kalerkantho


কোটা সংস্কার দাবিতে ফের রাস্তায় শিক্ষার্থীরা

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি    

১৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০



কোটা সংস্কার দাবিতে ফের রাস্তায় শিক্ষার্থীরা

কোটা সংস্কারের প্রজ্ঞাপনের দাবিতে গতকাল ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকায় বিক্ষোভ মিছিল করে বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ। ছবি : কালের কণ্ঠ

সরকারি চাকরিতে কোটা সংস্কারের প্রজ্ঞাপন জারি না করেই ৪০তম বিসিএসের বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করায় বিক্ষোভ করেছে বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ। কোটা সংস্কারের দাবিতে আন্দোলনরত এসব শিক্ষার্থী দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত কর্মসূচি অব্যাহত রাখার ঘোষণা দিয়েছে। গতকাল বুধবার বিক্ষোভ শেষে আয়োজিত পথসভায় নেতারা সরকারের কাছে শিক্ষার্থীদের দাবি দ্রুত পূরণের আহ্বান জানান।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকায় গতকাল সকালে বিক্ষোভ মিছিল করে শিক্ষার্থীরা। মিছিলটি বিজ্ঞান গ্রন্থাগারের সামনে থেকে বের হয়ে দোয়েল চত্বর হয়ে শাহবাগ পাবলিক লাইব্রেরির দিকে অগ্রসর হয়। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় লাইব্রেরির সামনে পৌঁছে শিক্ষার্থীরা নানা স্লোগান দিতে থাকে। কোটা সংস্কারের প্রজ্ঞাপন জারিতে বিলম্ব নিয়ে তারা বিভিন্ন স্লোগান দেয়। মিছিলটি বিশ্ববিদ্যালয়ের কলাভবন, ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদ, মুহসীন হল, ভিসি চত্বর হয়ে টিএসসির রাজু ভাস্কর্যের সামনে পৌঁছে শেষ হয়। সেখানে পথসভায় বক্তব্য দেন নেতারা।

বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের ব্যানারে আয়োজিত পথসভায় বক্তব্য দেন সংগঠনের যুগ্ম আহ্বায়ক নুরুল হক নূর, রাশেদ খান, ফারুক হাসান, বিন ইয়ামিন মোল্লা, জসিমউদ্দীন প্রমুখ। আন্দোলনকারীদের পক্ষে তিন দফা দাবি উত্থাপন করা হয়। দাবিগুলো হলো—ছাত্রদের বিরুদ্ধে দায়ের করা মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার, হামলাকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি ও পাঁচ দফার আলোকে কোটার যৌক্তিক সংস্কার।

ছাত্রনেতা নুরুল হক নুর বলেন, ‘আমরা কখনো কোটা বাতিল চাইনি। কোটার যৌক্তিক সংস্কার চেয়েছি। এই আন্দোলনে ছাত্রদের ওপর হামলা ও মামলা দিয়ে নির্যাতন করা হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী কোটা বাতিলের ঘোষণা দিয়েছেন। তিনি যদি চান কোটা বাতিল করতে পারেন। তবে যদি কোটা সংস্কার করা হয় তাহলে অবশ্যই পাঁচ দফার আলোকে করতে হবে।’

আরেক নেতা রাশেদ খান বলেন, ‘ছয় মাস আগে প্রধানমন্ত্রী সংসদে দাঁড়িয়ে কোটা সংস্কারের দাবি মেনে নেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন। কিন্তু সেই ঘোষণা বাস্তবায়ন হয়নি। আমরা চাই অতি দ্রুত ছাত্রসমাজের দাবি পূরণ। এ জন্য যত দিন পর্যন্ত দাবি মানা না হবে তত দিন পর্যন্ত আন্দোলন অব্যাহত থাকবে।’



মন্তব্য