স্লিম মানুষের পাঁচ গোপন তথ্য জেনে নিন-331730 | জীবনযাপন | কালের কণ্ঠ | kalerkantho

kalerkantho

মঙ্গলবার । ২৭ সেপ্টেম্বর ২০১৬। ১২ আশ্বিন ১৪২৩ । ২৪ জিলহজ ১৪৩৭


স্লিম মানুষের পাঁচ গোপন তথ্য জেনে নিন

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৩ মার্চ, ২০১৬ ১৬:০৭



স্লিম মানুষের পাঁচ গোপন তথ্য জেনে নিন

নিজের দেহের স্বাস্থ্যকর ওজন ধরে রাখতে যারা সক্ষম হন তাদের অনেকেরই কিছু অভ্যাস রয়েছে। এসব অভ্যাস তাদের দেহের সঠিক ওজন ধরে রাখতে সহায়তা করে। এ লেখায় রয়েছে তেমন পাঁচটি বিষয়। এক প্রতিবেদনে বিষয়টি জানিয়েছে হাফিংটন পোস্ট।
১. সকালের নাশতা
সকালের নাশতা দেহের স্বাস্থ্যকর ওজন ধরে রাখার জন্য খুবই প্রয়োজনীয়। যারা নিজের দেহের স্বাস্থ্যকর ওজন ধরে রাখতে সক্ষম হয়েছেন এমন ব্যক্তিদের মাঝে জরিপে দেখা গেছে, তাদের ৯৬ শতাংশই প্রায় প্রতিদিন সকালে নাস্তা খান। আর সকালে নাশতায় বেশি ক্যালরি গ্রহণ করাই তাদের স্লিম দেহের অন্যতম রহস্য। সকালের নাস্তা বাদ দিয়ে দেওয়া দেহের ওজনের জন্য ক্ষতিকর। এতে দিনের পরবর্তী সময়ে বাড়তি ক্ষুধা লাগে এবং বেশি খাওয়ার প্রবণতা তৈরি হয়।
২. শারীরিক অনুশীলন
শরীর সচল না রাখলে তা ক্রমে স্থূল হয়ে যায়। স্লিম মানুষদের দেখা যায় তারা নিয়মিত শারীরিক অনুশীলন করে দেহকে সচল রাখেন। ৪২ শতাংশ স্লিম ব্যক্তিদের দেখা যায় তারা প্রতিসপ্তাহে পাঁচ বা তার বেশিবার ব্যায়াম করেন। এটি তাদের শরীর স্লিম রাখতে সহায়তা করে।
৩. ওজন মাপা যন্ত্র
যারা নিজের দেহের ওজন নিয়ন্ত্রণ করতে সক্ষম হয়েছেন তারা এ বিষয়ে যে সচেতন, তা বোঝা যায় তাদের ওজন মাপা যন্ত্র বিষয়ে। স্লিম ব্যক্তিরা ওজন মাপা যন্ত্র ব্যবহার করে তাদের দেহের ওজন নিয়মিত নজরদারি করেন এবং তা কোনো কারণে বেশি বা কম হয়ে যাচ্ছে কি না, তা লক্ষ রাখেন। এটি তাদের দেহের ওজন নিয়ন্ত্রণের অন্যতম নিয়ামকও বটে।
৪. খাবারের নিয়ন্ত্রণ নয়
ওজন যারা নিয়ন্ত্রণ করতে সক্ষম হয়েছেন তাদের ৪৪ শতাংশের মাঝে খাওয়া-দাওয়ায় নিয়ন্ত্রণের প্রবণতা দেখা যায় না। মূলত উচ্চমানের খাবার বাড়িতে রান্না করে খেতেই তারা আগ্রহী হন। অন্যদিকে প্রক্রিয়াজাত খাবার তাদের কম খেতে দেখা যায়। এ বিষয়গুলোর মাধ্যমে তারা তাদের ওজন নিয়ন্ত্রণ করতে সক্ষম হন।
৫. খাওয়ায় মনোযোগ
স্লিম ব্যক্তিদের মাঝে জরিপে দেখা যায়, তারা মনোযোগ সহকারে খাওয়ার কাজটি সারেন। খাওয়ার সময় তারা অন্যকোনো বিষয়ে মনোযোগ না দিয়ে শুধু খাবারের দিকেই মনোযোগ দেন। এতে তাদের খাবার সহজে হজম হয় এবং দেহ সুস্থ থাকে। এতে দেহের ওজন নিয়ন্ত্রণও সহজ হয়।

 

মন্তব্য