পেশাদার সুনাম অর্জনে ৭ পরামর্শ-334036 | জীবনযাপন | কালের কণ্ঠ | kalerkantho

kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ২৯ সেপ্টেম্বর ২০১৬। ১৪ আশ্বিন ১৪২৩ । ২৬ জিলহজ ১৪৩৭


পেশাদার সুনাম অর্জনে ৭ পরামর্শ

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৯ মার্চ, ২০১৬ ১৮:১০



পেশাদার সুনাম অর্জনে ৭ পরামর্শ

নতুন ক্যারিয়ার শুরু করতে গিয়ে সময়ের বড় একটা অংশ ব্যয় হয় সুনাম অর্জনের পেছনে। বিশেষ করে নতুন উদ্যোক্তাদের সুনাম অর্জন ভবিষ্যতে এগিয়ে যাওয়ার অন্যতম অস্ত্র। সুনাম যত বেশি হয়ে ছড়াবে, প্রতিষ্ঠান তত সামনে এগোবে। নতুন প্রতিষ্ঠানের সুনামকে চূড়ায় নিতে বিশেষজ্ঞরা দিয়েছেন বেশ কিছু পরামর্শ।

ব্যবসায় প্রথম কয়েকজন ক্লায়েন্ট পাওয়ার পর আপনি তাদের কাছে সম্পূর্ণ নতুন এক মুখ। তারা আপনার ওপর একটা ঝুঁকি নিতে এসেছেন এবং প্রমাণ চান যে আপনি তাদের চাহিদা মেটাতে সক্ষম। তাদের ঝুঁকি নেওয়ার মানসিকতার মূল্য আপনি কতটা দিলেন, তার ওপর আপনার সফলতা নির্ভর করে। প্রতিষ্ঠানের কার্যক্রম শুরুর প্রথম দিকেই আপনার সুনামের ভিত গড়তে হবে। এতে সফল হলে বাকিটুকু দ্রুততার সঙ্গে এগিয়ে নেওয়া সম্ভব। বিষয়টা অনেকটা ক্রেডিট কার্ডের মতো। ক্রেডিট রেটিং যত ভালো হবে, আপনি অর্থপ্রদানকারী প্রতিষ্ঠানের কাছে তত ভালো ক্লায়েন্ট।

তাই প্রাথমিক অবস্থাতেই আপনার ব্যবসার সুনাম অর্জন করতে হবে। এর কিছু উপায় শিখে নিন।

১. প্রচার করুন : মোটেও বাহাদুরির সুরে নয়, বরং উদ্যমী হয়ে ব্যবসার প্রচার চালান। কথা বলার সময় ইতিবাচক বাক্যের প্রয়োগ করুন। এমন বক্তব্য দেবেন না যে, তা কেবল নিজের প্রশংসা বলে মনে হয়।

২. পরিচিত বা অপরিচিত মহলে কিছুটা বন্ধুসুলভ ভাষায় একটা ইমেইল পাঠিয়ে দিন। প্রতিষ্ঠান কি নিয়ে কাজ করছে তার হালকা বর্ণনা দিন। ইমেইল পড়ে যেন প্রাপক বোঝেন আপনি করছেন এবং কি উপায়ে ক্লায়েন্টকে সেবা দিতে পারবেন।

৩. প্রতিষ্ঠানের পাবলিক রিলেশন বিভাগটাকে শক্তিশালী করুন। মানুষের সঙ্গে যোগাযোগ স্থাপন করুন। তাদের নিয়ে মিটিংয়ের ব্যবস্থা করুন।

৪. প্রেস রিলিজ পাঠানো মোটেও কঠিন কোনো কাজ নয়। বড় ধরনের ক্লায়েন্ট পেয়ে দ্রুত একটি প্রেস রিলিজ পাঠিয়ে দিন। এটা স্থানীয় কোনো পত্রিকায় বা অ্যালুমনি ম্যাগাজিনে প্রকাশের ব্যবস্থা করুন। এতে ক্লায়েন্টের কাছে আপনার ভাবমূর্তি বৃদ্ধি পাবে।

৫. বন্ধুমহলকে যেকোনো কাজে পাশে পাবেন। ব্যবসায় এগিয়ে যেতে তাদের সহায়তা নিন। কি করতে চাইছেন এবং কি ধরনের সহায়তা চান তা পরিষ্কার করুন।

৬. ইতিবাচক মানুষের মাঝে থাকুন। নেতিবাচক মানসিকতার মানুষ আপনাকে পিছিয়ে দেবে।

৭. যে ক্লায়েন্টরা আপনার সঙ্গে কাজ করতে চান বা আগ্রহী তাদের সঙ্গে কাজ করার সুযোগ পেয়ে আপনি আনন্দিত-  এমন বক্তব্যের কোনো চিঠি পাঠিয়ে দিন। এর মাধ্যমে তুলে ধরুন, আপনি তাদের সঙ্গে আজীবন কাজ করতে চান। ক্যারিয়ারের সুনাম গড়ে তোলা কঠিন বিষয়। এটা একটা ধারাবাহিক প্রক্রিয়া। শুরুটা ভালো হলে বাকিটুকু অনেকটা সহজ হয়ে যায়। সূত্র : বিজনেস ইনসাইডার  

 

মন্তব্য