kalerkantho


আওয়ামী লীগের অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ‘শান্তি কমিটির নেতা’

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি   

১৭ ডিসেম্বর, ২০১৭ ০০:০০



আওয়ামী লীগের অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ‘শান্তি কমিটির নেতা’

সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুরে স্থানীয় আওয়ামী লীগের বিজয় দিবসের অনুষ্ঠানে শান্তি কমিটির এক নেতাকে বিশেষ অতিথি করা হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। অভিযোগ অনুযায়ী, ‘বিশেষ অতিথি’ আব্দুল হান্নান চৌধুরী ওরফে সুফি মিয়া হলদিপুর ইউনিয়নের শান্তি কমিটির অন্যতম নেতা ছিলেন।

উপজেলা মুুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার সাজ্জাদ হোসেন বলেন, ‘১৯৭১ সালে শান্তি কমিটির নেতা ছিলেন আব্দুস ছোবান চৌধুরী ও তাঁর ছেলে আব্দুল হান্নান চৌধুরী। তাঁকে বিজয় দিবসের অনুষ্ঠানে অতিথি করার ঘটনা আমাদের কষ্ট দিয়েছে।’

আব্দুল হান্নান চৌধুরী যে শান্তি কমিটির শীর্ষ নেতা ছিলেন, তা ‘রক্তাক্ত একাত্তর’ গ্রন্থে উল্লেখ করেছেন সুনামগঞ্জের বিশিষ্ট মুক্তিযোদ্ধা ও ‘মুক্তিযুদ্ধ চর্চা ও গবেষণাকেন্দ্রের’ আহ্বায়ক অ্যাডভোকেট বজলুল মজিদ চৌধুরী খসরু। এ ছাড়া মুক্তিযুদ্ধের তরুণ গবেষক অপূর্ব শর্মার মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক গ্রন্থেও একই ধরনের কথা বলা হয়েছে।

গতকাল জগন্নাথপুর বাজারে বিজয় দিবসের এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে উপজেলা আওয়ামী লীগের একাংশ।

 ‘উপজেলা আওয়ামী লীগ ও পৌর আওয়ামী লীগের’ ব্যানারে ওই অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন হাজি আব্দুল মনাফ। তিনি পৌর মেয়র ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি। অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন আব্দুল হান্নান চৌধুরীও।

জগন্নাথপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক রেজাউল করিম রিজু বলেন, ‘আমরা শুনেছি শান্তি কমিটির এক নেতাকে নিয়ে পৌর মেয়র আব্দুল মনাফ আওয়ামী লীগের ব্যানারে বিজয় দিবসের অনুষ্ঠান করেছেন। তাঁর অনুষ্ঠানে আমাদের কোনো সম্পৃক্ততা নেই। পৌর মেয়র এ রকম কিছু করে থাকলে তা অবশ্যই নিন্দনীয়।’

এ ব্যাপারে আব্দুল মনাফ বলেন, ‘আব্দুল হান্নান চৌধুরীকে আমি সব সময় আওয়ামী লীগের অনুষ্ঠানে দেখি। তিনি শান্তি কমিটির নেতা ছিলেন কি না, জানি না। কারণ মুক্তিযুদ্ধের সময় আমি লন্ডনে ছিলাম।’

মুক্তিযুদ্ধ চর্চা গবেষণাকেন্দ্রের আহ্বায়ক ও মুক্তিযোদ্ধা অ্যাডভোকেট বজলুল মজিদ চৌধুরী খসরু বলেন, ‘আমার বইয়ে শান্তি কমিটির নেতা হিসেবে আব্দুল হান্নান চৌধুরীর নাম আছে। তাঁর বাবাও শান্তি কমিটির উপজেলা পর্যায়ের সভাপতি হয়েছিলেন।’



মন্তব্য