kalerkantho


ইউরোপীয় পার্লামেন্টে আলোচনা আজ

বাংলাদেশে সুষ্ঠু ভোটে জোর

মেহেদী হাসান   

১৫ নভেম্বর, ২০১৮ ০০:০০



বাংলাদেশে সুষ্ঠু ভোটে জোর

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের প্রাক্কালে বাংলাদেশে মানবাধিকার পরিস্থিতি নাজুক উল্লেখ করে ইউরোপীয় পার্লামেন্টে (ইপি) বেশ কয়েকটি খসড়া প্রস্তাব উঠেছে। এর মধ্যে অ্যালায়েন্স ফর লিবারেলস অ্যান্ড ডেমোক্র্যাটস ফর ইউরোপ (অ্যালডি) নামের একটি রাজনৈতিক জোট এ দেশে অভ্যন্তরীণ নিপীড়নে ব্যবহার হতে পারে, এমন অস্ত্র ও নজরদারি সামগ্রী রপ্তানি, বিক্রি, আধুনিকায়ন ও রক্ষণাবেক্ষণের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপের প্রস্তাব করেছে। একাধিক প্রস্তাবে বাংলাদেশে অংশগ্রহণমূলক, অবাধ, সুষ্ঠু ও বিশ্বাসযোগ্য নির্বাচন এবং মানবাধিকার সমুন্নত রাখার আহ্বান জানানো হয়েছে। খসড়া প্রস্তাবগুলোতে ছাত্র আন্দোলনের সময় গ্রেপ্তার আলোকচিত্রী শহিদুল আলমকে অবিলম্বে মুক্তি দেওয়া এবং পোশাক কারখানাগুলোতে অ্যাকর্ডের নজরদারি অব্যাহত রাখার আহ্বানও রয়েছে।

ফ্রান্সের রাজধানী স্ট্রসবার্গে আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে বাংলাদেশে মানবাধিকার পরিস্থিতি নিয়ে ইউরোপীয় পার্লামেন্ট সদস্যরা পার্লামেন্টের প্লেনারি সেশনে আলোচনায় অংশ নেবেন।

কূটনৈতিক সূত্রে জানা গেছে, আজ আলোচনা শেষে প্রস্তাব আকারে গ্রহণের জন্য ইউরোপীয় পার্লামেন্টে প্রতিনিধিত্বকারী সাতটি দল ও জোট আলাদাভাবে প্রস্তাবের খসড়া তৈরি করেছে। সেগুলো সমন্বয় করে আজ আনুষ্ঠানিক প্রস্তাব উত্থাপন এবং এ বিষয়ে ভোট অনুষ্ঠিত হবে। খসড়া প্রস্তাবগুলোতে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার নির্বাচনে অংশ নেওয়ার সুযোগ নিয়ে শঙ্কা, নির্বাচনের প্রাক্কালে রাজনৈতিক দলগুলোর কর্মসূচি পালনের সুযোগ, ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন নিয়ে উদ্বেগ, আলোকচিত্রী শহিদুল আলমের কারাবন্দিত্ব, গণমাধ্যমের স্বাধীনতা ও স্বতঃপ্রণোদিত হয়ে অবাধ তথ্যপ্রবাহ নিয়ন্ত্রণ, শ্রম অধিকার, আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর দ্বারা মানবাধিকার লঙ্ঘন, বিদেশি অনুদান নিয়ন্ত্রণ আইন, সাম্প্রতিক ছাত্র আন্দোলন, মাদকবিরোধী অভিযানে হতাহত হওয়া ইত্যাদি বিষয় আমলে নেওয়া হয়েছে।

প্রগ্রেসিভ অ্যালায়েন্স অব সোশ্যালিস্টস অ্যান্ড ডেমোক্র্যাটস (এসঅ্যান্ডডি) তাদের খসড়া প্রস্তাবে বাংলাদেশে সব অংশীদারকে স্বচ্ছ, বিশ্বাসযোগ্য ও শান্তিপূর্ণ নির্বাচন অনুষ্ঠানের আহ্বান জানিয়েছে। এ ছাড়া সব দলের অংশগ্রহণে নির্বাচন নিশ্চিত করতে বাংলাদেশ সরকারের প্রতি আহ্বান রয়েছে ওই প্রস্তাবে।

