kalerkantho

মঙ্গলবার । ৬ ডিসেম্বর ২০১৬। ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৫ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


যে পাঁচ কারণে ছাড়া উচিত সিগারেট

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:৪১



যে পাঁচ কারণে ছাড়া উচিত সিগারেট

ধূমপান স্বাস্থ্যের পক্ষে ক্ষতিকারক। জানলেও মেনে চলেন আর ক’‌জন?‌ কিন্তু জানেন কী সিগারেট খাওয়া বন্ধ করলে আখেরে লাভ আপনারই।

আগের তুলনায় স্বাস্থ্য অনেকটাই ভালো থাকবে। ‌

❏ অল্প বয়সেই ত্বকে বলিরেখা স্পষ্ট হয়ে ওঠে। এক নজরে দেখলে যে কেউ মনে করে আপনার বয়স অনেক। কিন্তু আসলে সেটা হয়তো নয়। ধূমপান ত্বকের একদম বাইরের দিকের ধমনীগুলোতে রক্ত সঞ্চালন কমিয়ে দেয়। ফলে ত্বকে প্রয়োজনীয় অক্সিজেনটুকুও পৌঁছায় না। এছাড়া সিগারেটের তামাকে থাকে ক্ষতিকর রাসায়নিক পদার্থ, যা আপনার ত্বকের এলাস্টিন এবং কোলাজেনকে নষ্ট করে দেয়। এবং সেকারণেই বলিরেখা স্পষ্ট হয়ে উঠছে।

❏‌ সিগারেট শুধু ত্বক নয়, দাঁতের ক্ষতিও করে। সিগারেটের নিকোটিনের কারণেই দাঁতের ঝকঝকে সাদা রঙ পালটে হলদেটে হয়ে যায়। তাই সিগারেট বন্ধ করলে অল্প কয়েকদিনের ফিরে পাবেন ঝকঝকে হাসি। যদি সিগারেট না ছাড়তে পারেন সেক্ষেত্রে ই-‌সিগারেটের খাওয়ার অভ্যাস করতে পারেন।
 
❏ ধূমপানের ফলে চুলেরও ক্ষতি হয়। গবেষণায় জানা গেছে, দীর্ঘদিন ধরে যারা ধূমপান করছেন তাঁদের চুল বাকিদের তুলনায় অনেক পাতলা হয়। কারণ সিগারেট চুলের ডি এন এ গুলোকে নষ্ট করে দেয়। শুধু মেয়েদের ক্ষেত্রে নয়, ছেলেদের ক্ষেত্রেও চুলের সমস্যা দেখা দেয়, এমনকি চুল পড়ে যাওয়া, পাতলা হতে থাকে।

❏‌ শুধু বলিরেখা নয়, অধিক ধূমপানের ফলে ত্বকের আরও অনেক সমস্যা দেখা দেয়। এছাড়া চোখের তলায় কালি, ‘‌ব্ল্যাকহেডস’-‌এ‌র সংখ্যাও বাড়তে থাকে।

❏‌ শরীরের ক্ষতস্থান দ্রুত সারাতে রক্তের হিমোগ্লোবিন প্রধান ভূমিকা নেয়। কিন্তু অতিরিক্ত ধূমপানের ফলে হিমোগ্লোবিন বেশি পরিমাণে অক্সিজেন বহনে অক্ষম হয়ে পড়ে। যে কারণে শরীরের ক্ষত সারতেও অধিক সময় লাগে। ‌

সূত্র: আজকাল


মন্তব্য