kalerkantho


বইয়ের ভালোবাসায় দূর-দূরান্তের পাঠক

নওশাদ জামিল   

১৯ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



বইয়ের ভালোবাসায় দূর-দূরান্তের পাঠক

বইয়ের প্রতি ভালোবাসা ও টানে চট্টগ্রাম থেকে রাতের ট্রেনে ঢাকায় এসেছেন চল্লিশোর্ধ্ব মুনির হোসেন। উদ্দেশ্য অমর একুশে গ্রন্থমেলায় হাজির হওয়া। একগাদা বইয়ের ব্যাগ হাতে নিয়ে দুই আঙুলের ফাঁকে একটি তালিকা ধরে ঘুরছিলেন মেলা প্রাঙ্গণে। হাতের কাগজে বিভিন্ন বই ও প্রকাশনীর নাম লেখা।

অমর একুশে গ্রন্থমেলায় রাজধানীবাসীর পাশাপাশি দেশের নানা প্রান্তের মানুষও শামিল হয়। বইয়ের টানে দূর-দূরান্ত থেকে আসে নানা বয়সের মানুষ। গ্রন্থমেলার ১৮তম দিনে গতকাল রবিবার দেখা মেলে তেমন অনেক পাঠকের। পার্ল পাবলিকেশন্সের সামনে মুনির হোসেন কালের কণ্ঠকে জিজ্ঞাসা করেন—‘বাতিঘর স্টলটি কোথায় বলতে পারেন?’ স্টলটির দিকনির্দেশনা জানার ফাঁকে বললেন, ‘রাতের ট্রেনে চট্টগ্রাম থেকে এসেছি। সকালে পৌঁছে কিছু কাজ শেষে দুপুরে চলে এসেছি মেলায়। আবার রাতের ট্রেনেই ফিরে যাব।’

টঙ্গী থেকে সপরিবারে এসেছেন হাসান ভূঁইয়া। সঙ্গে স্ত্রী রাবেয়া খাতুন, দুই ছেলে ও এক মেয়ে। হাসান বলেন, ‘প্রতিবছরই মেলায় আসি। কিছু বই কিনি। নতুন বই পেলে বাচ্চারা খুব খুশি হয়।’

বাংলা একাডেমির বহেড়াতলায় দেখা মেলে অনেক তরুণের। তারা বিভিন্ন লিটল ম্যাগাজিনের সঙ্গে যুক্ত। তাদের অনেকেই এসেছে ঢাকার বাইরে থেকে। নিজের খরচে তারা প্রকাশ করে সাহিত্যের পত্রিকা। সদ্য ছাপা ওই পত্রিকা নিয়ে ছুটে আসে মেলায়। তরুণ লিটলম্যাগ কর্মী হারুন পাশা এসেছিলেন সাভার থেকে। কথা প্রসঙ্গে বলেন, ‘সাভার থেকে প্রতিদিনই আসি গ্রন্থমেলায়। নিজের পত্রিকা বিক্রি করি। পাশাপাশি পছন্দ হলে কিছু বই কিনি।’

প্রতিবছর দেশের প্রবাসী লেখকরাও ছুটে আসেন গ্রন্থমেলায়। প্রবাসের বাংলা ভাষার পাঠকরাও যেন মুখিয়ে থাকে বইমেলার জন্য। প্রবাসী লেখকদের প্রকাশিত বইগুলো নিয়ে যেমন তাদের নিজেদের মধ্যে চাঞ্চল্য থাকে, তেমনি আগ্রহ থাকে মেলার উৎসব-আমেজের ভেতরে থেকে লেখক-পাঠক-প্রকাশক-বন্ধু-স্বজনের সান্নিধ্য পাওয়ার প্রতি। বার্ষিক স্বদেশ ভ্রমণের বিষয়টিকেও তাদের অনেকেই ফেব্রুয়ারির জন্য তুলে রাখে। এবারের বইমেলাও এর ব্যতিক্রম নয়। মেলায় ঘুরতে ঘুরতে দেখা মিলল অনেক প্রবাসী পাঠক ও লেখকের।

পাঞ্জেরী পাবলিকেশন্সের সামনে দেখা হয় ভারতের একটি বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের শিক্ষক মোনালিসা দাসের সঙ্গে। আলাপচারিতায় বললেন, ‘বাংলাদেশে আমার প্রচুর বন্ধু-স্বজন রয়েছেন। মেলার টানে ও তাঁদের সঙ্গে দেখা করতেই এ সময় ঢাকায় আসা। দীর্ঘ এক মাস ধরে বইমেলা হয়, সত্যিই পৃথিবীর ইতিহাসে তা বিরল। বই নিয়ে মানুষের উচ্ছ্বাস, বইকেন্দ্রিক বাঙালির উন্মাদনা সত্যিই অভিভূত করে, মুগ্ধ করে আমাকে।’

বাংলা একাডেমি থেকে মেলার আগেই প্রকাশ হয়েছিল জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কারাগারের দিনলিপি নিয়ে বই ‘কারাগারের রোজনামচা’। বইটিতে বঙ্গবন্ধুর কারা জীবনের নানা স্মৃতিকথন স্থান পেয়েছে। ঐতিহাসিক দিক থেকে বইটি বিশেষভাবে গুরুত্বপূর্ণ। বাংলা একাডেমির প্যাভিলিয়ন থেকে বইটি কিনতে কিনতে মুন্সীগঞ্জের পাঠক রবিউল হোসেন বলেন, ‘সরাসরি মুন্সীগঞ্জ থেকে এসেছি মেলায়। আজ কিছু বই কিনেছি। শেষ দিকে এসে আবার কিছু বই কিনব।’

