kalerkantho


মুক্তিযুদ্ধের বইয়ে তারুণ্যের ঝোঁক

নওশাদ জামিল   

২০ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



মুক্তিযুদ্ধের বইয়ে তারুণ্যের ঝোঁক

একাত্তরের মুক্তিযুদ্ধ বাঙালির জীবনে আনন্দ-বেদনার এক ঐতিহাসিক ঘটনা। বাঙালির গৌরবোজ্জ্বল এই মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে রয়েছে কবিতা, গল্প, উপন্যাস, প্রবন্ধ, ইতিহাসসহ নানা ধরনের বই। প্রতিবছর গ্রন্থমেলায় প্রকাশিত হচ্ছে মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে নানামাত্রিক বই। আর প্রতিবছরই গুরুত্ব বাড়ছে মুক্তিযুদ্ধের বইয়ের। বাড়ছে পাঠকও।

মুক্তিযুদ্ধের অজানা ইতিহাস, যুদ্ধের প্রেক্ষাপট, মুক্তিযোদ্ধাদের স্মৃতিকথন, যুদ্ধের ভয়াবহতা, পাকিস্তানিদের বর্বরতা, যুদ্ধ-পরবর্তী বাংলাদেশ ইত্যাদি বিষয় গবেষণা, প্রবন্ধ, ইতিহাস রচনা, উপন্যাস, গল্প, কবিতা হয়ে বারবার ফিরে আসে। আসে মুক্তিযুদ্ধের মহানায়ক জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কথা। বইমেলায় প্রায় প্রতিদিনই মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে একাধিক বই প্রকাশ হচ্ছে। আর মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক বইগুলোর প্রতি পাঠকেরও রয়েছে অন্য রকম আগ্রহ।

ষষ্ঠ শ্রেণির শিক্ষার্থী সাদমান গতকাল সোমবার মেলায় এসেছিল মা-বাবার হাত ধরে। বাবা সানোয়ার হোসেন ওকে অন্যপ্রকাশের প্যাভিলিয়ন থেকে কিনে দেন ‘ছোটদের মুক্তিযুদ্ধের কথা’। বইটির লেখক আহমদ রফিক। সাদমান বলল, ‘ক্যাডেটে ভর্তি পরীক্ষা দেব। দেশকে জানতে, মুক্তিযুদ্ধকে জানতে বইটি সহযোগিতা করবে।’

বইমেলায় দেখা নাট্যজন ও সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব রামেন্দু মজুমদারের সঙ্গে। কথা প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘ইউরোপ-আমেরিকায় ওয়ার লিটারেচার রয়েছে। শিল্প-সাহিত্যে বাঙালির মহান অর্জন মুক্তিযুদ্ধ নিয়েও নানামাত্রিক কাজ করতে হবে। তরুণ প্রজন্মের মাঝে ছড়িয়ে দিতে হবে গৌরবের ইতিহাস।’

প্রকাশকরা জানান, মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক বইয়ের প্রতি এবার তারুণ্যের আগ্রহটা লক্ষণীয়। তাম্রলিপির প্রকাশক এ কে এম তারিকুল ইসলাম বলেন, ‘মুক্তিযুদ্ধের বইয়ের কাটতি মন্দ নয়। বেশি বিক্রি হচ্ছে মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক লেখা গল্প-উপন্যাস। তবে বড় পটভূমিতে মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে ব্যাপক গবেষণা হওয়া উচিত এবং গবেষণাভিত্তিক বইয়ের প্রকাশনা বাড়ানো উচিত। কিন্তু আগ্রহ থাকলেও তেমন পাণ্ডুলিপি পাই না।’

বাংলা একাডেমির দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, গতকাল মেলার ১৯তম দিন পর্যন্ত ৫০টি মুক্তিযুদ্ধের বই বিভিন্ন প্রকাশনা থেকে প্রকাশিত হয়েছে।

মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক কিছু বই : এ কে এম শাহনাওয়াজের ‘মুক্তিযুদ্ধ ১৯৭১ : হাজার বছরের উত্তরাধিকার’ (অবসর); মোরশেদ শফিউল হাসানের ‘স্বাধীনতা পটভূমি : ১৯৬০ দশক’ ও সিদ্দিকুর রহমানের অনুবাদে বরার্ট পেইনের ‘সেই দুঃসময়’ (অনুপম); আন্দালীব রাশদীর ‘একাত্তরের দলিল’, সেলিনা হোসেনের ‘মুক্তিযুদ্ধের কিশোর উপন্যাস’ ও শ্যামলী নাসরীন চৌধুরীর ‘ডা. আলীম চৌধুরী’ (আলোঘর); আরিফ রহমানের ‘মুক্তিযুদ্ধ ও যুদ্ধাপরাধ—কিছু বিভ্রান্তির জবাব’ ও ‘একাত্তরের ঘাতকদের বিচারে মুসলিম আইডেন্টিটির অপব্যবহার’ (শব্দশৈলী); মোস্তফা কামালের ‘অগ্নিপুরুষ’, মাহবুবুল আলম বিপ্লবের ‘বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধ ১৯৭১’ ও আহমেদ রিয়াজের ‘মুক্তিযুদ্ধের সাত বীর কিশোর’ (পার্ল পাবলিকেশন্স); সালেক খোকনের ‘যুদ্ধাহতের ভাষ্য’, শেখর কুমার সান্যালের ‘একাত্তরের পথে প্রান্তরে’ ও মনি হায়দারের ‘মুক্তিযুদ্ধের কিশোর গল্প’ (কথাপ্রকাশ); মুনতাসীর মামুন ও চৌধুরী শহীদ কাদেরের ‘গণমাধ্যমে বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধ’, ড. আবু সাইয়িদের ‘গণহত্যা ১৯৭১’, হাবিব হাওলাদারের ‘মুক্তিযুদ্ধে ছয় ভাই’ ও কর্নেল মোহাম্মদ আব্দুল সালামের ‘একাত্তরের একজন মুক্তিযোদ্ধা’ (অনন্যা); মেজর নাসিরউদ্দিনের ‘বাংলাদেশ : বাহাত্তর থেকে পঁচাত্তর’, মো. মোজাম্মেল হকের ‘১৯৭১ : উত্তাল মার্চের দিনগুলি’ ও আসাদুজ্জামান আসাদের ‘যুদ্ধজয়ের প্রস্তুতি’ (আগামী প্রকাশনী); হাবিবুর রহমানের ‘মুক্তিযুদ্ধের প্রথম প্রতিরোধ’ ও ‘মুক্তিযুদ্ধে পুলিশের ভূমিকা’ (পাঞ্জেরী) ইত্যাদি।

গ্রন্থমেলার ১৯তম দিনে গতকাল প্রকাশিত হয় ১৪১টি বই। এর মধ্যে চারটি বইয়ের তথ্য পরিচিতি তুলে ধরা হলো।

ইউনুস এমরের কবিতা : তুরস্কের প্রখ্যাত কবি ইউনুস এমরে। মূলত সুফি ঘরানার এই কবি ছিলেন হাফিজ-রুমির উত্তরসাধক। সেদিক থেকে বিবেচনা করলে বাঙালি সুফি-বাউল-মরমি কবিদের পূর্বসূরি তিনি। সেই বিখ্যাত কবির কবিতা অনুবাদ করেছেন কবি মুহম্মদ নূরুল হুদা। তিনি বাংলায় এমরের কবিতা অনুবাদ করতে গিয়ে সুফি ঘরানার শব্দ, কাব্য-প্রকরণ ইত্যাদি ব্যবহার করেছেন। বইটি প্রকাশ করেছে পাঞ্জেরী পাবলিকেশন্স। প্রচ্ছদ করেছেন আনওয়ার ফারুক। দাম ৬৫০ টাকা।

কিছু স্মৃতি কিছু কথা : সাবেক সেনাপ্রধান লে. জে. মাহবুবুর রহমানের (অব.) স্মৃতিচারণামূলক গ্রন্থ। তাঁর বর্ণাঢ্য কর্মময় জীবন বইটিতে উঠে এসেছে অনন্য ভাষাশৈলীতে। উঠে এসেছে তাঁর দেখা বিভিন্ন ব্যক্তি সম্পর্কে অনুপম স্মৃতিচারণা। পাশাপাশি তিনি বইটিতে তুলে ধরেছেন সমসাময়িক নানা প্রসঙ্গ। বইটির ভাষা, বর্ণনা, উপস্থাপনা অভিনব ও সুখপাঠ্য। বইটির প্রকাশক বেহুলা বাংলা। প্রচ্ছদ দেওয়ান আতিকুর রহমান। দাম ৩৫০ টাকা।

দেখিলাম তারে : বইটি মূলত ভ্রমণকাহিনি। লেখক মইনুল খান। পেশায় তিনি শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদপ্তরের মহাপরিচালক। পেশাগত কারণে ভারত ভ্রমণ করেছেন একাধিকবার। ঘুরে দেখেছেন দেশটির বিভিন্ন দর্শনীয় স্থান। বইটিতে উঠে এসেছে সেসবের বিশদ বর্ণনা। বইটির প্রকাশক অন্যপ্রকাশ। প্রচ্ছদ মোমিন উদ্দিন খালেদ। দাম ২০০ টাকা।

নগরে নিবন্ধনহীন : বইটির লেখক কবি আলফ্রেড খোকন। কবিতা নয়, এটি গদ্যের বই। লেখক ব্যক্তিগত জীবন ও নানা অনুভবের কথা লিখেছেন তাঁর কাব্যময় ভাষায়। ঝরঝরে ভাষায় তুলে ধরেছেন মফস্বল থেকে উঠে আসা এক কবির স্মৃতি, পাশাপাশি নগরজীবনের নানা অভিজ্ঞান। বইটি প্রকাশ করেছে কথাপ্রকাশ। প্রচ্ছদ করেছেন সব্যসাচী হাজরা। দাম ১৫০ টাকা।



মন্তব্য