kalerkantho


যৌনমিলনের পর পুরুষরা বেশি ধার্মিক হন!

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ১১:৩০



যৌনমিলনের পর পুরুষরা বেশি ধার্মিক হন!

গবেষকরা দাবি করেছেন, যৌনমিলন মানুষের মধ্যে আধ্যাত্মিকতা ও ধর্মবিশ্বাস উৎসাহিত করে।

গবেষণায় দেখা গেছে, যৌনমিলনের ফলে 'লাভ হরমোন' হিসেবে পরিচিত অক্সিটোসিন নিঃসরিত হয়। এই হরমোন সামাজিক বন্ধন দৃঢ় করা এবং পরোপকারিতায় উৎসাহ যোগায়। এ ছাড়া বিশেষ করে পুরুষদের মধ্যে স্বর্গীয় অনুভূতি শক্তিশালী করে।

যুক্তরাষ্ট্রের উত্তর ক্যারোলিনার ডিউক বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকরা বলেছেন, যৌনমিলন ধর্মবিশ্বাসে অনুপ্রেরণা যোগায়। বিশেষ করে ঈশ্বর এবং ধর্মে বিশ্বাস আরো শক্তিশালী করে।

যৌনমিলন, সন্তান জন্মদান এবং সন্তানকে বুকের দুধ খাওয়ানোর সময় অক্সিটোসিন হরমোন নিঃসরিত হয়।

গবেষণায় দেখা গেছে, অক্সিটোসিন হরমোন গ্রহণের পর পুরুষরা অনেক বেশি শক্তিশালী আধ্যাত্মিকতার অনুভূতির কথা বলেছেন। এমনকি তাদের ওই অনুভূতি এক সপ্তাহ পরও অটুট ছিল।

ডিউক বিশ্ববিদ্যালয়ের নিউজ ওয়েবসাইট ডিউক টুডেতে ওই গবেষণার নেতৃত্বে থাকা আমেরিকান ইউনিভার্সিটির মনোবিজ্ঞানী প্যাটি ভ্যান ক্যাপেলান বলেন, "এর আগের গবেষণায় দেখা গেছে, পরমার্থিকতা এবং ধ্যান সুস্বাস্থ্য এবং মেজাজ-মর্জি ভালো রাখার পেছনে গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা পালন করে। এবার আমরা পরমার্থিক বা আধ্যাত্মিক অভিজ্ঞতা শক্তিশালী করা ও বাড়ানোর ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা পালনকারী জৈবিক উপাদানগুলো কী তা বুঝার চেষ্টা করছি। "

"পরমার্থিকতা জটিল একটি বিষয়। এর পেছনে নানা উপাদান সক্রিয় থাকে। তথাপি অক্সিটোসিন হরমোন জগতকে আমরা কীভাবে উপলব্ধি করি এবং আমরা কী বিশ্বাস করি তার ওপরও প্রভাব ফেলে। "

গবেষণায় অংশগ্রহণকারীদের একদলের দেহে অক্সিটোসিন হরমোন আর আরেক দলের দেহে মন ভালো করার ওষুধ প্রয়োগ করা হয়।

অক্সিটোসিন গ্রহণকারীরা জানান, তাদের জীবনে পরমার্থিকতা বা আধ্যাত্মিকতা একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। আর মানবজীবনের গুরুত্বপূর্ণ অর্থ এবং বিশেষ উদ্দেশ্যও আছে।

অথচ এদের সকলেই আগে একথা বলেননি যে, ধর্মবিশ্বাস তাদের জীবনের গুরুত্বপূর্ণ অংশ। তারা তেমন একটা ধার্মিকও ছিলেন না।

গবেষণায় অংশগ্রহণকারীদের যারা অক্সিটোসিন নিয়েছেন, তারা নিজেদেরকে অন্যদের সঙ্গে যুক্ত বা এক করে দেখতে এবং প্রাণবন্ত জিনিস হিসেবে দেখতেই বেশি আগ্রহ প্রকাশ করেছেন। "জগতের সকল প্রাণই পরস্পরের সঙ্গে যুক্ত" এবং "আত্মসচেতনতা বা পরমার্থিকতার এমন একটি সর্বোচ্চ পর্যায় রয়েছে যেখানে পৌঁছানোর পর সকল মানুষকে একক বন্ধনে আবদ্ধ বলে অনুভূত হয়। "

যারা অক্সিটোসিন গ্রহণ করেছেন ধ্যানের সময় তারা অনেক বেশি ইতিবাচক আবেগগত অভিজ্ঞতা অর্জনের কথা বলেছেন। এই অভিজ্ঞতার মধ্যে রয়েছে, সম্ভ্রম, কৃতজ্ঞতাবোধ, আশা, অনুপ্রেরণা, আন্তরিকতা, ভালোবাসা এবং নির্মল প্রশান্তি।

তবে গবেষণায় অংশগ্রহণকারী সকলকেই অক্সিটোসিন হরমোন সমানভাবে প্রভাবিত করেনি। যেসব লোকের দেহে সিডি৩৮ জিন আছে তাদের মধ্যেই শুধু অক্সিটোসিন পরমার্থিকতার বোধ বাড়িয়েছে বা আরো বেশি শক্তিশালি করেছে। এই জিনটি মস্তিষ্কের হাইপোথ্যালামিক নিউরন থেকে অক্সিটোসিন হরমোন নিঃসরণ প্রক্রিয়াকে নিয়ন্ত্রণ করে।

সোশাল কগনিটিভ অ্যান্ড অ্যাফেকটিভ নিউরোসায়েন্স জার্নালে প্রকাশিত ওই গবেষণায় আরো দেখা গেছে, যৌনমিলনের সময় পুরুষদের তুলনায় নারীরা অনেক বেশি অক্সিটোসিন হরমোন নিঃসরণ করেন। তবে এর ফলে নারীদের মধ্যে ধর্ম ও ঈশ্বরবিশ্বাস দৃঢ় হয় কিনা সে ব্যাপারে অবশ্য এখনো কোনো গবেষণা চালানো হয়নি।
সূত্র : ডেইলি মেইল


মন্তব্য