kalerkantho


শিল্প মন্ত্রণালয়ের তদন্ত প্রতিবেদন

আগুন সিলিন্ডার থেকে দ্রুত ছড়ায় কেমিক্যালে

ফারজানা লাবনী   

২৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ০০:০০



আগুন সিলিন্ডার থেকে দ্রুত ছড়ায় কেমিক্যালে

রাজধানীর চকবাজারের চুড়িহাট্টায় আগুনের সূত্রপাত হয় সিলিন্ডার বিস্ফোরণে। তবে তা দ্রুত ছড়িয়ে পড়ে কেমিক্যালের কারণে। গতকাল শুক্রবার দিনভর বিভিন্ন তথ্য-উপাত্ত সংগ্রহ করে সেসব খতিয়ে দেখে শিল্প মন্ত্রণালয়ের ১২ সদস্যের তদন্ত কমিটি আগুন লাগার কারণ হিসেবে প্রাথমিক তদন্ত প্রতিবেদনে এ তথ্য উল্লেখ করেছে।

তদন্ত প্রতিবেদনে বলা হয়, ‘বিদ্যুতের ট্রান্সফর্মার থাকাও আগুন দ্রুত ছড়ানোর আরো একটি কারণ। ঘটনাস্থলের খুব কাছে প্রসাধনীর (পারফিউম) বোতলের মধ্যে থাকা কেমিক্যালের কারণে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনা কঠিন হয়ে পড়ে। এখানে পারফিউমের বোতলে রিফিল করা হতো এসব বোতল ব্লাস্ট হয়ে বোমার মতো কাজ করেছে।’ দুর্ঘটনার পরের দিন বৃহস্পতিবার শিল্পমন্ত্রী নূরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ূনের নির্দেশে দুর্ঘটনার কারণ অনুসন্ধান, প্রাথমিক ক্ষয়ক্ষতি নিরূপণ এবং আগুন লাগার পুনরাবৃত্তি রোধে সুপারিশ প্রদানের জন্য শিল্প মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মফিজুল হককে আহ্বায়ক এবং বিসিকের পরিচালক (প্রকল্প) আব্দুল মান্নানকে সদস্যসচিব করে ১২ সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়। এ কমিটিকে পরবর্তী পাঁচ কর্মদিবসের মধ্যে পূর্ণাঙ্গ তদন্ত প্রতিবেদন পেশ করতে বলা হয়। এর আলোকে শিল্প মন্ত্রণলয় প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।  

গতকাল দিনব্যাপী তদন্ত শেষে সন্ধ্যায় কমিটির আহ্বায়ক মফিজুল হক কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘প্রাথমিক তদন্তে এটা নিশ্চিত হয়েছে, চকবাজারের অগ্নিকাণ্ড গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণে ঘটেছে। এরপর ঘটনাস্থলের কাছাকাছি বিদ্যুতের ট্রান্সফর্মার এবং কেমিক্যাল থাকার কারণে আগুন দ্রুত ছড়িয়ে পড়ে।’ তিনি বলেন, ‘আগুনের কাছাকাছি প্রসাধনীর (পারফিউম) বোতলের মধ্যে থাকা কেমিক্যালের কারণে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনা কঠিন হয়ে পড়ে। ঘটনার কাছে পারফিউমের বোতলে রিফিল করা হতো। এসব বোতল ব্লাস্ট হয়ে বোমার মতো কাজ করতে থাকে।’ তিনি আরো বলেন, ‘গত বৃহস্পতিবার এবং গতকাল শুক্রবার সারা দিন ঘটনাস্থলেই ছিলাম। যেখানে আগুন লেগেছে সেখানে এবং এর আশপাশের এলাকা পরিদর্শন করি। আগুন লাগার কারণ সম্পর্কে বিভিন্ন তথ্য-প্রমাণ সংগ্রহ করি। এখনো তদন্ত শেষ হয়নি। সরকারের অন্যান্য প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে আলোচনা হবে। এরপর পূর্ণাঙ্গ প্রতিবেদন জমা দেওয়া হবে। সেখানে কারণ এবং প্রতিকার উভয়ই উল্লেখ করা হবে।’

গত বুধবার আগুন লাগার পর শিল্পমন্ত্রী চকবাজার এলাকা পরিদর্শনে যান। ঘটনাস্থল পরিদর্শন শেষে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে শিল্পমন্ত্রী সাংবাদিকদের ব্রিফিংকালে বলেন, ‘চকবাজার এলাকার রাজ্জাক ভবনে সংঘটিত অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা গ্যাস সিলিন্ডারের বিস্ফোরণ থেকে হয়েছে।’

ঘটনাস্থল পরিদর্শনকালে শিল্পমন্ত্রীর সঙ্গে ছিলেন শিল্পসচিব আবদুল হালিম, মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মফিজুল হক ও মিজানুর রহমান, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের মহাপরিচালক মোহাম্মদ সালাহ উদ্দিনসহ শিল্প মন্ত্রণালয়, ফায়ার সার্ভিস, পুলিশ ও বিসিকের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।  

আগুন লাগা বা দ্রুত ছড়িয়ে পড়ার কারণ হিসেবে কেমিক্যালের প্রসঙ্গটি এড়িয়ে যাওয়ায় শিল্পমন্ত্রীর বক্তব্য নিয়ে বিভিন্ন মহলে সমালোচনা হয়। 

ঘটনাস্থল পরিদর্শন শেষে আগুন লাগার কারণ সম্পর্কে শিল্পমন্ত্রীর দেওয়া বক্তব্য সম্পর্কে শিল্পসচিব আবদুল হালিমের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘আগুন লাগার সংবাদ পাওয়ার পরই আমরা শিল্পমন্ত্রীর নেতৃত্বে দ্রুত ঘটনাস্থলে যাই। এলাকা এত ঘনবসতির যে সেখানে হেঁটে পৌঁছতে হয়। আশপাশের লোকদের কাছে বিভিন্ন প্রশ্ন করে তাত্ক্ষণিক আমরা জানতে পারি যে সিলিন্ডারের কারণে আগুন লেগেছে। তাত্ক্ষণিক কেমিক্যালের বিষয়টি জানতে পারিনি।’

শিল্পসচিব বলেন, ‘শিল্প মন্ত্রণালয় থেকে কোনো তথ্য গোপনের উদ্দেশ্যে কেমিক্যালের বিষয়টি এড়িয়ে যাওয়া হয়নি। আগুন লাগার প্রকৃত কারণ জানতে দ্রুত কমিটি গঠন করা হয়।’ তিনি আরো বলেন, ‘কমিটির সদস্যরা আজ (গতকাল শুক্রবার) সারা দিন ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। বিভিন্ন তথ্য-প্রমাণ সংগ্রহ করেন। সরকারের আরো অনেক তদন্ত কমিটি কাজ করেছে। শিল্প মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা তদন্ত শেষে নিশ্চিত হয়েছেন, অগ্নিকাণ্ড সিলিন্ডার বিস্ফোরণে সংঘটিত হয়। তবে আগুন দ্রুত ছড়িয়ে পড়ার কারণ কেমিক্যাল।’



মন্তব্য