kalerkantho


শুল্ক গোয়েন্দাদের অভিযান

চোরাপথে মোবাইল ফোন আনায় ৯ জন গ্রেপ্তার

‘চোরাচালানের বিরুদ্ধে অভিযান চলবে’

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২০ মে, ২০১৮ ০০:০০



চোরাপথে মোবাইল ফোন আনায় ৯ জন গ্রেপ্তার

শুল্ক গোয়েন্দা বিভাগের অভিযান। গতকাল পৃথক তিনটি অভিযানে বেশ কিছু চোরা মোবাইল ফোন আটক করা হয়। ছবি : কালের কণ্ঠ

রাজধানীর উত্তরা, গুলশান, মহাখালী ও পান্থপথ এলাকার কয়েকটি মার্কেটে বিশেষ অভিযান চালিয়ে চোরাপথে আনা মোবাইল রাখার অভিযোগে ৯ জনকে গ্রেপ্তার করেছে শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদপ্তর। গতকাল শনিবার সকালে একযোগে এই অভিযান চালানো হয় বলে সংস্থাটি এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানিয়েছে।

অভিযানে শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালকসহ উপপরিচালক, সহকারী পরিচালক, রাজস্ব কর্মকর্তা, সহকারী রাজস্ব কর্মকর্তাসহ বিপুলসংখ্যক কর্মী অংশ নেয়। তাদের সহায়তা করে র‌্যাব, পুলিশ ও আনসার বাহিনী। অভিযানে কয়েকটি দোকান থেকে ২৭৫টি শুল্ক ফাঁকি দেওয়া ফোনসেট জব্দ করা হয়। এর আনুমানিক মূল্য দুই কোটি ২০ লাখ টাকা। মোবাইলগুলো চোরাচালানের মাধ্যমে নিয়ে আসা হয়। দোকানগুলো এসব সেটের আমদানিসংক্রান্ত কাগজপত্র দেখাতে পারেনি। এ ব্যাপারে তারা সন্তোষজনক জবাবও দিতে পারেনি।

মহাখালীতে টিজে গ্রুপের শোরুম থেকে নকল ফোন তৈরি করার কাজে যুক্ত থাকার অভিযোগে সাতজনকে এবং উত্তরা নর্থ টাওয়ারে তালুকদার মোবাইল লিংক থেকে দুজনকে গ্রেপ্তার করা হয়। এরা হলো কাজী ইশতিয়াক উদ্দিন, সারোয়ার হোসেন, মো. আফতাব উদ্দিন, মো. মাহবুব হাসান, মো. মহসিন আলী, মো. মাসুদুর রহমান, মো. নূর আলম, মো. রিয়াজ ও মো. নাজিমুল ইসলাম হৃদয়।

এ প্রসঙ্গে শুল্ক গোয়েন্দা তদন্ত অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ড. মো. সহিদুল ইসলাম বলেন, ‘চোরাচালানের মাধ্যমে যারা মোবাইল ফোন নিয়ে আসছে অথবা যারা নকল মোবাইল ফোন বাজারজাত করছে তাদের বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স দেখানো হবে। এ চক্র যত শক্তিশালী হোক না কেন তাদের আইনের আওতায় আনা হবে। নকল ও চোরাচালানের মাধ্যমে আনা মোবাইল ফোনের কারণে সরকার বিপুল অঙ্কের রাজস্ব হারাচ্ছে। এখন থেকে নিয়মিত এ ধরনের অভিযান চলবে।’ তিনি জানান, আটককৃতদের বিরুদ্ধে ফৌজদারি মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।


মন্তব্য