kalerkantho

সোমবার । ৫ ডিসেম্বর ২০১৬। ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৪ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


যৌনতাবিহীন বিয়ের অনুভূতি কেমন, জানালেন তারা

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২ অক্টোবর, ২০১৬ ১৭:৪০



যৌনতাবিহীন বিয়ের অনুভূতি কেমন, জানালেন তারা

বিয়ে স্বাভাবিকভাবে একটি সামাজিক সম্পর্ক হলেও এতে যৌনতার একটি অংশ রয়েছে। কিন্তু যৌনতা ছাড়াও কী বিবাহিত সম্পর্ক টিকতে পারে? বিভিন্ন জরিপে দেখা যাচ্ছে অনেক দম্পতিই কোনো যৌন সম্পর্ক ছাড়া তাদের জীবন চালিয়ে নিচ্ছেন।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে প্রায় ১৫ শতাংশ দম্পতি জানিয়েছেন তারা গত এক বছরে একবারও যৌন সম্পর্ক করেননি। আর এ লেখায় তুলে ধরা হলো তেমন কয়েক দম্পতির অভিজ্ঞতা। এক প্রতিবেদনে বিষয়টি জানিয়েছে গার্ডিয়ান।
পল
লন্ডনের অধিবাসী ৩৬ বছর বয়সী পল। তিনি জানান, বিয়ের পর তাদের সংসার যখন শুরু হয় তখন যৌনতা ছিল দারুণ বিষয়। তবে দুই বছর যাওয়ার পর বিষয়টি পরিবর্তিত হয়ে যায়। আর এ প্রভাব পড়ে যৌনতায়। বিয়ের সময় যে যৌনতার প্রভাব থাকে তা এখন আর নেই। আগে যেমন নানা ধরনের যৌনতার অংশ ছিল তা কমে গিয়ে পরবর্তীতে অল্প কিছু অংশই অবশিষ্ট থাকে। এক পর্যায়ে তাও আর করা হয় না।
বিষয়টির সমাধানের চেষ্টা করেও বিফল হয়েছেন বলে জানান পল। তিনি বলেন, তিনি এ সমস্যার সমাধানে অনলাইনেও নানা খোঁজখবর নিয়েছেন। এতে কোনো সমাধান পাওয়া যায়নি। তিনি বলেন, এছাড়া আমাদের সন্তানও যৌনতার ক্ষেত্রে একটি বড় বাধা হয়ে দাঁড়িয়েছে। আমরা সব মিলিয়ে যৌনতার কফিনে যেন পেরেক ঠুকে দিয়েছি।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক নারী
যুক্তরাজ্যেল এক অধিবাসী জানান, তিনি পাঁচ বছর আগে বিয়ে করেছেন। আর বিয়ের তিন বছর আগে থেকেই তার সঙ্গে যৌন সম্পর্ক ছিল। আর বিয়ের আগেই এ বিষয়টি শুরু হয়েছিল। আমরা অবশ্য ভেবেছিলাম বিয়ের পর বিষয়টি ঠিক হয়ে যাবে। কিন্তু বাস্তবে কোনো সমাধান হয়নি। ক্রমে বিষয়টি আরও বাজে হয়ে দাঁড়ায়। যৌনতার আগ্রহ যখন কমে যায় তখন তা কমতেই থাকে। এক পর্যায়ে তা একেবারেই চলে যায়। আমরা একত্রে বসবাস করলেও নিজেদের কুয়ায় আবদ্ধ হয়ে পড়ি। আর এখানে আমরা একত্রে সময় কাটালেও কোনো যৌনতা নেই। আমি তাকে সন্তান নেওয়ার কথা বললেও সে বলে এটি একদিন হবে। কিন্তু আমি যখন জিজ্ঞাসা করি কখন, তখন সে বিষয় পাল্টে ফেলে।
