kalerkantho

শুক্রবার । ৯ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৮ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


এক ব্যাভিচারী মায়ের প্রতি মেয়ের চিঠি

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২ অক্টোবর, ২০১৬ ১৮:৩৩



এক ব্যাভিচারী মায়ের প্রতি মেয়ের চিঠি

মা,
বহুদিন ধরেই আমি এ বিষয়টি নিয়ে কিছু লিখতে চাচ্ছি। কিন্তু আমার মনের ভেতরের এ কথাগুলো কখনোই লেখা হয়নি।

আমি আশা করি কাগজ-কলমে বিষয়টি তুলে ধরলে তা আমার উদ্বেগকে কিছুটা হলেও কমাবে।
এ বিষয়টি শুরু হয়েছিল আমি যখন নয় বছর বয়সী। সে সময় তোমার বন্ধু এসে বাবাকে কাজে সহায়তা শুরু করে তখন থেকেই বিষয়টির উৎপত্তি। এ সময়েই আমাদের সঙ্গ দেওয়া শুরু করে সে ব্যক্তি। সপ্তাহান্তে ছুটির দিনেও।
বিষয়টির শুরু হয় একেবারেই স্বাভাবিকভাবে। বাবার একজন সাহায্যকারী প্রয়োজন ছিল। তোমার বন্ধু এ সুযোগে কয়েক কাপ চা-কফি ও সন্ধ্যার নাশতার বিনিময়ে বিষয়টি শুরু করে। আর এ সময়েই আমি অস্বস্তি বোধ করা শুরু করি। আমি বুঝতে পারি পরিবর্তন।
সে সময় থেকেই প্রতি ক্রিসমাসে এবং জন্মদিনে তিনি তোমাকে উপহার দেন। তুমি সব সময়েই তার উপহার গ্রহণ করেছ। বলেছ, সে যদি তার অর্থ নষ্ট করতে চায় তাহলে অসুবিধা কোথায়?
আমি তার প্রতি তোমার আকর্ষণ বুঝতে পারি। তুমি সব সময়েই তার দৃষ্টি আকর্ষণ করার চেষ্টা করতে।
বাবা এদিক থেকে অনেক শান্ত। তুমি যে সময় কারো সঙ্গে সময় কাটাচ্ছ কিংবা দৃষ্টি আকর্ষণের চেষ্টা করছ, এ সময় বাবা কাজে ব্যস্ত। বাবা মাঝরাত পর্যন্ত কাজ করেন। আর তুমি তোমার সেই বন্ধুর সঙ্গে সময় কাটাও।
তোমার হয়ত ধারণা নেই যে, তোমাদের সম্পর্কের সব বিষয়ই আমি জানি। আমি তোমাদের মেসেজ দেখি। তোমাদের একে অপরকে জড়িয়ে ধরা কিংবা অন্তরঙ্গ সময় কাটানো, কিছুই আমার দৃষ্টি এড়ায় না। আমি বুঝতে পারি, বাবাকে বাদ দিয়ে তুমি তার সঙ্গে গল্প করছ। ফোনে ভালোবাসার কথা বলছ।
কয়েক বছর ধরেই আমি এ পরিস্থিতির মুখোমুখি হচ্ছি। আমি ঠিক জানি না, বাবা তোমাদের এ বিষয়টি জানে কি না। তবে আমি নিশ্চিত বাবা কিছু বিষয় বুঝতে পারলেও এড়িয়ে যাচ্ছেন।
তোমার হয়ত জানা নেই, এ সম্পর্কের কঠিন দিকটি। তোমার এ সম্পর্কের কারণে যে ক্ষতি করার তা তুমি করে ফেলেছ। আমাদের সম্পর্ক মিথ্যার ওপর দাঁড়িয়ে আছে। আর এ বিষয়টি তুমি নিজেই কয়েক বছর আগে নষ্ট করেছ। তোমার আচরণ আমার হৃদয়ে গভীর ক্ষত সৃষ্টি করেছে।
তুমি প্রায়ই আমাকে অনুভূতিহীন বলে মনে কর। কিন্তু আমি আমার অনুভূতি তেমন একজনকে জানাতে চাই, যার প্রতি আমার বিশ্বাস রয়েছে। তোমার বন্ধু আমাদের জীবনে প্রবেশের পর সে পরিস্থিতি আর নেই। -- ইতি তোমার মেয়ে
সূত্র : গার্ডিয়ান।


মন্তব্য