kalerkantho


ওবায়দুল কাদের বললেন

আগামী নির্বাচনে আসতেই হবে বিএনপিকে

সাতক্ষীরা ও মণিরামপুর (যশোর) প্রতিনিধি   

১৩ ডিসেম্বর, ২০১৭ ০০:০০



আগামী নির্বাচনে আসতেই হবে বিএনপিকে

ফাইল ছবি

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ‘বিএনপির নির্বাচনে না আসার কোনো সুযোগ নেই। রাজনৈতিক অস্তিত্ব ঝুঁকির মধ্যে ফেলতে না চাইলে বিএনপিকে নির্বাচনে আসতেই হবে। এটাকে তারা পাশ কাটিয়ে যেতে পারে না। তাহলে তারা আরো সংকুচিত হওয়ার ঝুঁকিতে পড়ে যাবে।’

গতকাল মঙ্গলবার সকালে সাতক্ষীরা যাওয়ার পথে যশোরের মণিরামপুরে এক পথসভায় ওবায়দুল কাদের এসব কথা বলেন। যাত্রাপথে স্থানীয় নেতাকর্মীরা হাজার হাজার মোটরসাইকেল নিয়ে শোভাযাত্রা করে তাঁকে স্বাগত জানান।   

আগামী জাতীয় নির্বাচনের মনোনয়ন বিষয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘আমাদের দলীয় সভানেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং সজীব ওয়াজেদ জয় বিভিন্নভাবে জরিপ করছেন, যাঁরা জনগণের সঙ্গে সম্পৃক্ত আছেন তাঁরাই মনোনয়ন পাবেন। সুন্দর মুখ দেখে, তোরণ দেখে, মোটর শোভাযাত্রা দেখে কারো মনোনয়ন হবে না।’

পরে দুপুরে সাতক্ষীরার শহীদ আবদুর রাজ্জাক পার্কে আওয়ামী লীগ আয়োজিত এক প্রতিনিধি সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘আওয়ামী লীগে কোনো সন্ত্রাসী, চাঁদাবাজ ও সাম্প্রদায়িক অপশক্তির স্থান হবে না।’ নেতাকর্মীদের সংশোধন হওয়ার আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, ‘ক্ষমতায় যখন না থাকবেন তখন পাঁচ হাজার পাওয়ারের বাতি জ্বালিয়েও তাঁদের খোঁজ পাওয়া যাবে না।’

আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘নির্বাচনে সুস্থ প্রতিযোগিতা থাকবে। কোনো অসুস্থ প্রতিদ্বন্দ্বিতা হবে না। জনগণের ভোটেই নেতাদের মনোনয়ন দেওয়া হবে। বিলবোর্ড, ব্যানার, পোস্টার, লিফলেট দেখে প্রার্থী মনোনয়ন দেওয়া হবে না।’ নির্বাচনে যাঁদের মনোনয়ন দেওয়া হবে তাঁদের পক্ষেই কাজ করতে হবে জানিয়ে তিনি বলেন, ‘আওয়ামী লীগে অনেক আগাছা পরগাছা রয়েছে। দলে এসব আগাছা পরগাছার দরকার নেই। দল ভারী ও পকেট ভারী করার জন্য অসাধু নেতাকর্মীকে দলে টানবেন না।’

ওবায়দুল কাদের বলেন, বিএনপি বিভিন্ন দেশে ৫০০ কোটি টাকা মানি লন্ডারিংয়ের সঙ্গে জড়িত বলে খোদ আমেরিকা জানিয়েছে। বিশ্বের কয়েকটি দেশে এই টাকা পাচার করা হয়েছে বলে উল্লেখ করেন তিনি।

জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সাবেক সংসদ সদস্য মুনসুর আহমেদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত প্রতিনিধি সভায় সাবেক স্বাস্থ্যমন্ত্রী ডা. আ ফ ম রুহুল হক, সংসদ সদস্য মীর মোশতাক আহমেদ রবি, সংসদ সদস্য জগলুল হায়দর, আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সদস্য এস এম কামাল হোসেন, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মো. নজরুল ইসলাম, জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক অধ্যাপক আবু আহমেদ এবং দলের অঙ্গ ও সহযোগী সব সংগঠনের বিভিন্ন স্তরের নেতারা বক্তব্য দেন।

এর আগে ওবায়দুল কাদের আওয়ামী লীগের নতুন সদস্য সংগ্রহ ও নবায়ন কর্মসূচির উদ্বোধন করেন।



মন্তব্য