kalerkantho

রবিবার । ১১ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ১০ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


সুন্দরী নার্সের সান্নিধ্যে সারবে ধূমপানের বদ অভ্যাস!

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২০ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:১১



সুন্দরী নার্সের সান্নিধ্যে সারবে ধূমপানের বদ অভ্যাস!

ভুল কিছু পড়েননি আপনি! সাম্প্রতিক এক বিদেশি সমীক্ষা এমনটাই দাবি তুলেছে। রীতিমতো জোর গলায় বলছে সেই সমীক্ষা, নার্সের সান্নিধ্যে কিছু সময় কাটালেই হল! ব্যস! তাতেই কেল্লাফতে! আর কোনোদিন না কি হাতে নিতে ইচ্ছেই করবে না বিড়ি, সিগারেট! শুধু কিছু শর্তাবলী প্রযোজ্য।

নার্সটিকে হতে হবে সুন্দরী এবং বুদ্ধিমতী। স্বভাব হতে হবে নম্র। তাহলেই কাজ হবে!

কীসের ভিত্তিতে এমন অদ্ভুত দাবি তুলেছে বিদেশি ওই সমীক্ষা?

সমীক্ষা বলছে, মানুষ হাজার চেষ্টা করেও যে ধূমপান ছাড়তে পারে না, তার কারণ একটাই। অন্যরা তো বটেই, এমনকী ব্যক্তিটি নিজেও ধূমপান ত্যাগের ব্যাপারে নিজেকে ঠিকমতো বোঝাতে পারেন না!

সেই জন্যই দরকার এক নার্সের! সে সুন্দরী হলে তার কথা মন দিয়ে শুনতে ইচ্ছে করবে। বুদ্ধিমতী হলে ধূমপায়ীর চরিত্র বুঝে ফেলবে সহজেই। এবং, সেইমতো তাকে বোঝাতেও পারবে। নম্র স্বভাবের হবে বলে চট করে বিরক্তও হবে না। দরকার হলে একই কথা ধৈর্য ধরে বোঝাবে বারে বারে!

সমীক্ষার দাবি, ১৫২৮ জনের উপর নজরদারি চালিয়ে দেখা গেছে তাদের মধ্যে ১৬.৫ শতাংশ ব্যক্তি নার্সের অনুপ্রেরণায় ধূমপান ছেড়েছেন!

বেশ কথা! তবে এবার প্রশ্ন হল- নার্স পাওয়া যাবে কোথায়?

অবশ্যই হাসপাতালে। তার জন্য ধূমপায়ীকে ভর্তি হতে হবে সেখানে। সমীক্ষার দাবি অনুযায়ী, হাসপাতালে মানুষ যখন অসুস্থ হয়ে ভর্তি হয়, তখন একজন নার্সই কাউন্সেলিংয়ের মাধ্যমে তার ধূমপানের বদ অভ্যাস ছাড়াতে পারে!

সমীক্ষা যা-ই বলুক, একটা কথা কিন্তু চিন্তার! হাসপাতালে ভর্তি হয়ে সুন্দরী নার্সের সান্নিধ্যে ধূমপান ছাড়াটা ভাল? না কি তার আগেই ছেড়ে দেয়াটা?

নিজেই ভাবুন!

সূত্র: সংবাদ প্রতিদিন


মন্তব্য