kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ৮ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৭ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


জেনে নিন, দু’বছর ধরে কেন চুল কাটেনি শিশুটি?

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ২২:১৮



জেনে নিন, দু’বছর ধরে কেন চুল কাটেনি শিশুটি?

মরণ রোগে আক্রান্ত হয়েছিল ছোট্ট একটি মেয়ে। কেমোথেরাপিতে মাথার সব চুল ঝরে গিয়েছিল তাঁর।

ফেসবুকে ছোট্ট মেয়েটির সেই ছবি কাঁদিয়েছিল আর এক শিশুকে। আমেরিকার থমাস মোরে। তখন তাঁর বয়স মোটে ছ’বছর। তখনই সিদ্ধান্ত নেয় সে। নিজের চুল দিয়ে ক্যান্সার আক্রান্ত শিশুদের মাথা ঢেকে দিতে চেয়েছিল ছোট ছেলেটি। তারপর?

* একদিন মায়ের কম্পিউটারে ছোট্ট একটি মেয়ের কেমোথেরাপিতে চুল হারানোর ছবি দেখতে পায় থমাস।
তখনই স্থির করে নিজের চুল ক্যান্সার আক্রান্তদের দান করবে সে।

* এরপর থেকেই শুরু হয় তাঁর একটু ‘অন্যরকম’ জীবনযাপন।

* টানা দু’বছর ধরে নিজের চুল বাড়াতে থাকে থমাস।

* দু’বছরে অনেকটাই বড় হয়ে গিয়েছিল থমাসের চুল।

* দু’বছর পর নিজের সব চুল কেটে ফেলে থমাস। দেখা যায় তাঁর চুলের যা পরিমাণ তাতে একটি-দু’টি নয়, অনন্ত তিনটি পরচুলা অনায়াসেই বানানো যাবে।

* তাঁর এই পুরো প্রজেক্টটির নাম ছিল, ‘থমাস ফ্রম মেরিল্যান্ড’। যেখানে শুরুর দিন থেকে চুল কাটার আগের মুহূর্ত পর্যন্ত সবক’টি ছবিই ক্যামেরাবন্দী করা আছে।

* হেয়ার কাটিংয়ের পর থমাসের আন্টি অ্যাম্বার রে পুরো প্রজেক্টটিই শেয়ার করেন টুইটারে। এতেই ভাইরাল হয়ে যায় ‘থমাস ফ্রম মেরিল্যান্ড’। ৫৭ হাজার শেয়ার এবং ১১০ হাজার লাইক পেয়েছে পোস্টটি।

সূত্র: আনন্দবাজার


মন্তব্য