kalerkantho

রবিবার। ৪ ডিসেম্বর ২০১৬। ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৩ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


নিরাময় অযোগ্য চর্মরোগের যুগ চলছে

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ১৫:৩৭



নিরাময় অযোগ্য চর্মরোগের যুগ চলছে

ভারতীয় চর্মবিশেষজ্ঞরা ছত্রাক সংক্রমণের এক মহামারির প্রাদুর্ভাবের হুঁশিয়ারি দিয়েছেন। যা এমনকি সবচেয়ে শক্তিশালী ছত্রাকনাশক ওষুধেও নিরাময় সম্ভব হবে না।

আরো বড় উদ্বেগের বিষয় হলো টপিক্যাল স্টেরয়েড ক্রিম এই সংক্রমণকে আরো দুর্দমনীয় করে তুলছে। এসব ক্রিমের বিক্রি বাড়ছে দ্রুত এবং সব সময় কাউন্টারে তৈরি থাকে। এমনকি যদিও তাদের কার্যকারিতা নিয়ে সন্দেহ রয়েছে।
ওষুধের ডোজ শেষ হয়ে যাওয়ার পর ত্বকে পুনঃপুন ছত্রাক সংক্রমণ ঘটতে থাকে। এটাই ছত্রাক মহামারি। এই ছত্রাক সংক্রমণ আগে খুব সহজেই চিকিৎসায় ১০০% ভালো হত। অথচ তা এখন নিরাময়ের অযোগ্য হয়ে উঠেছে।

অন্তত ৫০% ক্ষেত্রে এই ছত্রাক সংক্রমণ এখন আর চিকিৎসায় ভালো হচ্ছে না। যেসব ওষুধ আগে ছত্রাক সংক্রমণের চিকিৎসায় কার্যকর ছিল সেসবও এখন আর কাজ করছে না।

রোগী এবং চিকিৎসকরা ব্যাপকহারে স্টেরয়েড ক্রিম ব্যবহার করায় এর রোগ প্রতিরোধী ক্ষমতা কমে গেছে।

ছত্রকানাশক ওষুধের বিক্রি বাড়ছে
ছত্রাকনাশক ওষুধের উচ্চমাত্রার ও দীর্ঘমেয়াদি ডোজ বিক্রিতে কোনো বিধি-নিষেধ নেই। ২০১৩ সালে শুধু ভারতেই ১৪ হাজার কোটি টাকার টপিক্যাল স্টেরয়েড ক্রিম বিক্রি হয়েছে।

স্টেরয়েড ক্রিমে ছত্রাকনাশক ও ব্যাকটেরিয়া নাশকের অযৌক্তিক সমন্বয় সাধনও ছত্রাকের মহামারি প্রাদুর্ভাবের জন্য দায়ী। আর দীর্ঘমেয়াদে স্টেরয়েড ক্রিম ব্যবহারের ফলে নানা পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া এবং রোগের বিকৃতিও ঘটছে।

পোশাক-আশাক ও সংক্রমণ
চর্মবিশেষজ্ঞরা এও বলেছেন, সঠিক পোশাক না পরার কারণেও ছত্রাক সংক্রমণের হার বাড়ছে। সাধারণত বেশির ভাগ চর্মরোগই বংশপরম্পরায় কাউকে আক্রান্ত করে। তবে যারা বেশি আঁটোসাঁটো পোশাক পরেন, বিশেষ করে যারা জিন্স পরেন তাদেরকে নিরাময়ের অযোগ্য ছত্রাক সংক্রমণে আক্রান্ত হতে দেখা যায় বেশি।

যারা বেশি বেশি জিন্স পরেন তাদের দেহে ছত্রাকের সংক্রমণ হলে তা চিকিৎসায় ভালো তো হয়না বরং আরো প্রকট রুপ ধারণ করে। কারণ জিন্স কাপড়ের পোশাক-আশাক ভারতীয় উপমহাদেশের আবহাওয়া, পরিবেশ এবং প্রাণ ও প্রকৃতির উপযোগী নয়। জিন্সের কাপড় মূলত ইউরোপ-আমেরিকার আবহাওয়া, পরিবেশ এবং প্রাণ ও প্রকৃতির উপযোগী করে তৈরি করা হয়েছে। যা ভারতীয় উপমহাদেশের মানুষদের জন্য একদমই উপযোগী নয়।
সূত্র : দ্য হিন্দু


মন্তব্য