kalerkantho


নানা আয়োজনে বিভিন্ন দেশে গুড ফ্রাইডে

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২৬ মার্চ, ২০১৬ ০০:৫৪



নানা আয়োজনে বিভিন্ন দেশে গুড ফ্রাইডে

গুড ফ্রাইডে। যিশু খ্রিস্টকে ক্রুসবিদ্ধ করার এই দিনটিকে জার্মানরা স্মরণ করে বেদনাময় দিন হিসেবে। তবে অনেকেই মনে করেন, গুড ফ্রাইডে শব্দটি আসলে গডস ফ্রাইডের এক ধরনের সংস্করণ। তবে মানে যাই হোক, বিশ্বের খ্রিস্টানদের জন্য একটি পবিত্রতম দিন এই গুড ফ্রাইডে। জার্মানি, মেক্সিকো, ইতালি ও ভ্যাটিকান সিটিতে নানা আয়োজনে প্রতি বছর উদ্‌যাপিত হয়ে থাকে দিনটি। এদিকে, দিবসটি উপলক্ষে ভ্যাটিকান প্রাসাদে আয়োজন করা হয় বিশেষ প্রার্থনা অনুষ্ঠান। প্রতি বছর এই পবিত্র দিনটিতে জার্মানির বেনশেইমের রাজপথে মঞ্চায়িত হয়ে থাকে যিশু খ্রিস্টকে নির্মমভাবে ক্রুসবিদ্ধ করার করুণ দৃশ্যটি। দৃশ্যটি ঠিক এরকম- ৯০ জন রোমান সেনা প্রস্তুত। হাজারো মানুষের চোখের সামনে গ্রেপ্তার করা হল প্রভু যিশুকে। হাজির করা হল স্মরণকালের সবচেয়ে ভয়াবহ শাস্তি দেওয়ার জন্য। তারপর ক্রুসবিদ্ধ করে নির্মমভাবে হত্যা করা হল তাঁকে। গুড ফ্রাইডে স্মরণে কয়েক হাজার দর্শকের উপস্থিতিতে অপেশাদার অভিনেতার উপস্থাপনায় রচিত হয়ে থাকে খ্রিস্টানদের জন্য চরম বেদনাদায়ক এই ইতিহাস। প্রায় ৩০ বছর ধরে বিশেষ এই দিনে জার্মানিতে বসবাসরত ইতালীয় সম্প্রদায়ের মানুষ এই নাটকটির দৃশ্যায়ন করে আসছে। জার্মানরা বলেন, প্রতি বছরই দেখছি নাটকটি। প্রতিবারই হৃদয় ছুঁয়ে যায়। এই দিনটি যদিও বেদনার, তবু এই মিউজিক্যাল ড্রামার মধ্য দিয়ে ইস্টার সানডের আগেই উৎসবের পরিবেশ তৈরি হয়। এই নাটকটির পেছনে যে ইতিহাস রয়েছে, তা আমাদের বিশ্বাসের ওপর ভিত্তি করেই জীবন্ত। যাঁরা নিয়মিত চার্চে যান না, প্রার্থনা করেন না, তাঁদের বিশ্বাসেও যেন নাড়া দিয়ে যায় এই ঐতিহ্যবাহী নাটক। এদিকে, প্রভু যিশুর হত্যাকাণ্ডকে স্মরণ করে গুড ফ্রাইডে উপলক্ষে ভ্যাটিকানে আয়োজন করা হয় বিশেষ প্রার্থনার। বিশ্বের বিভিন্ন দেশে ধর্মীয় সহিংসতাকে নিন্দা জানিয়ে বলা হয়, শুধু যিশু নন, তাঁর অনুগত খ্রিস্টানরাও যুগ যুগ ধরে এই ভাবেই নানান অত্যাচারের বলি হয়ে আসছে। প্রধান ধর্মযাজকের প্রচারক রমখানিরো ক্যান্ডালামেসা জানিয়েছেন, ‘‌পুরো বিশ্বে এখন যে সহিংসতা চলছে, তার শিকার হচ্ছেন সাধারণ মানুষ। শুধু খ্রিস্টান নয়, জাতি-‌ধর্ম নির্বিশেষে মানবতা এখন হুমকির মুখে। কেনিয়ান খ্রিস্টানদের যেভাবে হত্যা করা হয়েছিল, আমরা তা প্রত্যক্ষ করেছি। আসুন, পবিত্র এই দিনে আমরা সব ধরনের সহিংসতা ভুলে শান্তির বাণী পৌঁছে দিই। আর মেক্সিকোতে গুড ফ্রাইডে স্মরণে প্রতি বছর বিশাল রংয়ালি বের করেন দেশটির খ্রিস্ট ধর্মপ্রাণ নাগরিকেরা। ক্রুসবিদ্ধ যিশুর মূর্তি নিয়ে রাজপথে মিছিল করেন তাঁরা। ধর্মীয় নানা আচার-‌অনুষ্ঠানের পাশাপাশি নাটক ও সঙ্গীতের মাধ্যমে পালিত হয়ে থাকে পবিত্র এই দিনটি। আয়োজকরা জানিয়েছেন, গুড ফ্রাইডে ও যেদিন যিশুর পুনরুত্থান ঘটেছিল, সেই ইস্টার সানডেতে সপ্তাহব্যাপী উৎসবমুখর থাকে মেক্সিকো। ‌‌

সূত্র: আজকাল


মন্তব্য