kalerkantho

শুক্রবার । ৯ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৮ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


স্মার্ট মানুষ কি সত্যিই দুস্থ?

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৮ অক্টোবর, ২০১৬ ১৭:৩৯



স্মার্ট মানুষ কি সত্যিই দুস্থ?

যুক্তরাষ্ট্রের ইউনিভার্সিটি অব টেক্সাসের গবেষক রাজ রঘুনাথন গবেষণা করছেন মানুষের জীবনের সন্তুষ্টির উপায় নিয়ে । তিনি তার নানা পর্যবেক্ষণ শিক্ষা দিচ্ছেন অনলাইনেও।

আর এতে তিনি তুলে ধরেছেন তার নিজের গবেষণা থেকে পাওয়া নানা বিষয়। এতে তিনি জানিয়েছেন, মানুষের সুখ ও সম্পদ এক বিষয় নয়। ফলে উভয়ের মাঝে পার্থক্য রয়েছে। এক প্রতিবেদনে বিষয়টি জানিয়েছে টাইমস অব ইন্ডিয়া।
স্মার্ট মানুষ কেন সুখী নয়?
প্রথমত, কোনো মানুষকে স্মার্ট ও সফল হতে হলে অতিরিক্ত চিন্তাভাবনা করতে হয়। যে কোনো পরিস্থিতিতে প্রচুর মাথা খাটাতে হয়। দ্বিতীয়ত, কারণ আমরা সুখী ও জীবনের পরিপূর্ণতা বিষয়ে কোনো প্রশিক্ষণ লাভ করিনা।   বহু মানুষের ক্ষেত্রেই এ সংজ্ঞা ভিন্ন।
আপনি কখন বুঝতে পারলেন যে, স্মার্ট হওয়া জীবনের সন্তুষ্টির জন্য প্রয়োজনীয় নয়?
আমিও অন্যদের মতো বিশ্বাস করতাম অর্থ, শক্তি, ক্ষমতা, সৌন্দর্য, স্ট্যাটাস ইত্যাদি মানুষকে সুখী করে। সম্ভবত আমার সারা জীবনেই তা বিশ্বাস করতাম। কিন্তু যখন ২০০০ সালের মাঝামাঝিতে আমি একটি অভিজ্ঞতার পর সে বিশ্বাস পাল্টাই। আমি আমার পিএইচডি সম্পন্ন করে দারুণ একটি চাকরি সন্ধান করছিলাম। আর এক পর্যায়ে হঠাৎ করেই নিজের মাঝে শূন্যতা বোধ হলো। এটিই কি জীবন? আমি বহু কলিগদেরও একই চিন্তাভাবনা দেখলোম। এরপর এ বিষয়ে আরু অনুসন্ধান করা শুরু করি এবং জীবনের সুখ ও পরিপূর্ণতা কিভাবে আসে সে বিষয়ে চিন্তাভাবনা করি।
স্মার্ট মানুষের পক্ষে এটি কি সঠিকভাবে অনুধাবন করা সম্ভব নয়?
দেখুন, এতে কোনো সন্দেহ নেই যে, আপনি কিছু ইতিবাচক অনুভূতি সারা জীবন পাবেন না। যেমন ১০টি চকলেট কেক প্রথমবার খাওয়ার পর যে মজা পাবেন তা সব সময় পাবেন না। একইভাবে এক লাখ টাকা হাতে পেলে যে অনুভূতি হবে, তা সব সময় থাকবে না। আপনার আবার আরও কিছু জিনিস প্রয়োজন হবে।
তাহলে কিছু মানুষ সন্তুষ্টির সঙ্গে জীবনযাপন ও অর্থবহ জীবনধারণ করতে পারে?
আপনি যদি বিষয়টি ভালোভাবে অনুসন্ধান করেন তাহলে বুঝতে পারবেন দুটি বিষয় ভিন্ন। প্রথমত বিভিন্ন লক্ষ্য নির্ধারণ এবং সে অনুযায়ী ক্রমাগত দৌড়ে যাওয়া। দ্বিতীয়ত, আপনি বুঝতে পারলেন জীবনের সুখ ভিন্ন বিষয়। আর এতে আপনি বিশ্বাস করতে পারেন যে, জীবন ভালো। আর এজন্য মানসিকতাও গড়ে তুলতে হবে। সুখের কথা হলো, এ বিষয়টি আপনি যদি গ্রহণ করতে পারেন যে, ক্রমাগত লক্ষ্য নির্ধারণ করে দৌড়ে যাওয়ার মাঝে সুখ নেই তাহলে আপনার মনে সুখ আসবে। এক্ষেত্রে উভয় বিষয়ই আপনি আয়ত্ব করতে পারবেন।
আধুনিক জীবন কি আমাদের অসুখী করছে?
এ বিষয়টি আমি নিশ্চিত নই যে আধুনিক জীবন আমাদের অসুখী করছে কি না। কিন্তু আপনি বলতে পারেন আধুনিক জীবনের নানা কারণে আপনার সুখী হওয়া কঠিন হয়ে পড়েছে। আধুনিক জীবনে আমাদের অপ্রাপ্তির অনুভূতি বেড়ে গেছে।


মন্তব্য