kalerkantho


নারীদের প্রতিদিন যে খাবার খাওয়া জরুরি

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৭ মার্চ, ২০১৬ ১৭:৪৯



নারীদের প্রতিদিন যে খাবার খাওয়া জরুরি

ইন্ডিয়ান কাউন্সিল অব মেডিক্যাল রিসার্চের এক পরিসংখ্যানে বলা হয়, ৫০ শতাংশের বেশি নারীর দেহে আয়রনের ঘাটতি রয়েছে। আরেক গবেষণায় বলা হয়, ৫৯ শতাংশ নারী অ্যানেমিয়াল ভুগছেন। আর প্রতি ১০ জনের ৭ জন নারীর দেহে ভিটামিন ডি-এর ঘাটতি রয়েছে। বিশেষজ্ঞদের মতে, নিঃসন্দেহে সুষম খাদ্য তালিকার কারণে এমনটা হয়।

সেলিব্রিটি পুষ্টিবিশারদ সন্ধ্যা গুগনানি জানান, নারীদের সুস্বাস্থ্যের জন্যে আদর্শ খাদ্য তালিকা খুবই জরুরি। বিশেষ করে গর্ভাবস্থা ও মেনোপজের সময় সুষম পুষ্টি অতি জরুরি। এ ছাড়াও প্রতিমাসে পিরিয়ড চলাকালীন খাদ্য তালিকা বুঝে শুনে তৈরি করতে হবে। এখানে বিশেষজ্ঞরা এমন খাবারের তালিকা দিয়েছেন যা নারীদের প্রতিদিনই খাওয়া উচিত।

১. রসুন : এতে আছে ভিটামিন বি৬ ও সেলিনিয়াম। উচ্চ রক্তচাপ প্রশমিত করে। কোলেস্টরেলের মাত্রাও কমিয়ে দেয়। আছে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট যা বিশেষ ধরনের ক্যান্সার ও বলিরেখা দূর করে। হাড়ের স্বাস্থ্যও ভালো করে।

২. আদা : ব্যথা ও প্রদাহ দূর করে। হৃদযন্ত্রের যত্ন নেয়। ঠাণ্ডা-সর্দি দূর করে। বলা হয়ে থাকে, আদা প্রাকৃতিক উপায়ে ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে রাখে। প্রতিদিন খেলে কোলন ক্যান্সারের ঝুঁকি কমায়।

৩. দই : এতে ক্যালসিয়াম ও ভিটামিন ডি রয়েছে। হাড় ও দাঁত শক্ত করে। রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে রাখে। হজমে সহায়ক। রক্তে কোলেস্টরেলের পরিমাণ কমায়।

৪. কমলা : ভিটামিন সি-এর দারুণ এক উৎস। রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করে। ত্বকে বলিরেখা পড়তে বাধা দেয়। চোখের যত্ন নেয়। ক্যান্সার প্রতিরোধে সহায়তা করে। ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণেও সহায়ক।

৫. তিসি : ফাইবারের ভালো উৎস। কোষ্ঠ কাঠিন্য দূর করে। তিসির তেলে রয়েছে ওমেগা-৩ ফ্যাটি এসিড যা কোলেস্টরেল নিয়ন্ত্রণ করে। আরো আছে ম্যাগনেশিয়াম যা হাড়ের জন্যে উপকারী। স্তন ক্যান্সার প্রতিরোধেও কাজ করে এই খনিজ উপাদান।

৬. আমলকি : কার্বোহাইড্রেটের উন্নত উৎস। ডায়েটিং ফাইবার, ভিটামিন সি এবং খনিজ সরবারাহ করে। অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট আছে। চুলের জন্যে খুবই উপকারী। ক্যন্সার প্রতিরোধ করে এবং কোলেস্টরেল কমায়।

৭. বিটের মূল : অ্যান্টিঅক্সিডেন্টের অন্যতম সেরা উৎস। রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ করে। কোলেস্টরেলের পরিমাণও প্রয়োজনমতো ধরে রাখে। ফলিক এসিড, আয়রন, জিঙ্ক, ম্যাগনেশিয়াম, পটাশিয়াম, ভিটামিন সি এবং ফাইবারের উৎস। ওজন নিয়ন্ত্রণেও সহায়তা করে।

৮. বিন : শীম বা বিন জাতীয় খাবার হৃদযন্ত্রের জন্যে উপকারী। নিম্নমাত্রার ফ্যাট রয়েছে। ফাইবারসমৃদ্ধ খাবার। এটা প্রোটিনের ভালো উৎস। রক্তে চিনির মাত্রা নিয়ন্ত্রণ করে। ক্যান্সারের ঝুঁকি কমায়।

৯. মিষ্টি আলু : ফাইবার রয়েছে যা হজমে সহায়তা করে। হৃদযন্ত্রের জন্যে উপকারী। বেটা ক্যারোটিন আছে। এ ছাড়া ভিটামিন সি, ই এবং অ্যান্টিঅক্সিডেন্টও রয়েছে প্রচুর। সূত্র : টাইমস অব ইন্ডিয়া

 


মন্তব্য