kalerkantho


যন্ত্রণাময় শুষ্ক চোখের কারণ ও প্রতিকার জেনে নিন

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৯ মার্চ, ২০১৬ ১৩:২৯



যন্ত্রণাময় শুষ্ক চোখের কারণ ও প্রতিকার জেনে নিন

কম্পিউটারের সামনে কাজ করতে গিয়ে কিংবা দিনের অন্যান্য সময়ে অনেকেই চোখের যন্ত্রণার শিকার হন। অনেকেরই চোখ অতিরিক্ত শুকিয়ে যায় এবং তাতে চুলকানি ও জ্বালাপোড়া হয়ে থাকে। এ লেখায় রয়েছে চোখের যন্ত্রণার কিছু কারণ ও প্রতিকার। এক প্রতিবেদনে বিষয়টি জানিয়েছে গার্ডিয়ান।
শুষ্কতার কারণে চোখের যন্ত্রণা
অতিরিক্ত ক্লান্তিভাবের কারণে চোখ কিছুটা লালাভ রং ধারণ করে। এ অবস্থায় চোখের চুলকানি হয় এবং চোখ ফুলে যেতে পারে। এ লক্ষণ মিলে গেলে আপনার চোখে ‘ব্লেফারিটিস’ হয়েছে বলে ধরতে হবে। এতে চোখ, চোখ সংলগ্ন ত্বক, মেইবোমিয়ান গ্ল্যান্ড ও চোখের পর্দা প্রভাবিত হতে পারে। সবারই এ রোগটি হতে পারে। তবে ৫০ বছর বয়সে এ রোগটি হওয়ার আশঙ্কা সবচেয়ে বেশি। এ রোগে আক্রান্তদের অর্ধেকেরই শুষ্ক চোখ সমস্যা থাকে। মূলত চোখের জল যদি সঠিকভাবে কাজ করতে না পারে তাহলে এমনটা হতে পারে। সকালে ঘুম থেকে ওঠার পর আপনার চোখ যদি অস্বস্তিকর অবস্থার সম্মুখিন হয় তাহলে এ সমস্যার আশঙ্কা বেশি থাকে।
চোখের ডাক্তারের সহায়তা
যুক্তরাজ্যের কলেজ অব অপ্টোমেট্রিস্ট-এর ক্লিনিকাল পরামর্শক ড্যানিয়েল হার্ডিম্যান বলেন শুষ্ক চোখ সমস্যায় চোখের যন্ত্রণা, দৃষ্টিশক্তি কমে যাওয়া ও অস্বস্তিকর অনুভূতি হতে পারে। এ ধরনের সমস্যা কারো হলে দ্রুত চোখের ডাক্তারের পরামর্শ নেওয়া উচিত।
এ সমস্যার সাধারণত সম্পূর্ণ নিরাময় হয় না তবে চিকিৎসার মাধ্যমে পরিস্থিতি স্বাভাবিক করা যায়। অধিকাংশ ক্ষেত্রেই চিকিৎসায় চোখের লুব্রিকেটিং ড্রপসসহ অন্য কয়েকটি উপায় ব্যবহার করতে পারেন চিকিৎসক। এতে দুই থেকে চার সপ্তাহের মধ্যেই চোখের অস্বস্তি দূর হয় এবং দৃষ্টিশক্তি স্বাভাবিক হয়।
কম্পিউটার কি ব্যবহার করা যাবে?
কম্পিউটারের দিকে তাকিয়ে থাকলে আমরা স্বাভাবিকের তুলনায় কম চোখের পাতা ফেলি। এতে চোখের ওপরের অংশে যে জলীয় পদার্থ থাকে তা উড়ে যায় এবং চোখ শুষ্ক হয়ে যায়। ফলে তা যনন্ত্রণাদায়ক হয়ে ওঠে। এ কারণে আপনি যদি একটি ছুটি কাটান কিংবা কম্পিউটার বাদে অন্য কোনো কাজে ব্যস্ত থাকেন তাহলে চোখের উন্নতি হবে। কম্পিউটার ব্যবহার বাদ দিয়ে যদি উপকার পাওয়া যায় তাহলে আপনার চোখের ব্লেফারিটিস সমস্যার বিষয়টি সন্দেহ করা যায়। আর এতে কম্পিউটার সম্পূর্ণ বাদ না দিলেও কয়েকটি সতর্কতা অবলম্বন করা যায়। যেমন কম্পিউটার ব্যবহারে ঘন ঘন বিরতি নেওয়া ও চেয়ারে বসার ব্যবস্থা পরিবর্তন।
শুষ্ক চোখ প্রতিরোধের উপায়
কম্পিউটার ব্যবহার করার কারণে চোখের এ সমস্যা হলে তা ব্যবহার সীমিত করতে হবে। এছাড়া অন্যান্য কারণের মধ্যে থাকতে পারে নির্দিষ্ট ওষুধ গ্রহণ, কন্টাক্ট লেন্স ব্যবহার, বয়স বৃদ্ধি, ডায়াবেটিস ও থাইরয়েড সমস্যা। এছাড়া চোখের সংক্রমণ থেকেও এ রোগটি হতে পারে। এ ধরনের ক্ষেত্রে চোখের শুষ্কতার সমস্যা দূর করতে হলে চিকিৎসকের পরামর্শ নিয়ে সমস্যাগুলো নিয়ন্ত্রণ করতে হবে।


মন্তব্য