kalerkantho


আমাদের বড় শক্তি হচ্ছে জনগণ

এস এ জিন্না কবির, সাংগঠনিক সম্পাদক, জেলা বিএনপি

১৪ অক্টোবর, ২০১৮ ০০:০০



আমাদের বড় শক্তি হচ্ছে জনগণ

কালের কণ্ঠ : একাদশ সংসদ নির্বাচন নিয়ে আপনাদের প্রস্তুতি কেমন?

এস এ জিন্না কবির : সরকারের দমন-পীড়নে আমরা অতিষ্ঠ। আওয়ামী লীগ তাদের ক্ষমতার গত দুই পর্বে আমাদের নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে শত শত মামলা দিয়েছে। এ অবস্থায় সাংগঠনিকভাবে না হলেও প্রার্থীরা নির্বাচনের প্রস্ততি নিয়ে জনসংযোগ করে যাচ্ছেন। তাতে ব্যাপক সাড়াও পাচ্ছেন।

 

কালের কণ্ঠ : দলে কোন্দল আছে বলে অভিযোগ রয়েছে। এর প্রভাব কি নির্বাচনে পড়বে?

এস এ জিন্না কবির : বিএনপির মতো বড় দলে কিছুটা মতপার্থক্য থাকবে, এটাই স্বাভাবিক। কিন্তু দলে কোন্দল নেই। প্রার্থী মনোনয়ন চূড়ান্ত হলে সব মতপার্থক্য দূর হয়ে যাবে।

 

কালের কণ্ঠ : অনেকে বলছেন আপনাদের সাংগঠনিক দুর্বলতাও রয়েছে। সে ক্ষেত্রে নির্বাচনে কিভাবে মোকাবেলা করবেন?

এস এ জিন্না কবির : আমাদের জেলা কমিটি আছে। কিছু কিছু উপজেলা কমিটিও হয়েছে। এটা ঠিক তৃণমূল পর্যায়ে আমরা কমিটি করতে পারিনি। তবে মনে রাখতে হবে, আমাদের বড় শক্তি হচ্ছে জনগণ। মানিকগঞ্জ হচ্ছে বিএনপির ঘাঁটি। এই জনগণই আমাদের সাংগঠনিক দুর্বলতাকে পার করিয়ে দেবে।

 

কালের কণ্ঠ : বিএনপিকে কেন জনগণ ভোট দেবে বলে আপনি মনে করেন?

এস এ জিন্না কবির : বর্তমান সরকার ভোটারবিহীন নির্বাচন করে ক্ষমতা নিয়েছে। জনগণ এটা ভালো করে জানে। জোর করে ক্ষমতায় থাকলেও জনগণের উন্নয়ন করতে পারেনি সরকার। মানুষকে নিরাপত্তা দিতে পারেনি। আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ে জনসাধারণ অসন্তুষ্ট। এসব কারণে স্বাভাবিকভাবেই মানুষ বিএনপিকে ভোট দেবে।

 

কালের কণ্ঠ : ক্ষমতায় এলে প্রথমে কোন কাজগুলো করবেন আপনারা?

এস এ জিন্না কবির : ক্ষমতায় এলে আমাদের প্রথম কাজ হবে আইনের শাসন প্রতিষ্ঠা করা। কারণ বর্তমান সরকারের আমলে আইনের শাসন নেই। যে দেশে আইনের শাসন নেই, সেই দেশের মানুষের মতো অসহায় আর কেউ নেই।

 

কালের কণ্ঠ : ক্ষমতায় আসার ব্যাপারে আপনারা কতটা আশাবাদী?

এস এ জিন্না কবির : দুঃশাসন থেকে মুক্তি পেতে জনগণ উন্মুখ হয়ে আছে। মানুষ পরিবর্তন চায়। অতীত ইতিহাস থেকে শিক্ষা নিয়ে তারা বিএনপিকে আবারও ক্ষমতায় দেখতে চায়। সুষ্ঠু নির্বাচন হলে আমরা জনগণের ভোটে আবারও ক্ষমতায় আসব। এ ব্যাপারে আমি আশাবাদী।

 

 



মন্তব্য