kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ৮ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৭ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


পিরিয়ডের মাঝেও উপভোগ করুন ভ্রমণ

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ২০:২৭



পিরিয়ডের মাঝেও উপভোগ করুন ভ্রমণ

ছুটিতে হয়তো পরিবার কিংবা বন্ধুবান্ধবের সাথে দূরে কোনো স্থানে যাওয়ার প্ল্যান করেছেন। হোটেল বুকিং হয়ে গেছে‚ গাড়ির টিকিট ও কাটা হয়ে গেছে।

 এরপর একদিন ভোরবেলা ব্যাগ এন্ড ব্যাগেজ চলেও গেলেন।   তখনই আপনর মনে পড়লো 'আরে ওই সময় তো আমার পিরিয়ডস হওয়ার কথা!' এই অবস্থায় কী করবেন? বেড়ানো বাদ দেওয়ার তো প্রশ্নই আসে না। সেই প্রাচীণ ধারণা বাদ দিন। বরং দেখে নিন পিরিয়ডের মধ্যেও ট্যুর উপভোগ করার কিছু টিপস:

১. প্যাকিং করার সময় খেয়াল রাখুন : মাসের ওই বিশেষ সময় হোক বা না হোক‚ এর জন্য সব সময়ই তৈরি থাকা উচিত। হতেই পারে আপনার পিরিয়েডসের দিন আসতে দেরী আছে। কিন্তু কেউ তো বলতে পারে না? হঠাৎ করে যদি শুরু হয়ে যায় তখন কী করবেন? তাই জামাকাপড়ের সঙ্গে এক প্যাকেট স্যানিটরি প্যাডস প্যাক করে নিন। ট্রাভেলিং এর সময় ট্যাম্পুন ও সঙ্গে রাখতে পারেন।

২. আগের থেকে তৈরি থাকুন : পিরিয়েডসের সময় ব্যবহার করার জন্য স্যানিটরি প্যাডস রাখা ছাড়াও কয়েকটা জিনিস মাথায় রাখতে হবে। অনেক সময় এমন পরিস্থিত আসতে পারে যখন আপনার স্যানিটারী প্যাড বা ট্যাম্পুন ফেলে দেওয়ার জায়গা নেই। সেইরকম পরিস্থিতে পড়লে ব্যবহৃত প্যাড বা ট্যাম্পুন আপনার সঙ্গেই রাখতে হবে তাই যথেষ্ট পরিমাণে টিস্যু পেপার‚ প্ল্যাস্টিকের ব্যাগ সঙ্গে রাখুন। সঙ্গে অবশ্যই হ্যান্ড স্যানিটাইজার রাখুন কারণ নোংরা হাতে স্যানিটরি প্যাড বদলানো মোটেই ভালো আইডিয়া নয়।

৩. মেনেস্ট্রুয়াল কাপস ব্যবহার করুন : স্যানিটারী প্যাডস বা ট্যাম্পুন মাঝে মাঝেই বদলাতে হয়। ট্র্যাভেলিং এর সময় সব সময় বাথরুম নাও থাকতে পারে। তাই সব থেকে ভালো হয় যদি আপনি মেনেস্ট্রুয়েল কাপ ব্যাবহার করেন তো। এটা ১২ ঘন্টা অবধি সুরক্ষা দেয়। আর একই সঙ্গে স্যানিট্যরি প্যাডের মতো লিক হওয়ার সম্ভাবনাও থাকে না। ওষুদের দোকানে এটা না পেলে অনলাইনে খুব সহজেই এটা পেয়ে যাবেন।

৪. রেস্ট রুম বা টয়লেটের সদ্ব্যবহার করুন : লিকিং এড়াতে মাঝে মাঝেই প্যাড বদলানো খুব দরকার। তাই যখনি কোন রেস্টরুম বা টয়লেট দেখতে পাবেন তার সদ্ব্যবহার করুন। আপনার যদি মনে হয় ট্রাভেলিং এর সময় টয়লেট পাবেন না তাহলে সেই ক্ষেত্রে অবশ্যই একটা এক্সট্রা প্যাড পরে নিন। তবে ট্যাম্পুন অবশ্যই খুব বেশি সময় ধরে পরে না থাকাই ভালো কারণ এতে টক্সিক শক সিন্ড্রম দেখা দিতে পারে।

৫. আরামদায়ক পোশাক পরুন : পিরিয়েডসের সময় অনেক মহিলার ক্র্যাম্পিং এবং ব্লটিং এর সমস্যা হয়। এর মধ্যে যদি আরামদায়ক পোশাক না পরেন তাহলে আরো কষ্ট হবে। তাই অগে থেকে এই সময়ের কথা ভেবে আরামদায়ক পোশাক সঙ্গে রাখুন।

৬. সঠিক খাবার খান : এই বিশেষ কয়েকটা দিনে শরীরে হর্মোনের তারতম্য ঘটে তাই এইসময় মিষ্টি খাবার এবং চিপ্স বা অন্য ভাজাভুজি খেতে ইচ্ছা করে। কিন্তু জাঙ্ক খাবার‚ বা লবণ যুক্ত খাবার এবং সোডা কিন্তু পরিস্থিতি আরো খারাপ করতে পারে। এই সময় তাই স্বাস্থ্যকর খাবার খাওয়া উচিত। সঙ্গে তাই ফল আর বিভিন্ন ধরণের বাদাম রাখুন। এছাড়াও সঙ্গে এক বোতল জল রাখুন সব সময়। কারণ এই সময় ডিহাইড্রেশন হলে ক্র্যাম্প কিন্তু আরো বেড়ে যেতে পারে।

৭. সঙ্গে পেইনকিলার রাখুন : যদি দেখেন পেটে ব্যাথা বা ক্র্যাম্প আর সহ্য করতে পারছেন না তাহলে একটা পেইনকিলার খেলে স্বস্তি পাবেন। কিন্তু বেড়াতে যাওয়ার আগে অবশ্যই ডক্তারের পরামর্শ নিয়ে তবেই কোনো পেইনকিলার সঙ্গে রাখুন। কারন পেইনকিলারের সাইড এফেক্ট হতে পারে।

৮. এনজয় করুন : ট্র্যাভেলিং এর সময় পিরিয়েডস হলে সেটা ঝামেলা হলেও সেটা ভুলে থাকার চেষ্টা করুন। অন্য দিকে মন ফেরাতে সঙ্গে একটা ভালো বই রাখুন বা পছন্দমতো মিউজিক শুনুন। সব সময় মনে রাখবেন বেড়াতে গিয়েছেন‚ হয়তো ওই জায়গায় আপনার আর দ্বিতীয়বার সুযোগ নাও হতে পারে তাই যে পরিস্থিতেই পরুন না কেন ভালো করে সেই জায়গা উপভোগ করুন।


মন্তব্য