওপর প্রচুর চাপ প্রয়োগ করে ওজন কমানো সম্ভব। এই কৌশলটি অবলম্বন করে তিনি তার ওজন কমানোর গতি দ্রুততর করতে সক্ষম হন।
সূত্র : ফক্স নিউজ


মন্তব্য