kalerkantho

শনিবার । ১০ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৯ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


সামাজিকতায় বলুন হালকা কথাবার্তা

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৬ মার্চ, ২০১৬ ১১:০৩



সামাজিকতায় বলুন হালকা কথাবার্তা

সামাজিক বিভিন্ন পরিস্থিতিতে অনেকেই অস্বস্তির শিকার হন কিংবা নার্ভাস হয়ে পড়েন। এ সময় খুব একটা গুরুত্বপূর্ণ কিংবা অর্থবহ নয় এমন কিছু কথাবার্তা পরিস্থিতি স্বাভাবিক করতে ভূমিকা রাখে।

তাই এ ধরনের হালকা কথাবার্তার গুরুত্বের কথা জানান বিভিন্ন বিশেষজ্ঞরা। এ লেখায় থাকছে তেমন কয়েকটি বিষয়।
১. অস্বস্তিকর পরিস্থিতি দূর করতে
সামাজিক কোনো অনুষ্ঠানে অনেকেই আশপাশের কারো সঙ্গে কথাবার্তা না বলে একেবারে গম্ভীর হয়ে যান। এ ধরনের পরিস্থিতিতে একে অন্যের সঙ্গে যোগাযোগ বন্ধ হয়ে যায় এবং পরস্পরের মাঝে উদ্বেগ ও অস্বস্তি তৈরি হয়। এমন পরিস্থিতিতে একে অন্যের মাঝে তৈরি এ বরফ গলাতে সহায়তা করে হালকা কথাবার্তা। এ ধরনের কথাবার্তার অন্য কোনো মূল্য না থাকলেও তা গুরুত্ব বহন করে। এ ধরনের পরিস্থিতিতে পড়লে সবারই সামান্য হালকা কথাবার্তা বলে পরিস্থিতি স্বাভাবিক করে নেওয়া উচিত।
২. একে অন্যের সঙ্গে যোগাযোগের অচলাবস্থা দূর করতে
একে অন্যের সঙ্গে যোগাযোগের ক্ষেত্রে কখনো এমন পরিস্থিতি তৈরি হয়ে যায়, যেখানে যোগাযোগের কোনো সুনির্দিষ্ট কারণ খুঁজে পাওয়া যায় না। এতে একজন মানুষ অন্য মানুষের সঙ্গে ঠিক কোন পদ্ধতিতে যোগাযোগ করবে তা দুর্বোদ্ধ হয়ে ওঠে। এক্ষেত্রে বন্ধুত্বপূর্ণ হালকা সম্ভাষণ ও পরিচিতিমূলক কথাবার্তা হয়ে উঠতে পারে আদর্শ। এতে অপর পক্ষও বুঝতে পারে আপনি তার সঙ্গে যোগাযোগে আগ্রহী। ফলে যোগাযোগের অচলাবস্থা দূর হয়।
৩. পরিবর্তন সহজ করে
প্রতিনিয়তই আমাদের ব্যক্তিগত কিংবা পেশাদার ক্ষেত্রে বিভিন্ন ভূমিকায় অবতীর্ণ হওয়ার প্রয়োজন হয়ে পড়ে। আর এ পরিবর্তনকে সহজ করে দেয় হালকা কথাবার্তা। যে কোনো কঠিন কাজের আগে হালকা কথাবার্তার মাধ্যমে পরিস্থিতি সহজ করার বিষয়টি প্রচলিত রয়েছে। চিকিৎসকরা বহু কঠিন অস্ত্রোপচার বা পরীক্ষার আগে রোগীর সঙ্গে হালকা কথা বলে তাকে আশ্বস্ত করেন। একইভাবে গুরুত্বপূর্ণ বিজনেস মিটিং, পার্টি কিংবা চাকরির ইন্টারভিউতেও হালকা কথাবার্তার প্রয়োজন হয়।
৪. ভাব-বিনিময়ের সুযোগ
অন্যের সঙ্গে মনের ভাব-বিনিময়ের অসীম সম্ভাবনা সৃষ্টি করে হালকা কথাবার্তা। কিভাবে এ কাজটি শুরু করা যায় সেজন্য বহু বইও রয়েছে। প্রাথমিকভাবে অন্যের সঙ্গে ভাব বিনিময়ে হালকা কথাবার্তা বলা শুরু করা অস্বস্তিকর হলেও তা একবার শুরু হয়ে গেলে অধিকাংশ ক্ষেত্রেই একটু পর সে পরিস্থিতি পাল্টে যায়। এটি পরবর্তীতে নিজের চারপাশে গড়ে তোলা বৃত্ত ভাঙতে সহায়তা করে।
৫. ‘হালকা কথাবার্তা’ হালকা নয়
হালকা কথাবার্তা যেমন অন্যের সঙ্গে সম্পর্ক গড়ে তোলা সহজ করে তোলে তেমন বিষয়টি সব সময় সহজ নয়। হালকা কথাবার্তা কেমন হতে পারে, সেজন্য বিশেষজ্ঞরা কয়েকটি পরামর্শ দেন। এসবের মধ্যে রয়েছে প্রথমে নিজের পরিচয় দেওয়া, যা উভয়ের মাঝে বরফ গলাতে সহায়তা করে। এতে পরবর্তীতে যোগ করা যায় কোনো আগ্রহউদ্দীপক বিষয়। এছাড়া এমন প্রশ্ন করা যায়, যার উত্তর উত্তরদাতা নিজের ইচ্ছেমতো বলতে পারেন। অন্য একটি বিষয় হলো অপরের কথার গুরুত্ব দেওয়া। তিনি যে কথা বললেন, তা উপেক্ষা না করে সে কথার প্রেক্ষিতেই কথা বলা যায়। আরেকটি বিষয় হতে পারে উভয়ের মাঝে মিল খুঁজে দেখা।


মন্তব্য