kalerkantho


দিনাজপুর

জোট ও জোট ছাড়া দুভাবেই বিএনপি প্রস্তুত

মোকাররম হোসেন
যুগ্ম আহ্বায়ক, দিনাজপুর জেলা বিএনপি

৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০



জোট ও জোট ছাড়া দুভাবেই বিএনপি প্রস্তুত

কালের কণ্ঠ : একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন নিয়ে আপনাদের ভাবনা কী?

মোকাররম হোসেন : আমরা নির্বাচনে যেতে চাই। তবে আন্দোলনের মাধ্যমে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে মুক্ত করে জনগণকে সঙ্গে নিয়েই নির্বাচনে যাব। তা ছাড়া নির্বাচনকালীন সহায়ক সরকার ও নির্বাচন কমিশনকে ঢেলে সাজানোর দাবি মানতে হবে।

কালের কণ্ঠ : নির্বাচন নিয়ে আপনাদের প্রস্তুতি কেমন?

মোকাররম হোসেন : আমাদের নির্বাচনী প্রস্তুতি রয়েছে। প্রার্থী চূড়ান্তের কাজ এগিয়ে রাখা হয়েছে। জোটগত এবং জোট ছাড়া দুইভাবেই আমরা নির্বাচনের জন্য প্রস্তুত।

কালের কণ্ঠ : দীর্ঘদিন ক্ষমতার বাইরে বিএনপি। আপনাদের দলের সাংগঠনিক অবস্থা কী রকম?

মোকাররম হোসেন : দিনাজপুর বরাবরই বিএনপির জন্য অনুকূল। ২০০১ সালে আমরা ছয়টি আসনের মধ্যে পাঁচটিতে জয়লাভ করেছিলাম। তা ছাড়া সর্বশেষ স্থানীয় সরকার নির্বাচনে বিএনপি ভালো করেছে, যা আপনারা উপজেলা ও পৌরসভা নির্বাচনে দেখেছেন। এ থেকেই অনুমান করা যায় বিএনপির সাংগঠনিক অবস্থা কতটা মজবুত।

কালের কণ্ঠ : দীর্ঘদিন ধরে আহ্বায়ক কমিটি দিয়ে চলছে দিনাজপুর জেলা বিএনপি। পূর্ণাঙ্গ কমিটি করতে পারছেন না কেন?

মোকাররম হোসেন : করতে পারছি না মনে হয় এটা বলা যাবে না। দিনাজপুর সদর আসনটি খালেদা জিয়ার পারিবারিক আসন হিসেবে পরিচিত। তিনি কারাগারে এবং তাঁর ছেলে দেশের বাইরে। এখান থেকে কে নির্বাচন করবেন, তা এখনো নিশ্চিত নয়। তাই হয়তো একটু বিলম্ব হচ্ছে। জেলা, উপজেলা, ইউনিয়ন, পৌরসভা, ওয়ার্ড ও মহল্লা কমিটি সম্পন্ন করা হয়েছে।

কালের কণ্ঠ : জোটবদ্ধভাবে, নাকি এককভাবে নির্বাচন করবে বিএনপি?

মোকাররম হোসেন : আমরা দুইভাবেই প্রস্তুতি নিয়ে রেখেছি। 

কালের কণ্ঠ : শরিকদের কোন কোন আসন দেওয়া হবে?

মোকাররম হোসেন : জোটগত নির্বাচন হলে দিনাজপুর-১ ও দিনাজপুর-৬ জামায়াতকে দিতে হতে পারে। আমাদের প্রস্তুতিও সে রকম।

কালের কণ্ঠ : আপনাদের প্রার্থীদের তো নির্বাচনী মাঠে দেখা যাচ্ছে না।

মোকাররম হোসেন : প্রার্থীরা মাঠে রয়েছেন। জনসভা এবং মিছিল না করলেও গণসংযোগ, উঠান বৈঠক করছেন। মানুষের সঙ্গে কথা বলছেন।

কালের কণ্ঠ : নির্বাচনী পরিবেশ সম্পর্কে বলুন।

মোকাররম হোসেন : এখনো পরিবেশ তৈরি হয়নি। তবে পরিবেশ তৈরি হবে বলে আশা করছি।

কালের কণ্ঠ : কী ধরনের পরিবেশের কথা বলছেন? 

মোকাররম হোসেন : খালেদা জিয়াসহ বিএনপির সব বন্দি নেতাকর্মীকে মুক্তি দিয়ে সবার জন্য সমান অধিকার নিশ্চিত করতে হবে। নির্বাচন কমিশন ঢেলে সাজাতে হবে। মানুষ যাতে ভোট দিতে পারে সেই পরিবেশ নিশ্চিত করতে হবে।

কালের কণ্ঠ : ৫ জানুয়ারির মতো নির্বাচন হলে কী করবেন?

মোকাররম হোসেন : ৫ জানুয়ারির মতো নির্বাচন হওয়ার আর কোনো সুযোগ নেই। খালেদা জিয়ার মুক্তির মাধ্যমে পরিবেশ তৈরি করেই আমরা নির্বাচনে যাব।

কালের কণ্ঠ : মানুষ কেন বিএনপিকে ভোট দেবে?

মোকাররম হোসেন : ১৯৯১ ও ২০০১ সালে মানুষ বিএনপির উন্নয়ন দেখেছে। তা ছাড়া খালেদা জিয়ার বড় বোন প্রয়াত খুরশীদ জাহান হক যে দৃশ্যমান উন্নয়ন দেখিয়ে গেছেন, তা দিনাজপুরের মানুষ ভুলে যায়নি। দিনাজপুর মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতাল, দিনাজপুর শিক্ষা বোর্ডসহ অসংখ্য উদাহরণ মানুষের সামনে আছে। উন্নয়ন ও ভোটের অধিকারের জন্যই মানুষ বিএনপিকে ভোট দেবে।



মন্তব্য