kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ৮ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৭ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


ল্যাসিক করার আগে যে ৮টি জিনিস জানতে হবে

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ১৬:৪১



ল্যাসিক করার আগে যে ৮টি জিনিস জানতে হবে

আপনি হয়তো চোখে চশমা বা কন্টাক্ট লেন্স পরতে পরতে ঝামেলার কারণে এখন বিরক্ত হয়ে পড়েছেন। সকালে ঘুম থেকে ওঠার পর থেকেই হয়তো আপনি সবকিছু পরিষ্কার করে দেখতে চান।

এর একটাই সমাধান ল্যাসিক করান।
কিন্তু এখন হয়তো আপনি প্রশ্ন করতে পারেন ল্যাসিক করালে ঠিকমতো দেখতে কতদিন সময় লাগবে? এতে কী ব্যাথা লাগবে? এটি কী কী সমস্যার সমাধানে কাজ করবে? তাহলে পড়ুন ল্যাসিক করানোর আগে আপনাকে যে বিষয়গুলো জানতে হবে:
ল্যাসিক কীভাবে করা হয়?
চোখে অবশকরন ড্রপ দেওয়ার পর আপনার আই সার্জন আপনার চোখের কর্নিয়া থেকে একটি পাতলা ছাল উঠিয়ে নেবেন। এরপর একটি লেজার দিয়ে কর্নিয়ার টিস্যুগুলোকে পুনঃআকার দান করা হবে। পাতলা ছালটির জায়গায় একটি স্থায়ী লেন্স লাগিয়ে দেওয়া হবে। এর অল্প সময়ের মধ্যেই আপনি স্বাভাবিকভাবে দেখতে পারবেন।
কারা এই প্রক্রিয়ায় চিকিৎসা পেতে পারেন?
সাধারণ দৃষ্টি সমস্যা- কাছের ও দূরের জিনিস না দেখা এবং বিষমদৃষ্টিতে আক্রান্তরা ল্যাসিক করাতে পারেন। তবে আপনি ল্যাসিক করানোর জন্য যোগ্য কিনা তা নিশ্চিত হওয়ার জন্য প্রথমে কোনো চক্ষু বিশেষজ্ঞের কাছে গিয়ে পরীক্ষা করান।
ল্যাসিক করানোর আগে নিশ্চিত হতে হবে যে, আপনার চোখের কর্নিয়া অপরিবর্তনশীল, চোখ শুকিয়ে যাওয়া বা এ ধরনের কোনো মারাত্মক সমস্যা নেই।
প্রেসবায়োপিয়ার মতো সমস্যার সমাধানেও ল্যাসিক করানো যেতে পারে। বয়স বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে এই সমস্যা দেখা দেয়।
সাফল্যের হার কত?
অ্যামেরিকান অ্যাকাডেমি অফ অপথ্যালমোলজির মতে ৯০% ল্যাসিক রোগী ২০/২০ এবং ২০/৪০ ভিশনে আটকে থাকেন। ফলে ল্যাসিক করানোর পরও সংশোধনমূলক ল্যান্স ব্যবহারের দরকার হতে পারে।
২০১৩ সালে যুক্তরাষ্ট্রের কনজ্যুমার রিপোর্টস ন্যাশনাল রিসার্চ সেন্টার এর এক জরিপে দেখা গেছে, ৫০ শতাংশেরও বেশি ল্যাসিক করানো লোকদেরকে মাঝেমধ্যেই চশমা বা কন্টাক্ট ল্যান্স ব্যবহার করতে হয়। তবে ৮০% জানিয়েছেন তারা ল্যাসিক করিয়ে “পুরোপুরি” বা “খুবই সন্তুষ্ট”।
ঝুঁকিগুলো কী?
লেজার দিয়ে চোখে গর্ত করার কথা শুনে হয়তো আপনি আঁতকে ‍উঠতে পারেন। কিন্তু এই প্রক্রিয়া সম্পূর্ণ নিরাপদ। বিপত্তির ঝুঁকিও সর্বোচ্চ এক শতাংশ।
তবে যাদের চোখে তীব্র শুষ্কতা এবং দৃষ্টিশক্তি হারানোর মতো সমস্যা রয়েছে তারা ল্যাসিক করালেও কোনো সুফল পাওয়া যাবে না।
অনেক রোগীর আবার ল্যাসিক করানোর পর একদৃষ্টি, বর্ণবলয় তৈরি হওয়া এবং দ্বৈত দৃষ্টির মতো সমস্যার সৃষ্টি হয়েছে। যার ফলে রাতে বা কুয়াশার সময় দৃষ্টি সমস্যা দেখা দেয়।
ল্যাসিক করানোর কতক্ষণ পর স্বাভাবিকতা ফিরে আসে?
ল্যাসিক করানোর পর বাড়ি ফেরার জন্য কারো সহায়তা লাগতে পারে। তবে পরদিন থেকেই আপনি স্বাভাবিক জীবনের কর্মকাণ্ডে ফিরে যেতে পারবেন।
খরচ পড়বে কত?
ল্যাসিক ডটকমের মতে, এতে খরচ পড়বে প্রতি চোখে ২৯৯ ডলার। সর্বোচ্চ ৪ হাজার ডলার খরচ পড়তে পারে।
ল্যাসিক ছাড়া আর কী করানো যায়?
ইপিআই ল্যাসিকও একই ধরনের একটি লেজার চিকিৎসা পদ্ধতি। এতে ঝুঁকিও আরো কম। এ কারণেই বেশি লোকে এখন ইপিআই ল্যাসিক করাচ্ছে। তবে ইপিআই ল্যাসিকের পর স্বাভাবিক হতে বেশি সময় লাগে। এটি করানোর চারদিন পর গাড়ি চালানো যায় আর ১১ দিন পর পরিষ্কার করে দেখতে পাওয়া যায়।
ল্যাসিকের জন্য ভালো ডাক্তার পাওয়া সম্ভব কীভাবে?
অনেক কম্পানিই সস্তায় লেজার আই সার্জারির অফার দিয়ে থাকে। কিন্তু সস্তা অফারের লোভে না পড়ে বরং অভিজ্ঞতা সম্পন্ন ডাক্তারের কাছে এবং প্রতিষ্ঠানে যাওয়াই নিরাপদ হবে।
সূত্র: ফক্স নিউজ


মন্তব্য