kalerkantho


সিলেটে দুই পাথর কোয়ারিতে মাটি ধসে ৬ শ্রমিকের প্রাণহানি

সিলেট অফিস   

২৭ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



সিলেটে দুই পাথর কোয়ারিতে মাটি ধসে ৬ শ্রমিকের প্রাণহানি

সিলেটে দুটি পাথর কোয়ারিতে অবৈধভাবে পাথর উত্তোলন করতে গিয়ে মাটি ধসে ছয় শ্রমিকের প্রাণহানি ঘটেছে। এর মধ্যে কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার ভোলাগঞ্জ কালাইরাগ পাথর কোয়ারিতে পাঁচজন ও জৈন্তাপুর উপজেলার শ্রীপুর পাথর কোয়ারিতে একজন শ্রমিক মারা গেছেন।

কালাইরাগ এলাকায় কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আলী আমজাদ ও তাঁর সহযোগীদের মালিকানাধীন কোয়ারিতে রবিবার রাতে অবৈধভাবে পাথর উত্তোলনকালে মাটিচাপা পড়ে পাঁচ শ্রমিক মারা যান। তাঁরা হলেন সুনামগঞ্জের দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলার মুরাদপুর গ্রামের মতিউর  (৩০), একই এলাকার রুহুল মিয়া (২২), ছলেরবন গ্রামের আশিক আলী (৩০), জামালগঞ্জ উপজেলার কলক্কা গ্রামের আতাবুর রহমান (৩০) ও কলমশাহ গ্রামের মঈনুদ্দিন (৩০)। আর জৈন্তাপুরের শ্রীপুরে নিহত শ্রমিক দেলোয়ার হোসেনের (২৬) বাড়ি উপজেলার চারিকাটা ইউনিয়নের লালা গ্রামে।

পুলিশ এবং স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, ১২৫১ সীমান্ত পিলার-সংলগ্ন কালাইরাগ কোয়ারিতে অবৈধভাবে গর্ত করে একটি চক্র দীর্ঘদিন ধরে পাথর উত্তোলন করে আসছে। রবিবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে জেনারেটর চালিয়ে ওই কোয়ারিতে গভীর গর্ত করে শ্রমিকরা পাথর তুলছিল। একপর্যায়ে গর্তের মাটি ধসে পড়লে কয়েকজন শ্রমিক চাপা পড়েন। স্থানীয়রা রাত সাড়ে ১১টার দিকে মতিউর ও রুহুল মিয়ার লাশ উদ্ধার করে। পরে গতকাল সকাল ৯টার দিকে আশিক ও আতাবুরের লাশ উদ্ধার করা হয়। বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে উদ্ধার করা হয় আরেক শ্রমিক মঈনুদ্দিনের লাশ।

দুর্ঘটনায় আরো তিন শ্রমিক আহত হন। তাঁরা হলেন সুনামগঞ্জের জামালগঞ্জ উপজেলার মালিকপুরের রকিবুল ও ফিরোজ আলী এবং দক্ষিণ সুনামগঞ্জের আক্তারপাড়া গ্রামের রুহেল। তাঁদের কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কেন্দ্রে ভর্তি করা হয়েছে।

স্থানীয়রা জানায়, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আলী আমজাদ হোসেন ছাড়াও দক্ষিণ কোনাবাড়ির কালা মিয়া, মাসুক মিয়া, তানভীর আহমদ, কনাই, কালাইরাগের ফয়জুর ও কালীবাড়ীর আলাউদ্দিন ওরফে মরা আলাউদ্দিন ওই কোয়ারির যৌথ মালিক। খবর পেয়ে রাতেই পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে উদ্ধারকৃত মরদেহ হেফাজতে নেয়। পরে কোয়ারির লেবার সর্দার আবদুর রউফকে আটক করে পুলিশ।

কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মুহাম্মদ আবুল লাইছ পাঁচজনের মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, কোয়ারির মালিকদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হবে। তাঁদের গ্রেপ্তারে পুলিশ অভিযান চালাচ্ছে। কোম্পানীগঞ্জ থানার পরিদর্শক (তদন্ত) দিলীপ কান্ত নাথ জানান, ময়নাতদন্তের জন্য লাশ ওসমানী মেডিক্যাল কলেজ মর্গে পাঠানো হয়েছে।

এদিকে জৈন্তাপুরের শ্রীপুর পাথর কোয়ারিতে গতকাল মাটি ধসে দেলোয়ার হোসেন নামে এক শ্রমিক মারা যান। দুপুর ১২টার দিকে কোয়ারির নাজিম উদ্দিনের গর্তে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় আহত হন আরো ৯ জন।

এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, গতকাল সোমবার সকালে কোয়ারিতে আইন অমান্য করে গভীর গর্ত করে পাথর তোলার সময় গর্তের পাড় ধসে অন্তত ১০ জন শ্রমিক আহত হন। তাঁদের মধ্যে গুরুতর আহত দেলোয়ারকে উদ্ধার করে প্রথমে উপজেলা স্বাস্থ্য কেন্দ্রে ও পরে ওসমানী হাসপাতালে নেওয়া হলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। বাকি আহতরা প্রাথমিক চিকিৎসা নেন।

জৈন্তাপুর মডেল থানার ওসি মঈনুল জাকির জানান, নিহত শ্রমিকের মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য ওসমানী মেডিক্যাল কলেজ মর্গে পাঠানো হয়েছে। পুলিশ বিষয়টি তদন্ত করছে। সংশ্লিষ্টদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।



মন্তব্য