kalerkantho


খাবার স্যালাইনের অন্যতম উদ্ভাবক রফিকুল ইসলাম আর নেই

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৭ মার্চ, ২০১৮ ০০:০০



খাবার স্যালাইনের অন্যতম উদ্ভাবক রফিকুল ইসলাম আর নেই

এক মুঠো গুড় বা চিনি, তিন আঙুলের এক চিমটি লবণ আধালিটার পানিতে মিশিয়ে দিলেই তৈরি হয়ে যায় ডায়রিয়া রোগীদের জীবন রক্ষার খাবার স্যালাইন! দেশজ উপায়ে লাখ লাখ মানুষের প্রাণ রক্ষাকারী এই স্যালাইনের অন্যতম উদ্ভাবক ডা. রফিকুল ইসলাম আর নেই। সোমবার সকালে তিনি রাজধানীর বসুন্ধরা আবাসিক এলাকার অ্যাপোলো হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ইন্তেকাল করেন (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। তাঁর বয়স হয়েছিল ৮২ বছর। তিনি দুই মেয়ে, এক ছেলেসহ অসংখ্য আত্মীয়-স্বজন ও গুণগ্রাহী রেখে গেছেন। তিনি বেশ কিছুদিন ধরেই হৃদরোগসহ অন্যান্য সমস্যায় ভুগছিলেন।

১৯৩৬ সালে কুমিল্লায় জন্ম নেওয়া রফিকুল ইসলাম ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ থেকে এমবিবিএস পাস করেন। পরে তিনি ব্রিটেনে চিকিৎসাশাস্ত্রে উন্নত শিক্ষা নিয়ে যুক্ত হন বর্তমান আন্তর্জাতিক উদরাময় রোগ গবেষণা কেন্দ্র, বাংলাদেশের (আইসিডিডিআর,বি) তৎকালীন কর্তৃপক্ষের সঙ্গে। মহান মুক্তিযুদ্ধের সময় তিনি মুক্তিযোদ্ধাদের প্রশিক্ষণ ক্যাম্পে ডায়রিয়ায় আক্রান্তদের সুস্থ করতে খাবার স্যালাইন ব্যবহার করেন। পরে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা ওই খাবার স্যালাইনকে স্বীকৃতি দিলে এর বহুল ব্যবহার শুরু হয় দেশে ও দেশের বাইরে। তিনি ২০০০ সাল পর্যন্ত আইসিডিডিআর,বিতে কর্মরত ছিলেন।

আইসিডিডিআর,বির সাবেক বিজ্ঞানী ড. এস কে রায় কালের কণ্ঠকে বলেন, স্থানীয় ফরম্যাটে খাবার স্যালাইন বাংলাদেশের এক গুরুত্বপূর্ণ অধ্যায়। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থাসহ আরো একাধিক বিদেশি প্রতিষ্ঠানের সহায়তায় যখন বিদেশি ও দেশি এক দল গবেষকের সমন্বয়ে এই খাবার স্যালাইন উদ্ভাবন হয় তখন ওই টিমের অন্যতম গবেষক ছিলেন ডা. রফিকুল ইসলাম। গবেষণায় তাঁর ভূমিকা অন্যদের চেয়ে অনেক সক্রিয় ছিল বলেই তিনি পরবর্তী সময়ে এই খাবার স্যালাইন উদ্ভাবনের আলোচিত ব্যক্তি হিসেবে পরিচিতি পান।



মন্তব্য