kalerkantho

সোমবার। ২৩ জানুয়ারি ২০১৭ । ১০ মাঘ ১৪২৩। ২৪ রবিউস সানি ১৪৩৮।


সম্পর্ক নষ্ট হওয়ার সম্ভাবনা কতখানি, উঠে এল পরিসংখ্যানে

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২০ মার্চ, ২০১৬ ১৭:৪১



সম্পর্ক নষ্ট হওয়ার সম্ভাবনা কতখানি, উঠে এল পরিসংখ্যানে

সম্পর্ক কতদিন টিকে থাকবে কিংবা থাকবে না, তা অনেকের কাছেই সম্পূর্ণ অনিশ্চিত বিষয়। এক্ষেত্রে পূর্বানুমাণ করা প্রায় অসম্ভব একটি বিষয়।

তবে আপনার সম্পর্ক নষ্ট হয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা কতখানি তা কিছু পরিসংখ্যানের মাধ্যমে জানা যায়। এ বিষয়ে দীর্ঘদিন গবেষণা করেছেন যুক্তরাষ্ট্রের স্ট্যানফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজবিজ্ঞানী মাইকেল রোসেনফেল্ড। এক প্রতিবেদনে বিষয়টি তুলে ধরেছে ইন্ডিপেনডেন্ট।
বহু মানুষেরই সম্পর্ক যেন তারকার মতো। তা কখনো জ্বলে ওঠে আবার কখনো বা অনুজ্জ্বল হয়ে পড়ে। যাদের সম্পর্ক আপনি আদর্শ বলে মনে করছেন, তা হঠাৎ করেই ভেঙে খানখান হয়ে পড়ে। গবেষক রোসেনফিল্ড এ সম্পর্কের বিষয়গুলো নিয়েই দীর্ঘদিন ধরে অনুসন্ধান করেন। তিনি জানতে চান, মানুষের সম্পর্ক ভেঙে ফেলার হার কতখানি? বিবাহিত দম্পতি, অবিবাহিত জুটি, সমকামি জুটি কিংবা বিপরীতকামী জুটির মাঝেই বা কী পার্থক্য? এসব বিষয় উঠে এসেছে পরিসংখ্যানে। তার গবেষণা শুরু হয় ২০০৯ সালে।
গবেষণাটির জন্য তিন সহস্রাধিক ব্যক্তিকে অন্তর্ভুক্ত করেন রোসেনফিল্ড। তিনি জানান, এ গবেষণায় বেশ কিছু চমকপ্রদ তথ্য তিনি উদঘাটন করতে পেরেছেন।
মানুষের সম্পর্ক টিকে থাকার সম্ভাবনা কতখানি তা একটি চিত্র দেখলেই বোঝা যায়। বিবাহিত ও অবিবাহিত জুটির মাঝেও রয়েছে পার্থক্য। এ পার্থক্য অনেক সময় বেশ বড় হয়ে দেখা দেয়। একই বিষয় প্রযোজ্য সমকামী ও বিপরীতকামী জুটির মাঝেও।
দেখা গেছে, পাঁচ বছর যে বিবাহিত সমকামী দম্পতি একত্রে থাকে তাদের ক্ষেত্রে বিচ্ছেদের সম্ভাবনা আট শতাংশ থাকে। অন্যদিকে তারা যদি কমপক্ষে ২০ বছর একত্রে থাকে তাহলে বিচ্ছেদের সম্ভাবনা এক শতাংশ থাকে। কাছাকাছি বিষয় প্রযোজ্য বিপরীতকামী বিবাহিত দম্পতিদের ক্ষেত্রে। এক্ষেত্রে এ হার থাকে তিন শতাংশ ও এক শতাংশের কম।
অন্যদিকে অবিবাহিত জুটিদের ক্ষেত্রে বিচ্ছেদের এ হার অনেক বেশি। এক্ষেত্রে বিয়ে তাদের বিচ্ছেদের হার কমিয়ে আনে বলে জানান গবেষকরা। এমনকি তারা একত্রে ২০ বছর থাকলেও বিচ্ছেদের সম্ভাবনা বেশি থাকে।
এ বিষয়ে রোসেনফিল্ড জানান, ‘জুটিরা একত্রে যত বেশিদিন থাকবে ততই তারা নানা বাধা-বিপত্তি একত্রে পার হওয়ার অভিজ্ঞতা লাভ করে। এতে একত্রে বেশি সময় পার হওয়ার অভ্যাস তৈরি হয়। তারা বেশি সময় একত্রে অতিবাহিত করায় তাদের সম্পর্কও বেশি ঘনিষ্ঠ হয়, যা তাদের একত্রে থাকার অনুপ্রেরণা দেয়। ’


মন্তব্য