ইউরোপীয় কনজারভেটিভ ও রিফরমিস্টস (ইসিআর) দলের খসড়া প্রস্তাবে মৌলিক অধিকার ও স্বাধীনতা সুরক্ষায় গণতান্ত্রিক কাঠামো শক্তিশালীকরণে চলমান সংস্কার উদ্যোগ বাস্তবায়নে বাংলাদেশ সরকার ও জনগণকে সহায়তা করতে সংশ্লিষ্ট ইউরোপীয় কর্তৃপক্ষের প্রতি আহ্বান জানানো হয়েছে। এ ছাড়া বিচারবহির্ভূত হত্যা, গুম, বিনা পরোয়ানায় গ্রেপ্তার বন্ধ এবং আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর দায়মুক্তির অবসান জানানোর আহ্বান জানিয়েছে ইসিআর।

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন নিয়ে উদ্বেগ জানিয়ে আলোকচিত্রী শহিদুল আলমকে অবিলম্বে মুক্তি দেওয়ার আহ্বান প্রস্তাবে স্থান পেয়েছে। আগামী নির্বাচনের প্রাক্কালে বিরোধী রাজনৈতিক কর্মীদের গ্রেপ্তারের নিন্দা জানিয়ে রাজনৈতিক সহিষ্ণুতা দেখাতেও আহ্বান জানিয়েছে ইসিআর।

অ্যালডি গ্রুপের খসড়া প্রস্তাবে সাবেক রাষ্ট্রদূত মারুফ জামান নিখোঁজ হওয়া, আলোকচিত্রী শহিদুল আলমকে গ্রেপ্তার, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ক্ষমতাসীন দলের

ছাত্রসংগঠনের বিরুদ্ধে সহিংসতার অভিযোগ আমলে নেওয়া হয়েছে। ওই প্রস্তাবে ‘এভরিথিং বাট আর্মস’ সুবিধা পেতে গণতন্ত্র, মানবাধিকার ও আইনের শাসনের প্রতি অঙ্গীকার বাংলাদেশ সমুন্নত রাখছে কি না তা খতিয়ে দেখতে ইউরোপীয় ইউনিয়নের (ইইউ) মানবাধিকারবিষয়ক হাই রিপ্রেজেন্টেটিভ ও ইউরোপীয় কমিশনকে আহ্বান জানানো হয়েছে।

রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দেওয়ায় বাংলাদেশের প্রশংসার পাশাপাশি প্রত্যাবাসন পরিকল্পনা অবিলম্বে স্থগিত করতে বাংলাদেশ ও মিয়ানমারকে আহ্বান জানানোর কথা রয়েছে অ্যালডি গ্রুপের খসড়া প্রস্তাবে। অ্যাকর্ডের আওতায় বাংলাদেশে পোশাক খাতে আন্তর্জাতিক নজরদারি অব্যাহত রাখারও আহ্বান জানিয়েছে অ্যালডি গ্রুপ।

ইউরোপ অব ফ্রি অ্যান্ড ডিরেক্ট ডেমোক্রেসি (ইএফডিডি) গ্রুপ তাদের খসড়া প্রস্তাবে নির্বাচনের আগে মত ও বাক্স্বাধীনতা এবং গণমাধ্যমের স্বাধীনতা খর্ব হওয়ার অভিযোগ তুলে উদ্বেগ জানিয়েছে।

ইউরোপিয়ান ইউনাইটেড লেফট/নরডিক গ্রিন লেফট (জিইউই/এনজিএল) গ্রুপ তাদের খসড়া প্রস্তাবে জাতিসংঘ মানবাধিকার পরিষদের সদস্য হিসেবে বাংলাদেশকে মানবাধিকার সুরক্ষা ও সংরক্ষণে সর্বোচ্চ মান বজায় রাখার আহ্বান জানিয়েছে। এ ছাড়া মত প্রকাশের স্বাধীনতা ও সমবেত হওয়ার স্বাধীনতার মতো মৌলিক মানবাধিকার সুরক্ষা করতে বাংলাদেশকে তাগিদ দেওয়া হয়েছে।

ইউরোপিয়ান পিপলস পার্টি (পিপিই) তাদের খসড়া প্রস্তাবে গুম নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে। দ্য গ্রিন্স-ইউরোপিয়ান ফ্রি অ্যালায়েন্স (ভারটস/অ্যালি) বাংলাদেশে পরবর্তী সরকারকে পার্বত্য শান্তিচুক্তির পূর্ণ বাস্তবায়নে সময়সীমা নির্ধারণের আহ্বান জানিয়েছে।

 



মন্তব্য