আমি এ বিষয়ে কথা বলে উভয়ে চিকিৎসা নিতে চাই। কিন্তু বিষয়টি বেশিদূর এগোয় না। কখনো কখনো আমি ডিভোর্স চাই। কিন্তু আমি একা থাকার বিষয়ে চিন্তিত। যৌনতার কথা বাদ দিলে আমাদের সম্পর্ক চমৎকার।
গত কয়েক মাস আগে আমি এক বন্ধুর সঙ্গে যৌনতায় লিপ্ত হয়েছিলাম। এটি ছিল দীর্ঘদিন পরের যৌনতা। সে বিষয়টি আমি উপভোগ করি। এ অবস্থায় আমি আবিষ্কার করেছি আমাদের দাম্পত্যে যৌনতা না থাকলেও অন্য মানুষের সঙ্গে সম্ভব। আর এ বিষয়টি নিয়ে জীবনধারণ করা কঠিন হয়ে উঠেছে।
ম্যাট
কানাডার অধিবাসী ২৫ বছর বয়সী ম্যাট। তিনি জানান, বছরে মাত্র ১০ বার যৌনতায় লিপ্ত হন তিনি। স্ত্রীর সঙ্গে তার দেখা হয়েছিল ২০ বছর বয়সে। এরপর পাঁচ বছর পার হয়েছে। ম্যাট বলেন, আমার স্ত্রী বিশ্বাস করেন যৌনতা শুধু প্রজননের জন্য। সন্তান উৎপাদনই এর কাজ। আর শুধু তাই নয়, তার যৌন আগ্রহও খুব কম।
আমার বিবাহিত জীবনকে প্রভাবিত করছে এ যৌনতার বিষয়টি। আর এ কারণে আমরা একে অপরের দিকে পেছন ফিরেই বিছানাতে শুতে যাই। আমি তার সঙ্গে আর যৌনতার কোনো চেষ্টা করি না। আমি তিনদিন আগেই তাকে জানিয়েছি, যৌনতা বিবাহিত জীবনে একটি গুরুত্বপুর্ণ বিষয় এবং এর অভাবে ডিভোর্স পর্যন্ত হতে পারে। এ বিষয়ে আমি তার সঙ্গে বহু আলোচনা করেছি। কিন্তু তাকে বিষয়টি বুঝাতে ব্যর্থ হয়েছি। এখন আমি একজন সেক্স থেরাপিস্টের সঙ্গে দেখা করতে চাই। আমি অবশ্য নিশ্চিত নই যে, আমার স্ত্রী এ বিষয়টি কিভাবে নেবে।
ব্রায়ান
অস্ট্রেলিয়ার নাগরিক ৫১ বছর বয়সী ব্রায়ান। তিনি জানান, দীর্ঘ ১৩ বছর আগে তিনি বিয়ে করেছেন। এখন প্রায় দুই বছর ধরে যৌনতাহীন জীবনযাপন করছেন তিনি। আর তিনি ও তার স্ত্রী উভয়েই ভিন্ন কক্ষে বাস করেন। এ বিষয়টি সমাধান করতে তারা ম্যঅরেজ কাউন্সেলিংয়ের সহায়তাও নিয়েছিলেন। কিন্তু দুই-তিন বছর আগে এর চাহিদা আর হয়নি (সম্ভবত আমাদের উভয়ের দিক থেকেই)। আর এরপর থেকে আমরা আর এতে এগিয়ে যাইনি। আমরা আমাদের বাড়ির কাজ ও ছেলেদের দেখাশোনাতেই সময় ব্যয় করি।
আমাদের মাঝে যৌন সম্পর্ক নেই। আমি আগ্রাসী নই। আমি একজন নারীবাদী। কিন্তু আমি বিশ্বাস করি, যৌনতার প্রয়োজন আছে। এটি অন্তরঙ্গতার একটি বিষয়। কিন্তু সবকিছুই এখন দূর হয়ে গেছে। এখন একটাই আশা, আমাদের সন্তান বড় হবে এবং নিরাপদ পরিবেশে ভালোবাসার মাঝে গড়ে উঠবে।


মন্তব্য