kalerkantho

মঙ্গলবার । ৬ ডিসেম্বর ২০১৬। ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৫ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


যে কারণে মায়েরা সব সময়ই ঠিক

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ১২:৪৪



যে কারণে মায়েরা সব সময়ই ঠিক

বাঙালি পরিবারে বড় হওয়াদের প্রায় সকলেই জানেন যে, তাদের মা সব সময়ই ঠিক কাজ করেন এবং কখনোই ভুল করতে পারেন না। বাঙালি হিসেবে বড় হয়ে আপনার মা অনেক জিনিসই অসংখ্যবার পুনরাবৃত্তি করা সত্ত্বেও ক্লান্ত হন না।

আসুন বাঙালি মায়েদের সম্পর্কে জনপ্রিয় কথাগুলো কী জেনে নেই।

নিষ্ক্রিয়-আগ্রাসী
মায়েরা স্বভাবগতভাবেই নিষ্ক্রিয় আগ্রাসী হয়ে থাকেন। আপনি কখনোই জানতে পারবেন না কখন শান্তিপূর্ণ কথোপকথনের মাঝেও আপনার মা তিন মাসে আগে আপনার কোনো বাজে আচরণের জন্য ক্ষোভে বিস্ফোরিত হবেন। এতে বিস্মিত হবেন না। কারণ মায়েরা কিছুই ভোলেন না। কিছুই না!

আপনি কি আপনার বন্ধুর মায়ের রান্না পছন্দ করেন?
তাহলে আল্লাহ ছাড়া আর কেউই আপনাকে রক্ষা করতে পারবেন না। আপনাকে এমন সব প্রশ্নবোমা ছুড়ে মারা হবে যা থেকে মনে হবে আপনি আপনার মায়ের ভালোবাসার গণ্ডির বাইরে বের হয়ে গেছেন। কারণ আপনি যদি আপনার বন্ধুর টিফিন বেশি পছন্দ করেন তাহলে এটি একটি সময়ের ব্যাপার মাত্র যে আপনি আপনার বন্ধুর মাকেও বেশি পছন্দ করা শুরু করবেন। সুতরাং ভান করুন যে আপনার বন্ধুর কাছ থেকে আপনি যে সুস্বাদু মুরগির রানটি খেয়েছেন তার স্বাদ পায়ের মতো লেগেছে। তাই কি করবেন?

আপনি কখনোই বলতে পারবেন না আপনার পেট ভরা
বাঙালিদের খাবার পেটের পীড়া সৃষ্টিকারী। আর এ কারণেই খাবার খাওয়ার ঠিক পরপরই আমাদেরকে একটি অ্যান্টাসিড ট্যাবলেট খেতে হয়। বাঙালি ঘরে আপনি কখনোই পেট ভরা আছে বলতে পারবেন না। কারণ মা প্রচুর ভালোবাসা দিয়ে এতকিছু রান্না করেছেন। আর মায়ের হাতের ১০০তম লোকমাটি প্রত্যাখ্যান করার মানে হলো মারাত্মক একটি অপকর্ম। আপনি কখনো এর শেষটাও শুনতে পাবেন না।

'বন্ধুর ছেলেমেয়ে' সবকিছুতেই ভালো
এই ব্যক্তি সবকিছুতে আক্ষরিক অর্থেই আপনাকে অতিক্রম করে যান। ওই টার্ম পেপার? ফার্স্ট ক্লাস পাওয়া। নিয়মিত পাঠক্রমবহির্ভূত কর্মকাণ্ড। বাবা-মায়ের জন্য ভালোবাসা এবং সম্মানবোধ? সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার মধ্যেই ঘরে ফিরে আসে। যথেষ্ট হয়েছে। ঠিক আছে, এ ধরনের কোনো লোকের অস্তিত্ব কি আসলেই বাস্তবে আছে?

আপনি যা খুঁজে পান না তিনি যদি তা পান তাহলে আপনি শেষ
এই উদাহরণটি মিলিয়ে দেখুন। আপনি: মা, তুমি কি আমার নতুন পোশাকটি দেখেছো? মা: তোমার ওয়ারড্রোবের ডান পাশের সবচেয়ে ওপরের কুঠুরিতে আছে সেটি। আপনি: কই দেখছি না তো। মা: আমি যদি খুঁজে পাই তাহলে কী হবে? আপনি: ফের ভয়ে ভয়ে খুঁজতে থাকলেন, যদি কোনো ভুল হয়ে থাকে। পরিস্থিতি বদলে গেল: আপনি খুঁজে পেলেন না, কিন্তু তিনি ঠিকই খুঁজে পেয়েছেন।

ডিশ বা থালা ভাঙলে পুরো ঘরটিই যেন ভেঙে পড়ল
আপনি কি রান্না ঘরে কোনো ডিশ বা থালা ভেঙেছেন? তাহলে এ থেকে এখন এমন অনুমান করাই সঙ্গত যে, আপনি ডিশ বা থালা-বাসন থেকে শুরু করে ঘরের ফার্নিচারসহ সবকিছুই ভেঙে ফেলবেন। এরপর আপনি 'সব ভেঙে দে' কথাটিকে আপনার দিকে তেড়ে আসতে দেখবেন।

ঠাণ্ডা পড়লে আপনাকে মাঙ্কি ক্যাপ পরতেই হবে
ঠাণ্ডায় আক্রান্ত হওয়ার ভয় আর সবকিছুকেই ছাপিয়ে যায়। তাপমাত্রা যদি ২০ ডিগ্রি সেলসিয়াসের নিচে থাকে তাহলে আপনার মা আপনাকে পোশাক পরিয়ে মমির মতো বানিয়ে ফেলবে এবং সর্বোপরি আপনাকে একটি মাঙ্কি ক্যাপ পরিয়েই ছাড়বে।
বন্ধুদের সামনে আপনাকে ব্রিবতকর ডাকনামে ডাকবেন। আপনি যদি বাঙালি হন তাহলে এই সম্ভাবনা প্রবল যে আপনার একটি ব্রিবতকর ডাকনাম আছে। যা আপনি জীবনভরই শুনে এসেছেন। কিন্তু যে সময়ে আপনি ওই নামটি হয়ত আর শুনতে চান না ঠিক সে সময়ই হয়ত আপনার মা আপনাকে সে নামটি ধরে ডাকবে। কিন্তু বিষয়টি নিয়ে আমরা একদমই মন খারাপ করি না। কারণ, মা, তুমি সব সময়ই ঠিক।
সূত্র : টাইমস অফ ইন্ডিয়া


মন্তব্য