kalerkantho


সবিশেষ

প্রতি সেমিস্টারে দৌড়াতে হবে শতাধিক কিমি!

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১৯ অক্টোবর, ২০১৮ ০০:০০



প্রতি সেমিস্টারে দৌড়াতে হবে শতাধিক কিমি!

চীনের চেচিয়াং বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাসগুলোর একটির নাম জি চিন কাং। এই ক্যাম্পাসের কোথায় সবচেয়ে বেশি শিক্ষার্থী পাওয়া যায়? লাইব্রেরি, না পার্কে? না, এই ক্যাম্পাসে যেখানে সবচেয়ে বেশি ছাত্র-ছাত্রী দেখা যায়, সেটা হচ্ছে খেলার মাঠ। দিন থেকে রাত পর্যন্ত সব সময় এখানে কোনো না কোনো শিক্ষার্থীকে দৌড়াতে দেখা যায়।

চেচিয়াং বিশ্ববিদ্যালয় চীনের হং চৌ শহরে অবস্থিত। এখানকার সবচেয়ে বিখ্যাত একটি দর্শনীয় স্থান সি হু বা পশ্চিম হ্রদ। তবে সি হুর চেয়ে অ্যাথলেটিকস ট্র্যাকেই যেন ভিড় বেশি! কারণ ২০১৮ সাল থেকে চেচিয়াং বিশ্ববিদ্যালয়ে নতুন নতুন নিয়ম চালু করা হয়েছে। চলতি বছর থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের জন্য ক্রীড়া ক্লাসে অংশগ্রহণের ব্যাপারে কড়াকড়ি আরোপ করা হয়েছে। এখন থেকে ক্রীড়া ক্লাসে দুটি অংশ থাকবে। প্রতিটি সেমিস্টারে প্রত্যেক শিক্ষার্থীকে ৫৪টি ক্রীড়া ক্লাসে অংশ নিতে হবে। তা ছাড়া প্রতিদিন বিকেল ৪টা ৪৫ মিনিট থেকে সাড়ে ৫টা পর্যন্ত চলবে ক্রীড়া ক্লাস।

চেচিয়াং বিশ্ববিদ্যালয় বর্তমানে একটি বিশেষ মোবাইল অ্যাপ্লিকেশন ব্যবহার করছে। এই অ্যাপ শিক্ষার্থীদের শরীরচর্চার রেকর্ড সংরক্ষণ করবে। নতুন নিয়মে প্রতি সেমিস্টারে প্রত্যেক শিক্ষার্থীকে অন্তত ৪৮ দিন দৌড়াতে হবে। প্রতিবার প্রত্যেক ছাত্রকে ৩ দশমিক ৫ কিলোমিটার এবং প্রত্যেক ছাত্রীকে ২ দশমিক ৫ কিলোমিটার দৌড়াতে হবে। মোবাইল অ্যাপ এর হিসাব রাখবে।

এ প্রক্রিয়ায় শিক্ষার্থীদের কোনো নকল করার সুযোগ নেই। কারণ প্রতিবার দৌড় শেষ করে তাদের নিজের একটি ছবি অ্যাপ্লিকেশনে আপলোড করতে হবে। আর অ্যাপটি স্বয়ংক্রিয়ভাবে দৌড়ের দূরত্ব রেকর্ড করে রাখবে।

শিক্ষার্থীদের আরো ক্রীড়াচর্চার ক্ষেত্রে সময় দেওয়ার জন্য চলতি বছর থেকে প্রতিদিন বিকেলের শেষ ক্লাসটি হবে ক্রীড়াবিষয়ক। একে ডাকা হবে ‘ক্রীড়া সময়’ বলে এবং শিক্ষার্থীরা এ সময় নিজেদের ইচ্ছামতো লেখাধুলা করতে পারবে। নতুন সেমিস্টার শুরুর পর থেকেই নতুন নিয়মের সুফল পাওয়া যেতে শুরু করেছে। খেলার মাঠে এখন সব সময় শিক্ষার্থীদের পাওয়া যায়।

বিশ্ববিদ্যালয়ের গণক্রীড়া ও সংস্কৃতি বিভাগের পরিচালক উ ইয়ে হাই জানান, এ সংস্কার চীনের বৈশিষ্ট্যসম্পন্ন। আশা করা যায়, এর মাধ্যমে চেচিয়াং বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের মধ্যে শরীরচর্চার অভ্যাস গড়ে উঠবে এবং তারা শারীরিকভাবে আরো সামর্থ্যবান হয়ে বড় হবে। সূত্র : চায়না রেডিও ইন্টারন্যাশনাল।

 



মন্তব্য