kalerkantho


রামগঞ্জে ব্যবসায়ীকে অমানবিক নির্যাতন

লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি   

২২ জানুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



রামগঞ্জে ব্যবসায়ীকে অমানবিক নির্যাতন

লক্ষ্মীপুরের রামগঞ্জে খোরশেদ আলম (৩০) নামের এক ব্যবসায়ীকে ধরে নিয়ে অমানবিক নির্যাতন করেছে সন্ত্রাসীরা। অস্ত্রধারীরা প্রকাশ্য বাজারে পিটিয়ে জখম করে তাঁকে টেনেহিঁচড়ে তুলে নিয়ে যায়। ঘটনার দেড় ঘণ্টা পর পুলিশ সংবাদ পেয়ে তাঁকে উদ্ধার করে। বর্তমানে তিনি স্থানীয় হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। গত বুধবার সকালের এ নির্যাতন ঘটনার একটি ভিডিও ক্লিপ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে প্রতিক্রিয়া তৈরি হয়। তবে এ বিষয়ে মামলা হয়নি, স্থানীয়ভাবে মীমাংসার চেষ্টা চলছে।

সূত্র জানায়, আক্রান্ত খোরশেদ আলম মাটির ব্যবসায়ী। বুধবার সকাল ১১টার দিকে রামগঞ্জ ভোলাকোট  ইউনিয়নের অথাকরা বাজারে কয়েকজন সন্ত্রাসী আকস্মিক তাঁকে ঘিরে ধরে। কিছু বুঝে ওঠার আগেই বেধড়ক মারধর করতে থাকে তারা। একপর্যায়ে মাটিতে ফেলে পিটিয়ে জখম করে এবং হাত-পা ধরে টেনেহিঁচড়ে কিছুদূর নিয়ে যায়। সন্ত্রাসীরা অনেকটা বিবস্ত্র করে ফেলে তাঁকে। এরপর রিকশায় তুলে তাঁকে নিয়ে যায়। সংবাদ পেয়ে রামগঞ্জ থানার এসআই হাসান পার্শ্ববর্তী টিওরী গ্রাম থেকে দেড় ঘণ্টা পর খোরশেদ আলমকে উদ্ধার  করেন। নির্যাতন ও অপহরণ ঘটনায় স্থানীয় সন্ত্রাসী লেদা, কিরণ, নুর হোসেন, সোহেল, মিল্লাত, মিলন ও নুরু অংশ নিয়েছে বলে প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়।

অমানবিক এ নির্যাতন ঘটনার ২৭ সেকেন্ড দীর্ঘ একটি ভিডিও ক্লিপ ছড়িয়ে পড়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে। তাতে প্রতিক্রিয়া তৈরি হলেও স্থানীয় রাজনৈতিক নেতারা ঘটনাটি মীমাংসার চেষ্টা করেন।

রামগঞ্জ থানার ওসি তোতা মিয়া বলেন, ‘খবর পেয়ে খোরশেদ আলমকে উদ্ধার করা হয়েছে। এ বিষয়ে থানায় কোনো অভিযোগ করা হয়নি। এটি স্থানীয়ভাবে সমাধানের চেষ্টা চলছে।’

রামগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন খোরশেদ আলম জানান, দাবি করা চাঁদার টাকা না পেয়ে সন্ত্রাসীরা নির্যাতন চালায়। ঘটনার সময় তাঁর মোটরসাইকেল, মোবাইল ফোন ও কিছু টাকা কেড়ে নেওয়া হয়।

সূত্র জানায়, ব্যবসায়ীকে নির্যাতন ঘটনায় জড়িতরা রাজনৈতিক আশ্রয়ে ভোলাকোট ইউনিয়নের দেওলা, দেবনগরসহ আশপাশের এলাকায় অপরাধমূলক কাজ করে যাচ্ছে। বুধবারের ঘটনাটি স্থানীয় আওয়ামী লীগের নেতারা মীমাংসা করে দিয়েছেন বলে অনেকে জানায়।



মন্তব্য