kalerkantho

সোমবার । ৫ ডিসেম্বর ২০১৬। ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৪ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


বিপজ্জনক চাকরিদাতা চেনার ১০ উপায়

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৮ অক্টোবর, ২০১৬ ১৯:৫৪



বিপজ্জনক চাকরিদাতা চেনার ১০ উপায়

কিছু চাকরি প্রার্থী আছেন যারা যেকোনো মূল্যে চাকরি চান। অনেক ধরনের সংকট থাকতে পারে।

তাদের মাথায় থাকে, এই চাকরি কেমন আমি জানি না, বস কেমন হবে জানি না, বেতন কত তাও জানি না। কিন্তু চাকরিটি আমার দরকার। এই প্রয়োজন মিটে যাবে যখন আপনি প্রতিষ্ঠানের কারণে আরো বেশি বিপদে পড়ে যাবেন। বিশেষজ্ঞদের মতে, কিছু চাকরিদাতা আছেন যারা সস্তা ধাঁচের এবং আঠালো। এ ধরনের প্রতিষ্ঠানে চাকরি করার চেয়ে চাকরি না থাকা অনেক ভালো। কিছু লক্ষণেই প্রকাশ পাবে এমন প্রতিষ্ঠান কোনগুলো। কর্মী হিসাবে এসব প্রতিষ্ঠান চেনার চেষ্টা করুন কয়েকটি লক্ষণে।

১. আপনার ইন্টারভিউ সকাল ১০টায়। কিন্তু গিয়ে দেখলেন সেখানে অসংখ্যা প্রার্থী এখনো  আশাবাদী চেহারা নিয়ে ইন্টারভিউ বিয়ষে আলাপ করে যাচ্ছেন। বুঝে নিন, এরা অপেশাদার ও সেই আঠালো প্রতিষ্ঠান।

২. যখন তারা ইন্টারভিউয়ের আগে আপনাকে একটি তালিকা পাঠায়। আর সেখানে ইন্টারভিউয়ে যাওয়ার পোশাক কেমন হবে বা কেমনভাবে দেখতে চায় ইত্যাদি বিষয়ে নির্দেশনা দেওয়া থাকে।

৩. ইন্টারভিউয়ের জন্য পৌঁছালেন। কিন্তু এরপরও তারা আপনাকে একটি ছোট কক্ষে অন্য কিছু পরীক্ষা জন্য পাঠিয়ে দিল। সেখানে কি হবে তা আপনি আদৌ জানেন না। এমন হলে সোজা বেরিয়ে যান।

৪. নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি দেখে কোনো প্রতিষ্ঠানে রিজ্যুমি পাঠিয়ে দিলেন। এরপর তারা আপনাকে ফোন দিলো বা চিঠি পাঠালো। বাজে প্রতিষ্ঠান হলে তাদের প্রথম প্রশ্ন হবে, আপনি কত বেতন চান?

৫. ইন্টারভিউয়ে বসে রয়েছেন আপনি। বেশ ভালো কাটলো সব। একটা পর্যায়ে গিয়ে পরবর্তী যোগাযোগের জন্য আপনি প্রতিষ্ঠানের এইচআর কর্মকর্তা বা নিয়োগের কাজে জড়িত কর্মকর্তার নম্বর চাইলেন। কিন্তু তারা কোন অবস্থাতেই এটা দিতে রাজি নয়। এখানে ঝামেলা আছে ধরে নিতে পারেন।

৬. একবার ইন্টারভিউ দিলেন। এর পর হয়তো একমাস কোনো খবর নেই নিয়োগদাতাদের পক্ষ থেকে। হঠাৎ তারা আবারো যোগাযোগ করে আপনাকে দ্বিতীয় ইন্টারভিউয়ের প্রস্তুতি নিতে বললো। এই প্রতিষ্ঠানের কাছ থেকে আপনি কিছুই আশা করতে পারেন না।

৭. যে পদের জন্য আবেদন করেছেন সে পদে তাদের বেতন কাঠামো সম্পর্কে জানাতে চায় না ওই প্রতিষ্ঠান। আবার আপনার বর্তমান বেতন জানতে ব্যাংকের স্টেটমেন্ট বা পে স্লিপ দেখতে চায়। এ ধরনের প্রতিষ্ঠানকে বিদায় জানিয়ে দিন।

৮. ইন্টারভিউয়ের যাবতীয় ঝক্কি সামলে নেওয়ার পর প্রতিষ্ঠান আপনাকে অ্যাসাইনমেন্ট দিলো। বললো, বেতন ছাড়া আপনাকে কিছু দিন এখানে অর্ধেক বেলা কাজ করে প্রমাণ করতে হবে আপনি কেমন পারবেন। সেখান থেকে বেরিয়ে আসুন।

৯. ধরুন নতুন প্রতিষ্ঠান আপনাকে প্রার্থী হিসাবে বাছাই করলো। অফার লেটারও দিয়ে দিলো। কিন্তু আবারো জানালো, নিয়োগের দিনটা তারা পেছাতে চায়। এই প্রতিষ্ঠানের কাছ থেকে যত দ্রুত সম্ভব ভেগে যান।

১০. এবার নিজের মনের কথা শুনুন। আপনার মন বলছে, এখানে ভালো হবে না। প্রতিষ্ঠানটি সুবিধার নয়। অনেক ক্ষেত্রে এমন অনুভূতি ইতিবাচক কাজ করে। এই অনুভূতিকে মূল্য দিন। অন্য কোনো ঝামেলা না থাকলেও এদের 'না' বলে দিন। সূত্র : ফোর্বস

 


মন্তব্য