kalerkantho


সমবেত সংগীতে স্বাস্থ্যের উন্নতি

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

২৩ ডিসেম্বর, ২০১৭ ০০:০০



সমবেত সংগীতে স্বাস্থ্যের উন্নতি

দেহ-মনে সংগীতের নানা ধরনের ইতিবাচক প্রভাব রয়েছে—এ কথা স্বীকৃত। এবার নতুন এক প্রভাবের কথা শোনালেন ব্রিটিশ বিজ্ঞানীরা। তাঁরা বলছেন, সমবেত কণ্ঠে গান গাইলে শারীরিক ও মানসিক স্বাস্থ্যের উন্নতি ঘটে। কেবল তাই নয়, ব্যক্তি নিজের কাছে নিজের মূল্য খুঁজে পায়। বাড়ে আত্মবিশ্বাসও।

গবেষণাটি করেছেন ইংল্যান্ডের নরউইচ শহরের ‘ইউনিভার্সিটি অব ইস্ট অ্যাংলিয়া’র একদল গবেষক। নরউইচে ‘সিং ইওর হার্ট আউট’ নামে একটি প্রকল্প চালু আছে ২০০৫ সাল থেকে। তাতে প্রতি সপ্তাহে অনেক মানুষ একসঙ্গে গলা মিলিয়ে গান গায়। এ প্রকল্প গান শেখানোর জন্য নয়, বরং ব্যক্তির দেহ-মনের উন্নতির লক্ষ্যেই যাত্রা শুরু করে।

‘সিং ইওর হার্ট আউট’ প্রকল্পে অংশগ্রহণকারী ২০ সদস্যের ওপর ছয় মাস ধরে গবেষণা চালান ‘ইউনিভার্সিটি অব ইস্ট অ্যাংলিয়া’র বিজ্ঞানীরা। গবেষণা শেষে তাঁরা উপসংহারে বলছেন, সমবেত কণ্ঠে গান গাইলে ব্যক্তির দেহ-মনে নানা ধরনের ইতিবাচক প্রভাব পড়ে। বিজ্ঞানীরা জানান, সেখানে পেনি হোল্ডেন (৬৭) নামের এক নারী আছেন। তিনি জন্ম থেকেই ‘বায়োপোলার’ (দ্বৈত সত্তা) ডিসঅর্ডারে আক্রান্ত। কিন্তু সমবেত কণ্ঠে গান গাওয়া শুরু করার পর থেকে তাঁর অবস্থার উন্নতি হতে থাকে। এখন তিনি অনেকটাই সুস্থ। সূত্র : বিবিসি।


মন্তব্য