মেলায় গতকাল নতুন বই এসেছে ১৩৩টি। এর মধ্যে প্রকাশিত চারটি নতুন বইয়ের তথ্য-পরিচিত ছাপা হলো।

সংস্কৃতির সহজকথা : মননশীল বইটির লেখক আবুল কাসেম ফজলুল হক। একাধারে তিনি গবেষক, ঐতিহাসিক, অনুবাদক, সমাজ বিশ্লেষক, সাহিত্য সমালোচক ও রাষ্ট্রচিন্তাবিদ। সমাজ ও সংস্কৃতি নিয়ে তাঁর চিন্তাধারা পাঠকের সামনে উন্মোচিত করে নতুন পৃথিবী। বইটির প্রকাশক অ্যাডর্ন পাবলিকেশন। প্রচ্ছদ করেছেন সৈয়দ লুত্ফুল হক। দাম ১৭০ টাকা।

পুরুষতন্ত্র ও যৌন রাজনীতি : কবি ও প্রাবন্ধিক মাসুদুজ্জামানের মননশীল বই। সারা পৃথিবীতে যৌন নির্যাতনের শিকার হচ্ছে অসংখ্য নারী। বিশিষ্টজনদের অভিমত, নারী নির্যাতনের এই দিকটি আর কিছুই নয়; যৌন রাজনীতিরই বীভৎস রূপ। পুরুষতন্ত্রের নানা বেড়াজাল ও নারী নির্যাতনের নানা স্বরূপ উঠে এসেছে বইটির বিভিন্ন রচনায়। প্রকাশ করেছে পাঞ্জেরী পাবলিকেশন্স। প্রচ্ছদ নির্ঝর নৈঃশব্দ্য। মূল্য ৪৬০ টাকা।

নারায়ণগঞ্জে ভাষা আন্দোলন : গবেষণামূলক বইটির লেখক রফিউর রাব্বি। বায়ান্ন ও এর আগে-পরে ভাষার দাবিতে উত্তাল ছিল নারায়ণগঞ্জ। লেখক সেই গৌরবোজ্জ্বল ইতিহাসের খোঁজ করেছেন। তুলে ধরেছেন নারায়ণগঞ্জের নানা ঘটনা। বইটি প্রকাশ করেছে সাহিত্য প্রকাশ। প্রচ্ছদ অশোক কর্মকার। দাম ৩২০ টাকা।

এয়া : প্রতিশ্রুতিশীল কবি জুননু রাইনের কাব্যগ্রন্থ। মূলত কবিতাই তাঁর ধ্যান-জ্ঞান, আরাধনা। দীর্ঘদিন ধরে মগ্ন আছেন কাব্যচর্চায়। দীর্ঘদিন লেখালেখির পর প্রকাশিত হলো তাঁর প্রথম কাব্যগ্রন্থ। মেলায় বইটি বেশ পাঠকপ্রিয় হয়েছে। এরই মধ্যে বইটির প্রথম মুদ্রণ শেষ হয়েছে। তাঁর কবিতার ধমনিতে প্রবাহিত হয়েছে প্রেম, প্রকৃতি ও যাপিত জীবনের নানা অনুষঙ্গ। প্রবাহিত হয়েছে চর্যাপদ থেকে একালের কাব্য-ঐতিহ্য। বইটির প্রকাশক ঐতিহ্য। প্রচ্ছদ দেওয়ান আতিকুর রহমান। দাম ১২০ টাকা।

অন্যান্য নতুন বই : ইমদাদুল হক মিলনের ‘ভূতসমগ্র’ (অনন্যা); সায়েম রানার ‘সংগীতের প্রয়োগ ও সীমা’, প্রশান্ত ত্রিপুরার ‘প্রান্তিকতার খাদ থেকে স্বপ্নের আকাশে’ (সংহতি); সুমন রহমানের ‘নিরপরাধ ঘুম’, সেলিম জাহানের ‘বলা-অবেলার কথা’ (প্রথমা); কাজী সাজেদুর রহমানের ‘উন্নয়নের রূপরেখা’ (দেশ পাবলিকেশন্স); রফিকুর রশীদের ‘মুক্তিযুদ্ধের শ্রেষ্ঠ কিশোরগল্প’ (মূর্ধন্য); মুহম্মদ নূরুল হুদার ‘ইউনুস এমরের কবিতা’ (পাঞ্জেরী পাবলিকেশন্স); প্রভাষ আমিনের ‘স্বর্গ নেই, আছে উপসর্গ’ (অন্যপ্রকাশ); আনোয়ারা সৈয়দ হকের ‘রকমারি রচনা’ (রাত্রি প্রকাশনী); পারভেজ হোসেনের ‘বাংলাদেশের ছোটগল্প’ (নবযুগ); জাকির তালুকদারের ‘উপন্যাস চতুষ্টয়’ (পুঁথিনিলয়) ইত্যাদি।

মূল মঞ্চের আয়োজন : গতকাল বিকেলে গ্রন্থমেলার মূল মঞ্চে অনুষ্ঠিত হয় ‘এ এফ সালাহ্উদ্দীন আহ্মদ মুজাফ্ফর আহমদ চৌধুরী এ কে নাজমুল করিম’ শীর্ষক আলোচনা অনুষ্ঠান। প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন মুনতাসীর মামুন, মীজানূর রহমান শেলী ও সোনিয়া নিশাত আমিন। সভাপতিত্ব করেন অধ্যাপক বোরহানউদ্দিন খান জাহাঙ্গীর। সন্ধ্যায় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে ছিল মাসকুর-এ-সাত্তার কল্লোলের পরিচালনায় বাংলাদেশ আবৃত্তি সমন্বয় পরিষদের সদস্যদের আবৃত্তি পরিবেশনা।



মন্তব্য