kalerkantho

শুক্রবার । ৯ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৮ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


খালি আলু খেয়ে বাঁচতে চাইলে যা যা হবে

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১২ মার্চ, ২০১৬ ০০:৪১



খালি আলু খেয়ে বাঁচতে চাইলে যা যা হবে

কেউ রোগা হতে চাইলে ডায়াটেশিয়ান প্রথমেই যে পরামর্শটি দেন, খাদ্যতালিকা থেকে আলু বাদ দিন। বাদ দিন বললেই কি আর বাদ দেওয়া যায়! এমন অনেকেই আছেন, যাঁরা আলু ছাড়া ভাবতেই পারেন না।

তাতে মুটিয়ে গেলেও কুছ পরোয়া নেই। তেমনই একজন আলুপ্রেমী অ্যান্ড্রু টেলর। অস্ট্রেলীয় এই নাগরিক যেটা করেছিলেন, তা আবার অনেকের কাছেই বাড়াবাড়ি। টানা কিছুদিন আলু ছাড়া ​সারাদিনে অন্য কিছু মুখেই দেননি। অবশ্যই সেটা ছিল তাঁর নিরীক্ষা। নিজেই নিজেকে গবেষণার গিনিপিগ বানিয়েছিলেন। তা হোক, শেষ পর্যন্ত রেজাল্ট দেখে অ্যান্ড্রু নিজেই ঘাবড়ে যান। আলু খেয়েও তা হলে রোগা হওয়া যায়!

হ্যাঁ যা, জোর গলাতেই এই দাবি করতে পারেন এই অস্ট্রেলীয়। তাঁর কথায়, অনেক কিছু করেই ওজন কমানো যায়। কিন্তু, হাতের কাছে আলু থাকলেও, আমরা ওজন কমাতে আলুকেই ব্রাত্য করে রাখি। বছর চৌত্রিশের এই অস্ট্রেলীয়র দাবি, একমাস আলু খেয়ে তাঁর ১২ পাউন্ড ওজন কমেছে। কিন্তু, এর পরেও যেটা মনে রাখতে হবে, খুব দ্রুত ওজন কমানোও শরীরের পক্ষে উপযুক্ত নয় । তাতে ত্বকে ঢিলেঢালা ভাব আসতে পারে।

অ্যান্ড্রু অবশ্য নিজের উপর এই পরীক্ষা চালানোর আগে ডাক্তার ও পুষ্টিবিদের সঙ্গে আলাদা ভাবে কথা বলে নিয়েছিলেন। সম্ভাব্য সব দিক জেনেই সিদ্ধান্ত নেন শুধু আলু খেয়ে সামনের কিছুদিন কাটাবেন। অ্যান্ড্রুর কথায়, শুধু আলু খেয়ে একঘেয়েমি লাগতেই পারে। আমারও লেগেছিল। তবে, পুষ্টির দিক থেকে কিন্তু কোনও ঘাটতি হয়নি।

ডায়াটেশিয়ানরা ওজন কমাতে আলুর কথা উল্লেখ না-করলেও, তার মানে এই নয়, আলু শরীরের পক্ষে ভালো নয়। বরং, আলু পুষ্টির দিক থেকে অনেকটাই গুরুত্বপূর্ণ।

কারণ কার্বোহাইড্রেট ছাড়াও ফসফরাস, ম্যাগনেসিয়াম, জিঙ্ক, পটাসিয়াম, ভিটামিন বি ও সি থাকে আলুতে। ফলে, আলু খেয়ে মেদ ঝরানোর পাশাপাশি উচ্চরক্তচাপ কমানো যায়। এমনকী অকাল বার্ধক্যও এড়ানো যায়। মস্তিষ্ককে সচল রাখতেও আলু খাওয়াটা জরুরি।

কিডনির স্টোনের চিকিত্‍‌সাতেও আলু ভালো কাজ দেয়। আলুর মধ্যে থাকা ম্যাগনেসিয়াম জমাট বেঁধে থাকা ক্যালসিয়ামকে ভেঙে দেয়।

তা ছাড়া যাঁরা অনিদ্রায় ভোগেন, রাতে শুতে যাওয়ার আগে কয়েকটা আলু সেদ্ধ খান। ভালো ঘুম হবে।

সূত্র: এই সময়


মন্তব্য