kalerkantho


নিরাপত্তার ‘অজুহাতে’ বিঘ্নিত আন্তর্জাতিক সম্মেলন

গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের ভেন্যু বদলালেও অনিশ্চয়তা কাটেনি

তৌফিক মারুফ   

১৫ নভেম্বর, ২০১৮ ০০:০০




নিরাপত্তার ‘অজুহাতে’ বিঘ্নিত আন্তর্জাতিক সম্মেলন

জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট নেতা ও জনস্বাস্থ্যবিদ ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরীর সঙ্গে সাভার গণস্বাস্থ্য কেন্দ্র এলাকার স্থানীয়দের বিরোধের প্রভাব পড়ল ৬০০ জনের বেশি বিদেশি প্রতিনিধির উপস্থিতিতে পূর্বনির্ধারিত আন্তর্জাতিক জনস্বাস্থ্য সম্মেলনে। সাভারের গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রে ও গণবিশ্ববিদ্যালয়ে আজ বৃহস্পতিবার থেকে শুরু হওয়া ওই সম্মেলনের ভেন্যু নিয়ে শেষ মুহূর্তে বিপাকে পড়েছেন আয়োজকরা। আয়োজকদের পক্ষ থেকে দাবি করা হয়েছে, গতকাল বুধবার দুপুরে আকস্মিকভাবেই আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর পক্ষ থেকে নিরাপত্তার প্রশ্নে ভেন্যু পরিবর্তন করতে বলা হয়।

এদিকে গতকাল সন্ধ্যায় পুরো পরিস্থিতি নিয়ে আন্তর্জাতিক এই আয়োজন কমিটির চেয়ারম্যান ও ব্র্যাকের চেয়ারম্যান ফজলে হাসান আবেদের দপ্তরে এক বৈঠক থেকে সম্মেলন এক দিন পিছিয়ে এবং ভেন্যু গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের পরিবর্তে সাভারের ব্র্যাক সিডিএম ক্যাম্পাসে করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

তবে গত রাত পৌনে ৮টায় ঢাকার পুলিশ সুপার শাহ মিজান সাফিউর রহমান কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘আয়োজকরা এত বড় একটি আয়োজনের ব্যবস্থা করলেও আমাদের কোনো অনুমতি নেয়নি। তাই আমরা নিরাপত্তার স্বার্থেই আয়োজনটি নির্বাচনের পরে করতে বলেছি। ভেন্যু পরিবর্তনের কথাও আমরা বলিনি। আর অন্য কোনো ভেন্যুতে কাল (আজ) এ আয়োজন করবে, এমন কোনো সিদ্ধান্ত আমরা দিইওনি, আর জানিও না। এখন পর্যন্ত আমাদেরকে কেউ জানায়ওনি।’

আয়োজকরা জানান, দেশি-বিদেশি প্রায় দুই হাজার প্রতিনিধি ওই সম্মেলনে অংশগ্রহণের জন্য নিবন্ধন করেছেন। পিপলস হেলথ মুভমেন্ট নামে আন্তর্জাতিক একটি সংগঠন এর আগে ২০০০ সালে প্রথম আন্তর্জাতিক সম্মেলনের আয়োজন করে সাভারের এই গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রে। পরে ইউরোপ ও আফ্রিকার দুই দেশে আরো দুটি সম্মেলন হয়। ১৮ বছর পর এবার আবার বাংলাদেশে এই সম্মেলনের আয়োজন হলো। গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ট্রাস্টি ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী আন্তর্জাতিক এ ফোরামেরও অন্যতম সংগঠক।

ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘আমার সঙ্গে ঝামেলার জের ধরে এত বড় একটি আয়োজনে ব্যাঘাত ঘটানো খুবই দুঃখজনক। মাত্র এক দিন আগে নিরাপত্তার অজুহাতে ভেন্যু পরিবর্তনের বিষয়টি বিশ্বের বিভিন্ন দেশের সরকারি-বেসরকারি পর্যায়ের ৬০০-র বেশি প্রতিনিধির কাছে বাংলাদেশ ও সরকারের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন হয়েছে বলে মনে করি।’

তিনি বলেন, প্রশাসনের ভেতরে ঘাপটি মেরে থাকা অতিউৎসাহী লোকজন হয়তো সরকারপ্রধান হিসেবে শেখ হাসিনাকে বিদেশিদের কাছে বিব্রত করার জন্য শেষ মুহূর্তে ভেন্যু পরিবর্তনের নামে আন্তর্জাতিক জনস্বাস্থ্যবিষয়ক একটি আয়োজনে বিঘ্ন ঘটাল। যা সরকারের জন্যই খরাপ হয়েছে।

আয়োজকরা জানান, বৃহস্পতিবার থেকে ১৯ নভেম্বর পর্যন্ত এই সম্মেলনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করবেন বেসরকারি সংস্থা ব্র্যাকের চেয়ারম্যান ফজলে হাসান আবেদ। প্রধান অতিথি থাকবেন ন্যাশনাল হার্ট ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান জাতীয় অধ্যাপক ডা. আব্দুল মালিক।

সম্মেলন আয়োজক কমিটির সমন্বয়কারী জাকির হোসেন কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘আমরা হঠাৎ করেই ভেন্যু পরিবর্তনের তাগিদ পাই প্রশাসনের পক্ষ থেকে। আমাদেরকে নিরাপত্তাজনিত আশঙ্কার কথা বলা হয়েছে। এরপর আমরা দেখা করি স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সঙ্গে। সেখান থেকে আমাদেরকে অন্য ভেন্যুতে এই সম্মেলন করার পরামর্শ দেওয়া হয়। একই সঙ্গে ভিন্ন সুবিধাজনক স্থানে ভেন্যু খুঁজতে থাকি। কিন্তু হাতে সময় না থাকায় নতুন ভেন্যু পাওয়া ও প্রস্তুতি নিয়ে আমাদের বিপাকে পড়তে হয়। একপর্যায়ে আমরা আমাদের সম্মেলন আয়োজক কমিটির চেয়ারম্যান ও ব্র্যাকের চেয়ারম্যান স্যার ফজলে হাসান আবেদের সঙ্গে বৈঠক করি। তিনি সাভারে ব্র্যাকের সিডিএমে ভেন্যু স্থানান্তরের সুযোগ করে দেন। তবে প্রস্তুতি কাজের জন্য সম্মেলন আজ (বৃহস্পতিবার) শুরু না করে এক দিন পিছিয়ে আগামীকাল উদ্বোধনের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।’

আয়োজন প্রস্তুতি কমিটির আরেক সদস্য আমিনুর রসুল বাবুল ও মিডিয়া কমিটির সদস্যসচিব মিহির বিশ্বাস কালের কণ্ঠকে বলেন, বিদেশি জনস্বাস্থ্যবিদদের সঙ্গে মিডিয়ার প্রতিনিধিরাও আসবেন। ইতিমধ্যে প্রায় সব বিদেশি প্রতিনিধি ঢাকায় পৌঁছে গেছেন। তাঁরা ঢাকা ও সাভারের বিভিন্ন স্থানে অবস্থান করছেন।



মন্তব্য