kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ৮ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৭ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


মনের মতো বাথরুম পেতে...

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৩ অক্টোবর, ২০১৬ ১৮:৫১



মনের মতো বাথরুম পেতে...

বাড়ির রান্নাঘরটি সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ অংশ বলে বিবেচিত হতো। তাই একে সুন্দর করে তোলার প্রয়াস বহু কাল টিকেছিল।

কিন্তু সেই ধারণা ধীরে ধীরে হালকা হয়ে এসেছে বলেই মনে করে বারবারা স্যালিক। এখন একটা দৃষ্টিনন্দন বাথরুম চান সবাই। আর নিজের বাথরুমকে সেই স্বপ্নের বাথরুমে রূপ দিতে এগিয়ে এসেছেন তিনি। তার নতুন বই 'দ্য পারফেক্ট বাথ' বের হয়েছে এ মাসেই। সেখানে বিলাসী বাথরুম এবং রান্নাঘরের ফিটিংস নিয়ে ১৯৭৮ সাল থেকে তার কাজের কথা তুলে ধরেছেন।

স্যালিকের মতে, রান্নাঘর আসলে পরিবার, সমাজ এবং বন্ধুদের বিষয়। কিন্তু বাথরুম আর অনেক বেশি স্পর্শকাতর বিষয়। বিশেষ করে মাস্টার বাথ ব্যক্তিগত আয়েশ এবং রুচির বিষয়।

বইটিতে সেরা ডিজাইনার এবং ভাস্করদের পরামর্শ তুলে ধরা হয়েছে। এমন একটি বাথরুম বানাতে কি ধরনের উপকরণ লাগবে, এর ছাদ কেমন হবে, রং ও সজ্জা নিয়ে কথা বলা হয়েছে।

একেবারে মনের মতো বাথরুম পেতে স্যালিক দিয়েছে ৫টি কার্যকর টিপস।

১. এমন বাথরুম বানাতে সাবধানে কেনাকাটা করুন। আপনার ব্যক্তিগত রুচি, পরিবারে চাহিদা ও বাড়ির ধরন অনুযায়ী এর ডিজাইন ঠিক করুন। বিক্রেতাদের সঙ্গে কথা বলতে পারেন। তারা এ সম্পর্কে ধারণা রাখে। বাজেট ধরে পণ্য নির্বাচন করুন।

২. যথেষ্ট পরিমাণ আলোর ব্যবস্থা রাখতে হবে। বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই আলোর বিষয়টি মাথায় রাখা হয় না। দেখা যায়, গোসলের স্থানে যথেষ্ট আলো নেই। এ প্রয়োজন মেটাতে বাজারে অনেক ভালো প্রযুক্তির লাইট এসেছে। বাথরুমের আকার অনুযায়ী বেছে নিন। তবে প্রাকৃতিক আলো প্রবেশের ব্যবস্থা থাকলে সে সুবিধা নিন।

৩. টয়লেট্রিজ রাখার জন্য স্টোরের ব্যবস্থা করুন। বাড়তি তোয়ালে, টয়লেট পেপার, গোসলের অনুসঙ্গ, মেকআপ, শেভিংয়ের জিনিসপত্র, পেস্ট বা টুথব্রাশ ইত্যাদি কোথায় রাখবেন তার ব্যবস্থা করতে হবে। বাথরুম সাজানোর আগেই পরিকল্পনায় বিষয়টি মাথায় রাখতে হবে। কি পরিমাণ জিনিস রাখবেন তার ওপর ভিত্তি করে ক্যাবিনেট বা তাকের নকশা করতে হবে।

৪. যাবতীয় নকশা লাগানোর কাজে বিনিয়গো করুন। একজন ভালো ডিজাইনারের সঙ্গে কথা বলে নিন। তিনিই বলতে পারবেন বাথরুমটি কেমন দেখাবে। তিনি যথেষ্ট স্থান বাঁচিয়ে বাথরুমটি সাজিয়ে দিতে পারবেন। মিস্ত্রী ট্যাপ বা অন্যান্য জিনিস লাগানোর পর তা বার বার পরীক্ষা করে দেখুন। এগুলো সোজা এবং শক্তভাবে লাগানো রয়েছে কিনা দেখে নিন।

৫. এমন জিনিসপত্র বেছে নিন যেখাবেন আপনার রুচির ছাপ থাকবে। সেখানে ঢুকলে যেনো আপনি নিমিষেই নিজের পছন্দের দুনিয়ায় প্রবেশ করতে পারেন সে ব্যবস্থাই রাখতে হবে। সুন্দার তোয়ালে, কিছু শিল্পকর্ম, শো-পিস বা ছোট গাছ দিয়ে দৃষ্টিনন্দন করে তোলা যায় বাথরুমকে। দেয়ালের জন্য সঠিক রং বাছাইয়ের মাধ্যমেও পেতে পারেন একেবারে আপনার মনের মতো বাথরুম। সূত্র : ওয়াশিংটন পোস্ট

 


মন্তব্য